ইউপি নির্বাচনে চতুর্থ ধাপে চেয়ারম্যান হলেন যারা

Print

ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) নির্বাচনে প্রথম তিন ধাপের মতো এবারও চেয়ারম্যান পদে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থীরা বিপুল ব্যবধানে বিজয়ের পথে রয়েছেন। শনিবার ৭০৩টি ইউপিতে ভোট গ্রহণ হয়। এর মধ্যে রাত ১০টা পর্যন্ত ৫২১টির ফল পাওয়া গেছে। এতে নৌকা প্রতীকে আওয়ামী লীগের ৩৫৯, ধানের শীষ প্রতীকে বিএনপির ৫০, লাঙ্গল প্রতীকে জাতীয় পার্টির ৩, অন্যান্য ১ এবং ১০৭ জন স্বতন্ত্র প্রার্থী চেয়ারম্যান পদে বিজয়ী হয়েছেন।

নির্বাচন কমিশন (ইসি) কার্যালয় থেকে জানানো হয়েছে, ভোটে অনিয়মের কারণে অন্তত ৫১টি কেন্দ্রের ভোট গ্রহণ স্থগিত করা হয়েছে। তবে এ কারণে কয়টি ইউপির ফল স্থগিত হবে, তা জানাতে পারেনি ইসি।

দেশে প্রথমবারের মতো দলভিত্তিক এ নির্বাচনের চতুর্থ ধাপে আওয়ামী লীগ, বিএনপিসহ ১৬টি রাজনৈতিক দলের মনোনীত প্রার্থীরা অংশ নেন। আগামী জুনের মধ্যে পর্যায়ক্রমে ছয় ধাপে দেশের চার হাজার ২৭৫টি ইউপিতে ভোট নেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে ইসি। এর আগে গত ২২ মার্চ প্রথম ধাপের ৭১২টি, ৩১ মার্চ দ্বিতীয় ধাপে ৬৩৯টি ও ২৩ এপ্রিল তৃতীয় ধাপে ৬১৫ ইউপিতে ভোট নেওয়া হয়।

শনিবার সকাল ৮টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত একটানা ভোট নেওয়ার পর কেন্দ্রেই ভোট গণনা করা হয়। এ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে বিভিন্ন দল মনোনীত ও স্বতন্ত্র প্রার্থী মিলিয়ে মোট তিন হাজার ২৪৫ প্রার্থী অংশ নেন।

দেশে প্রথমবারের মতো দলভিত্তিক এই ইউপি নির্বাচনে মহৃল লড়াই চলছে আওয়ামী লীগ ও বিএনপির মধ্যে। আর আগের তিন ধাপের ফল অনুযায়ী আওয়ামী লীগ মনোনীতরা এক হাজার ৩৯৬টিতে, বিএনপি মনোনীতরা ১৭৩টিতে বিজয়ী হন। ইসির হিসাবে প্রথম ধাপে ৭৪ শতাংশ, দ্বিতীয় ধাপে ৭৮ শতাংশ ও তৃতীয় ধাপে ৭৬ শতাংশ ভোট পড়েছে।

চেয়ারম্যান পদে বিজয়ীরা হলেন-

ঢাকা: নবাবগঞ্জ উপজেলায় জয়ী আওয়ামী লীগের চেয়ারম্যানরা হলেন, শিকারীপাড়ায় আলীমুর রহমান খান পিয়ারা, বারুয়াখালীতে প্রকৌশলী আরিফ সিকদার, যন্ত্রাইলে নন্দলাল সিং, কলাকোপাতে মো. ইব্রাহীম খলিল, বক্সনগরে আব্দুল ওয়াদুদ, কৈইলালে পান্নু মাতাব্বর, চুড়াইনে আব্দুল জলিল, বাহ্রাতে সাফিল উদ্দিন মিয়া, শোল্লাতে দেওয়ান তুহিনুর রহমান তুহিন। বিএনপি সমর্থিত জয়ীরা হলেন জয়কৃষ্ণপুরে মো. মাসুদ, গালিমপুরে তপন মোল্লা এবং আগলাতে আবেদ হোসেন। নয়নশ্রীতে জাতীয় পার্টির রিপন মোল্লা ও স্বতন্ত্র প্রার্থী হিল্লাল মিয়া বান্দুরা ইউনিয়নে বেসরকারিভাবে নিবার্চিত হয়েছেন।

গাজীপুর: জেলার কালিয়াকৈর উপজেলায় জয়ী আওয়ামী লীগের চেয়ারম্যানরা হলেন, সূত্রাপুরে মো. বজলুর রহমান, ফুলবাড়িয়ায় অধ্যাপক আব্দুল হাকিম, বোয়ালীতে শাহাদাত হোসেন, মধ্যপাড়ায় নাসিম কবির। স্বতন্ত্র চেয়ারম্যানরা হলেন, চাপাইরে সাইফুজ্জামান সেতু, আটাবহে মো. আলাউদ্দিন মোল্লা ও ঢালজোড়াতে মো. আক্তারুজ্জামান।

মানিকগঞ্জ: জেলার সিংগাইরে জয়ী আওয়ামী লীগের চেয়ারম্যান প্রার্থীরা হলেন, বায়রাতে দেওয়ান জিন্নাহ, বলধারায় অবদুল মাজেদ খান, চান্দহরে শওকত হোসেন, ধল্লায় মো. জাহিদুল ভুইয়া, জয়মন্টপে শাহাদাত্ হোসেন, জার্মিতায় আবদুল হালিম রাজু, জামশায় মিজানুর রহমান মিঠু, শায়েস্তায় মোসলেম উদ্দিন, তালেবপুরে রমজান আলী। চারিগ্রামে সাজেদুল আলম ও সিঙ্গাইরে দেওয়ান মাহবুবুর রহমান মিঠু স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে নির্বাচিত হয়েছেন।

