আবার বিদ্যুতের দাম বাড়ছে

Print

আবার বিদ্যুতের দাম বাড়ানোর উদ্যোগ নেয়া হচ্ছে। এ জন্য গণশুনানি করতে যাচ্ছে বাংলাদেশ এনার্জি রেগুলেটরি কমিশন (বিইআরসি)। আগামী ২৫ সেপ্টেম্বর থেকে বিইআরসি কার্যালয়ে এই গণশুনানি শুরু হবে।
বিইআরসির সদস্য মোহম্মদ আজিজ খান বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, কোম্পানিগুলোর বিদ্যুতের দাম বাড়ানোর আবেদনের জন্য এই শুনানির দিন নির্ধারণ করা হয়েছে।

বিইআরসি সূত্র জানায়, বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ড (পিডিবি) বিতরণ কোম্পানিগুলোর কাছে পাইকারি বিক্রির ক্ষেত্রে প্রতি ইউনিট বিদ্যুতের দাম প্রায় ১৫ শতাংশ (৭২ পয়সা) বাড়ানোর প্রস্তাব দিয়েছে। এ বিষয়ে পিডিবি চেয়ারম্যান প্রকৌশলী খালেদ মাহমুদ বলেন, বর্তমানে যে দামে বিদ্যুৎ কেনা হচ্ছে, তার চেয়ে পাইকারি বিক্রিমূল্য অনেক কম। গ্যাসের দাম বেড়েছে। কিছুটা সমন্বয় করা দরকার। গত অর্থবছর পিডিবির ঘাটতি দেখা দিয়েছে। তবে সরকার এ অর্থ ভর্তুকির পরিবর্তে ঋণ হিসেবে দিয়েছে। এ জন্য বিদ্যুতের বাল্ক মূল্য বাড়ানোর প্রস্তাব দেয়া হয়েছে।
এদিকে বিভিন্ন বিদ্যুৎ বিতরণ কোম্পানিও গ্রাহক পর্যায়ে ৮ থেকে ১২ শতাংশ হারে প্রতি ইউনিট বিদ্যুতের দাম বাড়ানোর প্রস্তাব দিয়েছে। এর মধ্যে ঢাকা পাওয়ার সাপ্লাই কোম্পানি (ডেসকো) ৮ দশমিক ৩৫ শতাংশ, ঢাকা পাওয়ার ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানি (ডিপিডিসি) ৮ দশমিক ৮৬, ওয়েস্টজোন পাওয়ার ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানি (ওজোপাডিকো) ১০ দশমিক ৭৬ ও পল্লী বিদ্যুতায়ন বোর্ড (আরইবি) ৭ দশমিক শূন্য ৮ শতাংশ দাম বাড়ানোর প্রস্তাব করেছে।
বিদ্যুতের দাম ছাড়াও দু-একটি বিতরণ কোম্পানি গ্রাহক পর্যায়ে ডিমান্ড চার্জ ও সার্ভিস চার্জ বাড়ানোর প্রস্তাব করেছে বলে বিইআরসির সূত্র জানায়। বর্তমানে প্রতিটি মিটারে প্রতি মাসে ৩০ টাকা করে ডিমান্ড চার্জ ও ১০ টাকা করে সার্ভিস চার্জ ধার্য আছে। এটা বাড়িয়ে যথাক্রমে ৪০ টাকা ও ২০ টাকা করার প্রস্তাব করেছে কোনো কোনো বিতরণ কোম্পানি।
এর আগে ২০১০ সালের ১ মার্চ থেকে ২০১৫ সালের ১ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত ছয় বছরে পাইকারি পর্যায়ে ছয়বার এবং গ্রাহক পর্যায়ে সাতবার বিদ্যুতের দাম বাড়িয়েছে সরকার।

প্রতি মুহুর্তের সর্বশেষ খবর পেতে এখানে ক্লিক করে আমাদের ফেইসবুক পেইজে লাইক দিন

(লেখাটি পড়া হয়েছে 371 বার)


Print
এই পাতার আরও সংবাদ