আজ গায়ে হলুদ কাল আশির্বাদ পরশু বিয়ে

Print

রিয়েলিটি শো’র মাধ্যমে ২০০৮ সালে বাঁধন সরকার পূজা কণ্ঠশিল্পী পরিচিতি পান। তখন নবম শ্রেণিতে পড়তেন, এখন বিএসসি ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের শেষের দিকে আছেন। বুঝতে পারছেন পূজা ছোট্টটি নেই। ২০১৬ সালের শেষ দিকে সাক্ষাৎকারে বলছিলেন, ‘আরো দুই বছর পর বিয়ে নিয়ে ভাববো’। কিন্তু তার আগেই বিয়ের দূত ঘরে হাজির হলে মন্দ কী!
ঘটছেও তা-ই। পয়লা ফেব্রুয়ারি বিয়ের পিড়িতে বসছেন পূজা। বরের নাম অর্ণব দাস অন্তু, একটি বেসরকারি কোম্পানিতে কর্মরত। পাশাপাশি মডেলিংও করছেন। সোমবার সন্ধ্যায় বিয়ে ও পরের পরিকল্পনা নিয়ে সঙ্গে কথা বলেন এ শিল্পী।

পূজা বলেন, ‘এখন পার্লারে আছি। আজ রাতে গায়ে হলুদের অনুষ্ঠান, আগামীকাল আশির্বাদ, তার পরদিনই বিয়ে। বিয়ের অনেক আনুষ্ঠানিকতা থাকে। সেসব একে একে শেষ হচ্ছে।’
তিনি আরো বলেন, ‘বিয়ের খবর প্রকাশ হওয়ার পর থেকে অনেক শুভেচ্ছা পেয়েছি, পাচ্ছি। হয়তো কিছুদিন পরেই হত বিয়ে। আমার ছোট বোন প্রিয়া অস্ট্রেলিয়া চলে যাচ্ছে। সেজন্যই একটু আগেই সেরে ফেলা হচ্ছে। আমি পরিবারের বড় মেয়ে, তাই আয়োজনটাও বোধহয় বড় করে হচ্ছে। সবাই দোয়া করবেন অন্তু ও আমার জন্য। নতুন জীবনে যেন সুখী হতে পারি।’
২০১৬ সালের মাঝামাঝিতে প্রকাশ হওয়া পূজার ‘অবুঝ পাখি’ গানে মডেল হয়েছিলেন অন্তু। সেখান থেকেই শুরু বন্ধুত্বের। ধীরে ধীরে ঘনিষ্ঠতা বাড়তে থাকে। এরপর মন দেওয়া-নেওয়ার সূত্র ধরে বাজছে বিয়ের বাজনা।
বিয়ের পর অনেক শিল্পীকে গান থেকে দূরে সরে থাকতে দেখা গেছে। আপনার ক্ষেত্রে কী হবে?— এমন প্রশ্নে পূজা বলেন, ‘আমি ও অন্তু একে-অপরের কাজের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। আমরা জেনে বুঝেই সব সিদ্ধান্ত নিয়েছি। আর আমার গানের ক্ষেত্রেও অন্তু খুব উৎসাহ দেয়। আশা করছি বিয়ের পরও একই গতিতে গান করে যাবো।’
নতুন অ্যালবাম প্রসঙ্গে জানালেন, পহেলা বৈশাখ অথবা ঈদুল ফিতরে নতুন একক অ্যালবামে আসবে। তার আগেই প্রকাশ হবে সিঙ্গেল ‘ফানুস’। তানজীব সারোয়ারের কথা ও সুরে গানটির রেকডিং শেষ হয়েছে। কন্ঠ দিয়েছেন তানজীবও। অন্যদিকে সম্প্রতি সাদ শাহর সুর ও সংগীতায়োজনে ‘খুঁজে যাই’ শিরোনামের গানে কণ্ঠ দিয়েছেন পূজা।

প্রতি মুহুর্তের সর্বশেষ খবর পেতে এখানে ক্লিক করে আমাদের ফেইসবুক পেইজে লাইক দিন

(লেখাটি পড়া হয়েছে 181 বার)


Print
এই পাতার আরও সংবাদ