টাঙ্গাইল: জেলার মধুপুরে আওয়ামী লীগের প্রার্থীরা হলেন, গোলাবাড়িতে গোলাম মোস্তফা বাবলু, মির্জাবাড়িতে শাহজাহান তালুকদার এবং আলোকদিয়ায় আবু সাঈদ দুলাল। দেলদুয়ারে জয়ী আওয়ামী লীগের প্রার্থীরা হলেন, ডুবাইলে ইলিয়াস মিয়া, এলাসিনে বেলায়েত হোসেন খান, দেউলীতে দেওয়ান তাহমিনা হক। বিএনপি প্রার্থীরা হলেন, ফাজিলহাটীতে তোফাজ্জল হোসেন, লাউহাটীতে রফিকুল ইসলাম খান। জয়ী স্বতন্ত্র প্রার্থীরা হলেন, দেলদুয়ার সদরে আবু তাহের তালূকদার বাবলু, পাথরাইলে হানিফুজ্জামান লিটন, আটিয়ায় সিরাজুল ইসলাম মল্লিক।

কিশোরগঞ্জ: জেলার ভৈরব উপজেলায় আওয়ামী লীগের জয়ী চেয়ারম্যানরা হলেন, সাদেকপুরে হাজী আবু বক্কর ছিদ্দিক, শ্রীনগরে সাজেন্ট মো. তাহের (অব.), আগানগরে মোমতাজ উদ্দিন, শিবপুরে মো. শফিকুল ইসলাম, কালিকাপ্রসাদে মো. ফারুক মিয়া, শিমুলকান্দিতে জোবায়ের আলম দানিছ ও গজারিয়া ইউনিয়নে স্বতন্ত্র প্রার্থী কাজী গোলাম সারোওয়ার গোলাপ মিয়া নির্বাচিত হয়েছেন। কুলিয়াচর উপজেলায় জয়ী আওয়ামী লীগের চেয়ারম্যানরা হলেন, উসমানপুরে মো.নিজাম ক্বারী ও ফরিদপুর ইউনিয়নে মো.শাহ আলম। জয়ী বিদ্রোহী প্রার্থীরা হলেন, গোবরিয়া আব্দুল্লাহপুরে মো. আব্বাস উদ্দিন ৬নং সালুয়া ইউপিতে শাহ মাহাবুবুর রহমান। ২নং রামদী ও ৫নং ছয়সূতী ইউপিতে নির্বাচন স্থগিত করা হয়েছে ।

শেরপুর: জেলার ঝিনাইগাতীতে বিজয়ী আওয়ামী লীগের চেয়ারম্যানরা হলেন, কাংশায় মো. জহুরুল হক, ধানশাইলে মো. শফিকুল ইসলাম, নলকুড়ায় আইয়ূব আলী ফর্সা, গৌরীপুরে হাবিবুর রহমান মন্টু ও হাতিবান্দায় নুরুল আমিন দোলা। মালিঝিকান্দায় জিতেছে স্বতন্ত্র প্রার্থী নুরুল ইসলাম তোতা ও ঝিনাইগাতী সদরে মোফাজ্জল হোসেন চাঁন। সদর উপজেলায় জয়ী আওয়ামী লীগের প্রার্থীরা হলেন, পাকুরিয়ায়হায়দর আলী, গাজীর খামারে আওলাদুল ইসলাম, বাজিতখিলায় আমীর আলী সরকার, ধলা ইউনিয়নে রইজউদ্দিন, ভাতশালায় রফিকুল ইসলাম, কামারিয়ায় আব্দুর বারী চান মিয়া বিনা প্রতিদ্বন্দ্বীতায় এবং রৌহা ইউনিয়নে স্বতন্ত্র প্রার্থী শফিকুল ইসলাম মিজু জয়ী।

ফরিদপুর: জেলার মধুখালী উপজেলায় জয়ী আওয়ামী লীগের চেয়ারম্যানরা হলেন কামারখালীতে জাহিদুর রহমান বিশ্বাস, বাগাটে মতিয়া রহমান খান, রায়পুরে মাৈতালেব হোসেন মৃধা এবং জাহাপুরে স্বতন্ত্র প্রার্থী ইসহাক আলী মোল্লা জয়ী। চরভদ্রাসনে জয়ী আওয়ামী লীগের চেয়ারম্যানরা হলেন, চরভদ্রাসন সদরে মো. আযাদ খান ও ঝাউকান্দায় মো. ফরহাদ হোসেন মৃধা। গাজীরটেকে মো. ইয়াকুব আলী ও হরিরামপুরে মো. আমির হোসেন স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে জয়ী হয়েছেন।

সদরপুরে জয়ী আওয়ামী লীগের প্রার্থীরা হলেন, চরবিষ্ণুপুরে মো. মোয়াজ্জেম হোসেন, চরমানাইরে মো. আইয়ুব আলী ও কৃষ্ণপুর ইউনিয়নে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বীতায় বিল্লাল হোসেন ফকির। জয়ী স্বতন্ত্র প্রার্থীরা হলেন, আকোটের চরে চৌধুরী মনিরুল হক মুরাদ, নারিকেল বাড়ীয়ায় মো. নাছির উদ্দিন সরদার, চরনাছিরপুরে মো. আক্কাস আলী, ভাষাণচরে মো. ছমির বেপারী, সদরপুরে শহিদুল ইসলাম বাবুল ও ঢেউখালীতে ওমর ফারুক নির্বাচিত হয়েছেন।

