ইউপি চেয়ারম্যানকে ফেইজবুকে হুমকি দেয়ায় ছাত্রলীগ সভাপতির বিরুদ্ধে মামলা

Print

ছাত্রলীগের দাবী বিএনপি কর্মী মাদক চক্রের ষড়যন্ত্র
ঝালকাঠি জেলা-উপজেলা ও ইউপি চেয়ারম্যানকে ফেইজবুকে হুমকি দেয়ায় ছাত্রলীগ সভাপতির বিরুদ্ধে তথ্য আইনে মামলা


আজমীর হোসেন তালুকদার, ঝালকাঠি: ঝালকাঠি গাভা-রামচন্দ্রপুর ইউপি চেয়ারম্যান গো. মা. মাসুম শেরওয়ানীর বিরুদ্ধে ফেইজবুকে আপত্তিকর মন্তব্য ও ছবি পোষ্ট করার সন্দেহে ইউনিয়ন ছাত্রলীগ সভাপতিসহ কয়েকজন কর্মীর বিরুদ্ধে তথ্য প্রযুক্তি আইন এর ৫৭ ধারায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার দুপুরে সে বাদী হয়ে ঝালকাঠি থানায় দায়েরকৃত মামলায় ফেইজবুকে মিথ্যা তথ্য প্রকাশ, হত্যার হুমকি ও ইউনিয়ন পরিষদের এসে অকথ্য গালাগালের অভিযোগে করা হয়েছে। অন্যদিকে ইউনিয়ন ছাত্রলীগের দাবী, একটি ফেক আইডির লেখা ও ছবি দিয়ে অন্যায় ভাবে কতিপয় বিএনপি লোক ও চিহ্নিত মাদক ব্যবসায়ী ইন্দন দিয়ে স্থানীয় ছাত্রলীগ নেতাদের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা করা হয়েছে। দলীয় আদর্শগত বিরোধ থাকায় বিএনপি কর্মী মাদক চক্রটি আ’লীগ দলীয় ইউপি চেয়ারম্যান মাসুম শেরওয়ানীকে দিয়ে ছাত্রলীগের কর্মীদের নামে মামল করিয়ে তারা স্বাক্ষী হয়েছে বলে অভিযোগ করেছে।
গাভা-রামচন্দ্রপুর ইউপি চেয়ারম্যান গো.মা. মাসুম শেরওয়ানীর দায়েরকৃত অভিযোগে উল্লেখ করেন, আসামী এসএম সুজন হাওলাদার ও সৈয়দ আরিফুর রহমান সজিব এর প্রত্যক্ষ ইন্দনে কতিপয় দুস্কুতিকারী ফারজানা আক্তার লিজা নামক আইডির দিয়ে বাদী ইউপি চেয়ারম্যান মাসুম শেরওয়ানীর বিরুদ্ধে নানা রকম অশ্লীল লেখা, ছবি পোষ্ট দেয়া ও গাভা-রামচন্দ্রপুর ইউনিয়ন পরিষদের সামনে গিয়ে অকথ্য ভাষায় গালাগাল, খুন-জখমের হুমকি দিয়েছে। এমন কি আসামীরা বাদীর আপন মামা জেলা আওয়ামীলীগ সভাপতি জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান সরদার মোঃ শাহ আলম ও ঘনিষ্ট আত্মীয় সদর উপজেলা চেয়ারম্যান জেলা আওয়ামীলীগ যুগ্মসম্পাদক সুলতান হোসেন খানের বিরুদ্ধে বিভিন্ন্ সময় অসৌজন্যমূলক ও মানহানীকর তথ্য প্রচার করেছে বলে মামলায় অভিযোগ করেছে।
এ ব্যাপারে ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সভাপতি সৈয়দ আরিফুর রহমান সজিব দাবী করেন, ‘ফারজানা আক্তার লিজা’ নামে একটি ফেজবুক আইডিতে সম্প্রতি গাভা ইউপি চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে কিছু লেখালেখি হলে এটা আমরা করেছি বলে তার ঘনিষ্ট কতিপয় বিএনপি কর্মী-মাদক চক্র চেয়ারম্যানকে ভূল বোঝায়। বিষয়টি জানতে পেরে সে ইউপি চেয়ারম্যান মাসুম শেরওয়ানী ও জেলা আওয়ামীলীগ সভাপতি জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান সরদার মোঃ শাহ আলমের কাছে ছুটে যান ও এঘটনায় তারা ঝড়িত নয় জানিয়ে প্রশাসনের মাধ্যমে ‘আইডি ব্যবহারকারী’কে আটক করার অনুরোধ করে। কিন্তু বুধবার গভীর রাত ২টায় এসআই মিঠুন সহ একদল পুলিশ বালিঘোনা গ্রামের বাড়ী থেকে ইউনিয়ন ছাত্রলীগের কর্মী বরিশাল পলিট্যাকনিকের মেধাবী ছাত্র এসএম সুজনকে আটক করলে সেও থানায় আসে। কিন্তু কোন তদন্ত বা অনুসন্ধান না করে বিনা অপরাধে তাকে ও সুজনকে আসামী করে বৃহস্পতিবার দুপুরে তথ্য প্রযুক্তি আইন ২০০৬ এর (সংশোধিত) এর ৫৭ ধারায় মামলা (নং-১৩) দায়ের করা হয়েছে।
এব্যাপারে ঝালকাঠি থানায় ওসি মোঃ মাহে আলম জানায়, গাভা ইউনিয়ন চেয়ারম্যানের অভিযোগের প্রেক্ষিতে বুধবার রাতে বালিঘোনা গ্রামের বাড়ী থেকে সুজনকে পুলিশ গ্রেপ্তার করেছে। বৃহস্পতিবার চেয়ারম্যান মাসুম শেরওয়ানী বাদী হয়ে তথ্য প্রযুক্তি আইন এর ৫৭ ধারায় দায়েরকৃত মামলার আসামী হিসাবে তাকে আদালতে প্রেরন করা হয়েছে। এজাহারভুক্ত অপর আসামী আটকের জন্য অভিযান চলছে তবে সে বর্তমানে পলাতক রয়েছে।

প্রতি মুহুর্তের সর্বশেষ খবর পেতে এখানে ক্লিক করে আমাদের ফেইসবুক পেইজে লাইক দিন

(লেখাটি পড়া হয়েছে 88 বার)


Print
এই পাতার আরও সংবাদ