গোপালগঞ্জ: জেলার মুকসুদপুরে জয়ী আওয়ামী লীগের চেয়ারম্যানরা হলেন, পশারগাতীতে এস.এম কামরুল হাসান, খান্দারপাড়ে সাব্বির খান, বহুগ্রামে মো. সোহেল শেখ, বাশবাড়িয়ায় মনিরুজ্জামান মোল্লা, ভাবরাশুরে এস.এম রিফাতুল আলম, মহারাজপুরে আশ্রাফ আলী মিয়া, উজানীতে শ্যামল কান্তি বোস, গোহালাতে সফিকুল আলম, মোচনাতে দেলোয়ার হোসেন মোল্লা, কাশালিয়ায় সিরাজুল ইসলাম, জলিরপাড়ে অখিল চন্দ্র বৈরাগী, গোবিন্দপুরে বিনা প্রতিদন্দিতায় ওবাদুর রহমান। জয়ী স্বতন্ত্র প্রার্থীরা হলেন, দিগনাগরে সফিকুল আলম মোল্লা সাগর, রাঘদীতে আলমগীর হোসেন ও ননীক্ষীরে আসাদুজ্জামান মিনা। বাটিকামারী ইউনিয়নে ইউপি নির্বাচন স্থগিত।

জামালপুর: জেলার মাদারগঞ্জ উপজেলার চারটিতেই আওয়ামী লীগের প্রার্থীরা জয়ী হয়েছেন। আদারভিটায় আলতাফুর রহামন আতা, কড়ইচড়া- আ মোজাম্মেল হক বাচ্চু, গুনারীতলা জয়নাল আবেদিন আয়না, সিধুলীতে মাহবুবুর রহমান মিলন। বাকি চারটি ইউনিয়নে নির্বাচন স্থগিত। মেলান্দহ উপজেলার দুরমুটে জয়ী হয়েছেন আওয়ামী লীগের চেয়ারম্যান প্রাথী খালেকুজ্জামান জুবেরি।

মুন্সীগঞ্জ: জেলার দুই উপজেলায় আওয়ামী লীগের বিজয়ীরা হলেন- টঙ্গীবাড়ি উপজেলার দিঘিরপাড়ে আরিফ হালাদার, হাসাইল-বানারীতে আনোয়ার হালাদার, কামারখাড়ায় মহিউদ্দিন হালাদার, কাঠাদিয়া-শিমুলিয়ায় নুর হোসেন, বালিগাঁওয়ে দুলাল হাজী, আড়িয়ালে দ্বীন ইসলাম, আব্দুল্লাপুরে আব্দুর রহিম ও সোনারং-টঙ্গীবাড়িতে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় বেলায়েত হোসেন লিটন মাঝি। বিএনপির বিজয়ীদের মধ্যে রয়েছেন টঙ্গীবাড়ি উপজেলার ধীপুর ইউপিতে আক্তার হোসেন মোল্লা এবং সদর উপজেলার বিজয়ী বজ্রযোগিনী ইউপিতে তোতা মিয়া মুন্সী। স্বতন্ত্র প্রার্থীদের মধ্যে বিজয়ী হয়েছেন সদর উপজেলার পঞ্চসারে গোলাম মোস্তফা, টঙ্গীবাড়ি উপজেলার বেতকা ইউপিতে আলম শিকদার বাচ্চু এবং আউটশাহী ইউপিতে জহিরুল হক লিটন ঢালী। স্থগিত থাকা সদরের রামপাল ইউপিতে স্বতন্ত্র প্রার্থী বাচ্চু শেখ ৩২৯৮ ভোটে এগিয়ে আছেন। টঙ্গীবাড়ি উপজেলার যশলং ইউপিতে আওয়ামী লীগের আলমাস চোকদার এগিয়ে আছেন।

নেত্রকোনা: জেলার কলমাকান্দা উপজেলায় জয়ী আওয়ামী লীগের প্রার্থীরা হলেন, বড়খাপনে হাদিছুজ্জামান হাদিছ এবং রংছাতিতে তাহেরা বেগম। বিএনপির বিজয়ীরা হলেন, কলমাকান্দা ইউনিয়নে শেখ গোলাম মওলা, লেংগুড়ায় সাইদুর রহমান, খারনৈ-এ ওবায়দুল হক, কৈলাটিতে রুবেল ভুইয়া। এছাড়া পোগলা ইউনিয়নে রফিকুল ইসলাম এবং নাজিরপুরে আব্দুল কদ্দুছ বাবুল স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে নির্বাচিত হয়েছেন।

বারহাট্টায় জয়ী আওয়ামী লীগের প্রার্থীরা হলেন, বারহাট্টা সদরে কাজী শাখাওয়াত হোসেন, সিংধায় শাহ মাববুব মোর্শেদ কাঞ্চন ও সাহতায় পল্টন সরকার। স্বতন্ত্র প্রার্থীরা হলেন, আসামাতে মো. আবুল হাশেম, বাউসীতে শেখ তারেক হাবিব, চিরামে আমিরুল ইসলাম ও রায়পুরে আতিকুর রহমান রাজু।

নরসিংদী: রায়পুরার জয়ী আওয়ামী লীগের প্রার্থীরা হলেন, পলাশতলীতে জাহাঙ্গীর আলম ভুইয়া, মুছাপুরে হোসেন ভুইয়া, মরজালে সানজিদা সুলতানা নাছিমা, অলিপুরায় আল-আমিন ভুইয়া মাসুদ, রায়পুরায় আনোয়ার হোসেন, হাইরমারায় মাহফুজুল হক বাবলা। জয়ী স্বতন্ত্র প্রার্থীরা হলেন, মির্জানগরে হুমায়ুন কবীর সরকার, শ্রীনগরে আজান চৌধুরী, মির্জাপুরে আসাদুল হক আসাদ, পাড়াতলীতে রফিকুল ইসলাম।

মাদারীপুর: কালকিনিতে জয়ী আওয়ামী লীগের প্রার্থীরা হলেন, সিডিখানে চান মিয়া, লক্ষীপুরে গেন্দু কাজী, নবগ্রামে বিভুতি বাড়ৈ, রমজানপুরে ইউনূস আলী মিয়া, সাহেবরামপুরে কামরুল হাসান সেলিম। জয়ী স্বতন্ত্র প্রার্থীরা হলেন, আলীনগরে হাফিজুর রহমান মিলন, বালিগ্রামে জাকির হোসেন, বাশগাড়ীতে সুমন, ডাসারে সবুজ হাওলাদার, গোপালপুরে ফরহাম মাতব্বর, কয়ারিয়ায় নূরে আলম, কাজীবাকাইয়ে নুর আলম, শিকারমঙ্গলে সিরাজুল ইসলাম মৃধা।

রাজবাড়ী: জেলার পাংশাতে জয়ী আওয়ামী লীগ প্রার্থীরা হলেন, বাহাদুরপুরে হুমায়ুন কবীর শাকিল, হাবাশপুরে আবদুল আলীম, কলিমহরে আবদুল জলিল, কসবামাজাইলে কামরুজ্জামান, মাছপাড়ায় সাইফুল ইসলাম বুলু, মৌরাটে হাবিবুর রহমান প্রামাণিক, বাবুপাড়ায় ইমরান আলী সরদার, পাট্রায় আবদুর রব। জয়ী দুই জন স্বতন্ত্র প্রার্থী হলেন, সরিষায় আবদুস সোবহান ও যশাইয়ে সিদ্দিকুর রহমান।

ময়মনসিংহ: সদরের অষ্টধারে বিএনপির তারেক হাসান মুক্তা, বোররচরে আওয়ামী লীগের শওকত আলী, ঘাগড়ায় আওয়ামী লীগের শাহজাহান সরদার, কুষ্টিয়ায় আওয়ামী লীগের আমিনুল ইসলাম, পরানগঞ্জে বিএনপির সোলায়মান কবীর। ফুলবাড়িয়ায় জয়ীরা হলেন, আসীমে আওয়ামী লীগের সাইফুজ্জামান, বাক্তায় বিএনপির ফজলুল হক, বালিয়ানে স্বতন্ত্র আশরাফুজ্জামান, ভবানীপুরে স্বতন্ত্র শাহীনুর রহমান মোল্লা, দেওখোলায় স্বতন্ত্র আতাউর রহমান, এনায়েরতপুরে স্বতন্ত্র কবির উদ্দীন তালুকদার, ফুলবাড়িয়ায় আওয়ামী লীগের আবদুল মালেক, কালাদহে স্বতন্ত্র নুরুল ইসলাম মাস্টার, কুশমাইলে স্থগিত, নাওগাওতে আওয়ামী লীগের আবদুর রাজ্জাক, পুটিজানায় আওয়ামী লীগের ময়েজ উদ্দীন তরফদার, রাধাকানাইতে আওয়ামী লীগের গোলাম কিবরিয়া, রাংগামাটিয়াতে আওয়ামী লীগের শহীদুজ্জামান।

চুয়াডাঙ্গা: জেলার আলমডাঙ্গায় ৭টির মধ্যে ৪টিতে আওয়ামী লীগ, ২টিতে আওয়ামী লীগ বিদ্রোহী ও ১টিতে বিএনপি বিদ্রোহী প্রার্থী জয়লাভ করেছে। ভাংবাড়িয়া ইউনিয়নে কাওছার আহমেদ বাবলু (নৌকা), কুমারীতে আবু সাঈদ পিন্টু (নৌকা), হারদীতে নূরুল ইসলাম (নৌকা), খাদিমপুরে আব্দুল হালিম (নৌকা), গাংনীতে আওয়ামী লীগ বিদ্রোহী আবু তাহের আবু, চিত্লায় আওয়ামী লীগ বিদ্রোহী জিল্লুর রহমান ও বারাদীতে বিএনপি বিদ্রোহী মাসুদ পারভেজ।

মেহেরপুর: গাংনীর ৯ টি ইউনিয়নে ৪টি আওয়ামী লীগ ৪টি বিএনপি ও ১টিতে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী নির্বাচিত হয়েছে। কাথুলিতে মিজানুর রহমান রানা (নৌকা), তেঁতুলবাড়িয়ায় জাহাঙ্গীর আলম (ধানের শীষ), কাজীপুরে রাহাতুল্ল্যা (ধানের শীষ), বামুন্দীতে শহিদুল ইসলাম (নৌকা), মটমুড়ায় আওয়ামীলীগের বিদ্রোহী প্রার্থী সোহেল আহমেদ, ষোলটাকায় মনিরুজ্জামান মনি (ধানের শীষ), সাহারবাটিতে গোলাম ফারুক (নৌকা), ধানখোলায় আখেরুজ্জামান (ধানের শীষ), রাইপুরে গোলাম সাকলায়েন সেপু (নৌকা)।

যশোর: ঝিকরগাছা উপজেলার ১১টি ইউনিয়নের মধ্যে ৭টিতে আওয়ামী লীগ, ২টিতে বিএনপি ও ২টিতে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী চেয়ারম্যান পদে নির্বাচিত হয়েছেন। শনিবার ভোটগ্রহণ শেষে গণনার পর এদের বেসরকারিভাবে নির্বাচিত ঘোষণা করা হয়।

আওয়ামী লীগের বিজয়ীরা হলেন-বাঁকড়া ইউনিয়নে নেছার উদ্দিন, হাজিরবাগে আতাউর রহমান, নির্বাসখোলায় নজরুল ইসলাম, নাভারণে শাহজাহান আলী, মাগুরায় আব্দুর রাজ্জাক, ঝিকরগাছায় আমির হোসেন ও পানিসারায় নওশের আলী। আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী বিজয়ীরা হলেন- শিমুলিয়ায় শফিউদ্দিন ও গঙ্গানন্দপুরে বদরউদ্দিন বেল্টু। বিএনপি থেকে বিজয়ী হয়েছেন গদখালি ইউনিয়নে মিজানুর রহমান ও শংকরপুরে মোজাম্মেল হক।

কুষ্টিয়া: ২২ ইউনিয়নের ১৩টিতে আওয়ামী লীগ, ৮টিতে স্বতন্ত্র ও ১টিতে বিএনপি প্রার্থী বিজয়ী। কুষ্টিয়া সদর উপজেলার নির্বাচিত চেয়ারম্যানরা হচ্ছেন- আব্দালপুর ইউনিয়নে আলী হায়দার (স্বতন্ত্র), আইলচারা ইউনিয়নে সিদ্দিকুর রহমান (স্বতন্ত্র), আলামপুর ইউনিয়নে শেখ সিরাজ উদ্দিন (স্বতন্ত্র), গোস্বামী দুর্গাপুর ইউনিয়নে দবির উদ্দিন (নৌকা), হরিনারায়ন পুর ইউনিয়নে মহিউদ্দিন (নৌকা), পাটিকাবাড়ি ইউনিয়নে সফর উদ্দিন (নৌকা), মনোহরদিয়া ইউনিয়নে জহুরুল ইসলাম জহির (নৌকা), বটতৈল ইউনিয়নে আব্দুল মোমেন মন্ডল (নৌকা), হাটশহরিপুর ইউনিয়নে শম্পা মাহমুদ (নৌকা), ঝাউদিয়া ইউনিয়নে কেরামত আলী (স্বতন্ত্র) ও উজানগ্রাম ইউনিয়নে সাবু বিন ইসলাম (নৌকা)।

কুমারখালী উপজেলার নির্বাচিত চেয়ারম্যানরা হচ্ছেন-চরসাদিপুর ইউনিয়নে তোফাজ্জল হোসেন (নৌকা), বাগুলাট ইউনিয়নে আলাউদ্দিন খান (স্বতন্ত্র), চাঁদপুর ইউনিয়নে রাশিদুজ্জামান (স্বতন্ত্র), চাপড়া ইউনিয়নে মনির হাসান রিন্টু (নৌকা), যদুবয়রা ইউনিয়নে শরিফুল ইসলাম (নৌকা), জগন্নাথপুর ইউনিয়নে ফারুক আহম্মেদ খান (নৌকা), কয়া ইউনিয়নে জিয়াউল হক স্বপন (স্বতন্ত্র), নন্দলালপুর ইউনিয়নে নওশের আলী বিশ্বাস (নৌকা), পান্টি ইউনিয়নে হাফিজ উদ্দিন (বিএনপি), সদকী ইউনিয়নে আব্দুল মজিদ (স্বতন্ত্র) ও শিলাইদহ ইউনিয়নে সালাউদ্দিন খান তারেক (নৌকা)।

ঝিনাইদহ: সদর উপজেলায় ৮টি ইউনিয়নের সব কটিতে আওয়ামী লীগ প্রার্থীরা চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন। তারা হলেন, কালীচরনপুর ইউনিয়নে কৃষ্ণ পদ দত্ত. পোড়াহাটি ইউনিয়নে শহীদুল ইসলাম হিরণ, ঘোড়শাল ইউনিয়নে মাসুদ পারভেজ লিল্টন, নলডাঙ্গা ইউনিয়নে কবির হোসেন, পদ্মকর ইউনিয়নে নিজামুল গনি, হরিশংকরপুর ইউনিয়নে আব্দুল্লাহ আল মাসুম, দোগাছি ইউনিয়নে মো. ইসহাক আলি জোয়ার্দ্দার ও ফুরসুন্দি ইউনিয়নে আব্দুল মালেক মিনা।

হরিণাকন্ডু উপজেলায় ৭টি ইউনিয়নে ৩টিতে আওয়ামী লীগ প্রার্থীরা চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন। ৪টিতে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থীরা চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন। আওয়ামী লীগের নির্বাচিতরা হচ্ছেন- কাপাসহাটিয়া ইউনিয়নে মশিউর রহমান জোয়ার্দ্দার, তাহেরহুদা ইউনিয়নে মঞ্জুরুল আলম মনজেল ও ভায়না ইউনিয়নে মো. সমির উদ্দিন। আওয়ামী লীগ বিদ্রোহী নির্বাচিতরা হলেন-ফলসী ইউনিয়নে মো. ফজলুর রহমান, দৌলতপুর ইউনিয়নে মোহম্মদ আলি, জোড়াদহ ইউনিয়নে মো.নাজমুল হাসান পলাশ ও রঘুনাথপুর ইউনিয়নে রাকিবুল হাসান।

নড়াইল: আওয়ামী লীগ ৪টি, বিএনপি ১টি এবং স্বতন্ত্র ৬টি। নড়াইল সদর উপজেলার শিঙ্গাশোলপুরে উজ্জল শেখ (স্বতন্ত্র), বাশগ্রাম সিরাজুল ইসলাম (নৌকা), ভদ্রবিলায় শাহীদুর রহমান শহীদ (স্বতন্ত্র), শেখহাটিতে বুলবুল আহমেদ (স্বতন্ত্র), কলোড়ায় আব্বাস উদ্দীন সরদার (স্বতন্ত্র)। কালিয়া উপজেলার বাঐসোনায় শাহ মো. ফোরকান মোল্লা (নৌকা), জয়নগরে আলাউদ্দীন চৌধুরী (নৌকা), কলাবাড়িয়ায় বিনাপ্রতিদ্বন্দ্বীতায় নির্বাচিত হয়েছে, খাশিয়ালে রাসেল খান সুইট (স্বতন্ত্র), মাউলীতে এসকে সাজ্জাদ হোসেন (বিএনপি), পহরডাঙ্গায় মোল্লা হোসেন (স্বতন্ত্র)।

মাগুরা: জেলার মহম্মদপুর উপজেলার-বাবুখালীতে সাজ্জাদুর রহমান (নৌকা), বালিদিয়ায় পান্নু মিয়া (স্বতন্ত্র), বিনোদপুরে মিজানুর রহমান (নৌকা), দিঘায় হিরো মিয়া (নৌকা), নহাটায় আলী মিয়া (নৌকা), পলাশবাড়ীয়ায় রবিউল ইসলাম (স্বতন্ত্র) ও রাজাপুরে মিজানুর রহমান (নৌকা) ইউনিয়ন। শালিখা উপজেলার-আড়পাড়ায় আরজ আলী বিশ্বাস (স্বতন্ত্র), বুনাগাতীতে বখতিয়ার উদ্দিন (নৌকা), ধনেশ্বরগাতিতে বিমলন্দু শিকদার (নৌকা), গংগারামপুর (স্থগিত), শালিখায় আমজদ আলী (নৌকা), শতখালীতে আনোয়ার হোসেন (নৌকা), তালখড়িতে সিরাজউদ্দিন মন্ডল (নৌকা) ইউনিয়ন।

জয়পুরহাট: জেলার আক্কেলপুর ও ক্ষেতলাল উপজেলার ৭ ইউনিয়নের মধ্যে আওয়ামী লীগ ৬ ও বিএনপি ১টিতে চেয়ারম্যান পদে জয়লাভ করেছে। আক্কেলপুর উপজেলার ৫ ইউনিয়নের মধ্যে ৪টিতে আওয়ামী লীগ প্রার্থীরা জয়লাভ করেন। এরা হচ্ছেন রুকিন্দিপুর ইউনিয়নে আহসান হাবিব, গোপিনাথপুরে আবু সাঈদ জোয়ারদার, সোনামূখীতে ডি এম রাহেল ঈমাম, তিলকপুর ইউনিয়নে সেলিম মাহবুব সজল। রায়কালী ইউনিয়নে বিএনপির প্রার্থী শাহীনুর রহমান বে-সরকারি ভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। ক্ষেতলাল উপজেলার দুটি ইউনিয়নেই আওয়ামীলীগের প্রার্থী জয়লাভ করেছে। এরা হচ্ছেন আলমপুর ইউনিয়নে আনোয়ারুজ্জামান তালুকদার নাদিম ও মামুদপুর ইউনিয়নে মশিউর রহমান শামীম।

নাটোর: জেলার চতুর্থ ধাপে নাটোরের নলডাঙ্গা উপজেলার পাঁচটি ইউনিয়নের বেসকারী ফলাফলে সবক’টিতেই আওয়ামী লীগের প্রার্থীরা বিজয়ী হয়েছেন। উপজেলার ব্রহ্মপুর ইউনিয়নে মোঃ হাফিজুর রহমান, মাধনগরে মোঃ আমজাদ হোসেন দেওয়ান, খাজুরায় খলিলুর রহমান মৃধা, পিপরুলে মোঃ কলিম উদ্দিন, বিপ্রবেলঘড়িয়ায় জালাল হোসেন কবিরাজ বিজয়ী হয়েছেন।

নওগাঁ: জেলার পোরশায় ৬ টিতেই আওয়ামালীগ বিজয়ী হয়েছে। নিতপুরে আবুল কালাম শাহ্, তেঁতুলিয়ায় তাইজুল ইসলাম শাহ্, ছাওড়ে ফখরদ্দিন আলী আহাম্মেদ, গাঙ্গুরিয়ায় আবু বক্কার সিদ্দিক, ঘাটনগরে বজলুর রহমান ও মশিদপুরে শাহাদত্ হোসেন শাহ্।

নওগাঁর সাপাহারে তিনটিতে আওয়ামী লীগ, দুটিতে স্বতস্ত্র ও একটিতে বিএনপি জয়ী হয়েছে। সাপাহার সদরে আওয়ামী লীগ আকবর আলী, আইহাইতে আওয়ামী লীগ হামিদুর রহমান, তিলনাতে আওয়ামী লীগ মোসলেম উদ্দীন, পাতাড়ীতে স্বতন্ত্র মুকুল মিঞা, শিরন্টিতে স্বতন্ত্র মাও আব্দুল বাকী, ও গোয়ালাতে বিএনপি’র মোকলেছুর রহমান মুকুল।

বগুড়া: জেলার শেরপুরের ১০ ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে আ.লীগ ৬ বিএনপি ১ স্বতন্ত্র ৩ জন চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছে। চতুর্থধাপে অনুষ্ঠিত ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে (ইউপি) বগুড়ার শেরপুর উপজেলার ১০টি ইউনিয়নের মধ্যে ৬টিতে চেয়ারম্যান পদে আওয়ামী লীগ দলীয় প্রার্থীরা বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। এছাড়া বাকি ৪টি ইউনিয়নের মধ্যে ১টিতে বিএনপি ও ৩টিতে স্বতন্ত্র প্রার্থী চেয়ারম্যান পদে নির্বাচিত হয়েছেন।

আওয়ামীলীগের বিজয়ী প্রার্থীরা হলেন উপজেলার ভবানীপুর ইউনিয়নে এসএম আবুল কালাম আজাদ, সীমাবাড়ী ইউনিয়নে গৌরদাস রায় চৌধুরী, সুঘাট ইউনিয়নে আবু সাঈদ, বিশালপুর ইউনিয়নে সুবোধ চন্দ্র, মির্জাপুর ইউনিয়নে মোহাম্মদ আলী, শাহবন্দেগী ইউনিয়নে আল আমিন মন্ডল। বিএনপির বিজয়ী হলেন কুসুম্বী ইউনিয়নে শাহ আলম পান্না। এছাড়া স্বতন্ত্র বিজয়ীরা হলেন খামারকান্দি ইউনিয়নে আব্দুল ওহাব, গাড়ীদহ ইউনিয়নে দবির উদ্দিন ও খানপুর ইউনিয়নে শফিকুল ইসলাম রানজু।

বগুড়ার নন্দীগ্রাম উপজেলার-ভাটগ্রামে আবুল কালাম আজাদ (স্বতন্ত্র), বুড়ইলে নূর মোহাম্মদ (স্বতন্ত্র), নন্দীগ্রামে প্রভাষক আব্দুল বারী বারেক (বিএনপি), থালতামাজগ্রামে আব্দুল মতিন (স্বতন্ত্র) ও ভাটরায় মোর্শেদুল বারী মোর্শেদ (নৌকা)।

পাবনা: জেলার সুজানগর ও আটঘরিয়া উপজেলায় ১৫টি ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে সবগুলোতেই আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থীরা বে-সরকারিভাবে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছে। সুজানগর উপজেলার ১০ ইউনিয়নে বেসরকারিভাবে যারা নির্বাচিত হয়েছেন তারা হলেন-ভায়না ইউনিয়নে আমিন উদ্দিন, সাতবাড়ীয়া ইউনিয়নে শামসুল ইসলাম, মানিকহাট ইউনিয়নে আমিনুল ইসলাম, হাটখালী ইউনিয়নে হাবিবুর রহমান, নাজিরগঞ্জ ইউনিয়নে মশিউর রহমান খান, সাগরকান্দি ইউনিয়নে শাহীন চৌধুরী, রানীনগর ইউনিয়নে তৌফিকুল আলম পিযুষ, আহাম্মদপুর ইউনিয়নে কামাল হোসেন, দুলাই ইউনিয়নে সিরাজুল ইসলাম শাজাহান, তাঁতিবন্দ ইউনিয়নে আব্দুল মতিন মৃধা। আটঘরিয়া উপজেলার ৫টি ইউনিয়নে বে-সরকারিভাবে যারা নির্বাচিত হয়েছেন তারা হলেন, একদন্ত ইউনিয়নে ইসমাইল হোসেন সরদার, দেবোত্তর ইউনিয়নে মুহাইমিন হোসেন চঞ্চল, চাঁদভা ইউনিয়নে কামাল হোসেন, মাঝপাড়া ইউনিয়নে আব্দুল গফুর মিয়া ও লক্ষীপুর ইউনিয়নে শেখ আনোয়ার।

চাঁপাইনবাবগঞ্জ: জেলার শিবগঞ্জ উপজেলার ১৪টি ইউনিয়নের মধ্যে চেয়ারম্যান পদে আওয়ামী লীগ প্রার্থী মির্জা শাহাদাত্ হোসেন খুররম, ধাইনগর থেকে আকম তাবারিয়া চৌধুরী বিজয়ী হয়েছে। এছাড়া বিএনপির প্রার্থীদের মধ্যে জয়ী হয়েছে নয়ালাভাঙ্গা থেকে আশরাফুল হক, মোবারকপুর থেকে তৌহিদুর রহমান, শ্যামপুর থেকে খাইরুল ইসলাম, দাইপুকুরিয়ায় আতিকুল ইসলাম জুয়েল, ঘোড়াপাখিয়ায় ইসমাইল হোসেন। আর স্বতন্ত্র প্রার্থী বিজয়ী হয়েছে ছাত্রাজিতপুরে শামসুল হক , বিনোদপুরে এনামুল হক, দুর্লভপুরে আব্দুর রাজিব রাজু, পাঁকায় মজিবুর রহমান, উজিরপুরে ফয়েজ উদ্দিন, চককির্তীতে খাইরুল ইসলাম, সাহবাজপুরে তোজাম্মেল হক।

ভোলাহাট উপজেলার ভোলাহাট ইউনিয়নে বিজয়ী স্বতন্ত্র প্রার্থী ইয়াজদানী জোয়াজ এবং জামবাড়িয়া ইউনিয়নে মোসফিকুর রহমান। বিএনপি প্রার্থী গোহালবাড়ি ইউনিয়নে আব্দুল কাদের এবং দলদলি ইউনিয়নে মাজহারুল ইসলাম পুতুল বিজয়ী।

রংপুর: মিঠাপুকুর উপজেলার-বালুয়ামাশিমপুরে মো. ময়নুল হক (নৌকা), বড়বালায় মো. শাহেদ মিয়া সরকার (নৌকা), বালারহাটে মো. আব্দুল কুদ্দুস (নৌকা), ভাংনীতে মো. কামরুল হাসান (নৌকা), চ্যাংমারীতে মো. রেজাউল করিম (নৌকা), গোপালপুরে মো. আমিরুল ইসলাম (নৌকা), খোরাগাছে মো. আসাদুজ্জামান (নৌকা), মিলনপুরে মো. আব্দুল হালিম চৌধুরী (নৌকা), ময়েনপুরে মো. মাহবুবুল হক (নৌকা), রানীপুকুর ইউনিয়নে মো. শফিকুল ইসলাম (নৌকা)। পীরগাছা উপজেলার-অন্নদানগরে মো. আমিরুল ইসলাম (নৌকা), ছাওলায় শাহ মো. আব্দুল হাকিম (নৌকা), কৈকুড়িতে মো. শফিকুল ইসলাম (নৌকা), কান্দিতে নজরুল ইসলাম খান (নৌকা), পারুলে আবুল কালাম আজাদ খান (নৌকা), তাম্বলপুরে রওশন জমির সরদার (নৌকা), ইটাকুমারীতে মো. আব্দুল কাদের প্রধান (লাঙ্গল), পীরগাছায় মোস্তাফিজুর রহমান (বিএনপি)। কাউনিয়া উপজেলার-হারাগাছায় মো. রকিবুল হাসান (বিএনপি), কাউনিয়াবালাপাড়ায় মো. আনসার আলী (নৌকা), কুর্শায় মোহাম্মাদ হোসেন সরকার (নৌকা), শহীদবাগে মো. আব্দুল হান্নান (নৌকা), টেপামধুপুরে মো. শফিকুল ইসলাম (নৌকা), সারাইতে মো. আশরাফুল ইসলাম (নৌকা)।

কুড়িগ্রাম: ফুলবাড়ী উপজেলার- বড়ভিটায় খয়বার আলী (আওয়ামী লীগ বিদ্রোহী), নাওডাঙ্গায় মোসাব্বের আলী মুসা (ধানের শীষ), শিমুলবাড়ীতে এজাহার আলী (নৌকা)। কুড়িগ্রাম সদর উপজেলার- বেলগাছায় মাহবুবুর রহমান (বিএনপি), ভোগডাংগায় সাইদুর রহমান (বিএনপি), ঘোগাদহে শাহ আলম (নৌকা), হলোখানায় ওমর ফারুক (বিএনপি), যাত্রাপুরে আইয়ুব আলী (বিএনপি), কাঁঠালবাড়ীতে আমান উদ্দিন মঞ্জু (নৌকা), মোগলবাসায় নুরজামাল বাবলু (নৌকা), পাঁচগাছিতে দেলওয়ার হোসেন (বিএনপি)। রাজারহাট উপজেলার – বিদ্যানন্দে তাইজুল ইসলাম (নৌকা), উমর মজিদে মোহাম্মদ আলী (নৌকা), ছিনাইয়ে নুরুজ্জামান বুলু (আওয়ামী লীগ বিদ্রোহী), ঘড়িয়ালডাংগায় রবীন্দ্র নাথ কর্মকার (নৌকা), নাজিমখানে আব্দুল মালেক নয়া পাটোয়ারী (নৌকা), রাজারহাটে এনামুল হক (নৌকা), চাকিরপশার ইউনিয়নে জাহিদ সোহরাওয়াদী বাপ্পি (নৌকা)।

গাইবান্ধা: গাইবান্ধা সদর উপজেলার- বাদিয়াখালীতে সাফায়েত উল হক (স্বতন্ত্র), বল্লমঝাড়ে জাহিদুল ইসলাম ঝণ্টু (জাপা), বোয়ালিতে এএম মাজেদ উদ্দীন খান (জাপা), কুপতলায় আব্দুর রাজ্জাক (নৌকা), রামচন্দ্রপুরে রফিকুল ইসলাম (বিএনপি), সাহাপাড়ায় মাহাবুবুর রহমান টুলু (স্বতন্ত্র)। সাদুল্লাপুর উপজেলার- ভাতগ্রামে এটিএম রেজানুর ইসলাম (স্বতন্ত্র), বনগ্রামে মো. শাহীন মিয়া (জাপা), রসুলপুরে রবিউল করিম দুলা (স্বতন্ত্র)।

ঠাকুরগাঁও: বালিয়াডাঙ্গী উপজেলার- আমজানখোরে আখালু টঙ্গা (নৌকা), বড়বাড়ীতে আক্রাম আলী (নৌকা), বড়পলাশবাড়ীতে আমিরুল ইসলাম (নৌকা), ভানোরে আব্দুল ওহাব (নৌকা), চাড়োলে দীলিপ কুমার (নৌকা), ধনতলায় সমর কুমার চ্যার্টাজী (নৌকা), দুওসওয়ে আব্দুল সালাম (নৌকা), পাড়িয়া ইউনিয়ন (স্থগিত)। ঠাকুরগাঁও সদর উপজেলার-আকচায় সুব্রত কুমার বর্মন (নৌকা), আখানগরে নূরুল ইসলাম (স্বতন্ত্র), বড়গাঁওয়ে প্রবাদ কুমার সিং (বিএনপি), চিলারংয়ে আইয়ুব আলী (স্বতন্ত্র), জামালপুরে নজরুল ইসলাম (নৌকা), মোহাম্মদপুরে মো. সোহাদ (নৌকা), রহিমনপুরের আব্দুল হান্নান হান্নু (বিএনপি), রায়পুরে নূরুল ইসলাম (নৌকা), রাজাগাঁওয়ে মোশারুল ইসলাম সরকার (নৌকা), রুহিয়ায় মমিনুল হক বাবু (নৌকা), রুহিয়া পশ্চিমে অনিল কুমার সেন (নৌকা), ঢোলার হাট ইউনিয়নে সীমান্ত কুমার বর্মন (নৌকা)।

দিনাজপুর: চিরিরবন্দর উপজেলার-আব্দুলপুরে মাইনউদ্দিন শাহ (বিএনপি), গোয়ালডিহিতে তারিকুল ইসলাম তারিক (নৌকা), অমরপুরে হেলাল সরকার (নৌকা), আউলিয়াপুকুরে হাসিবুল হাসান বাবু (নৌকা), ভিয়াইলে নরেন্দ্র নাথ রায় (নৌকা), ফতেজংপুরে লুনার (নৌকা), ইউসুপপুরে আবু হায়দার (নৌকা), নশরতপুরে নূর ইসলাম (নৌকা), পুনাটিতে নূর এ কামাল (নৌকা), সাইতারায় মোকারাম হোসেন (বিএনপি), সাতনালায় অধ্যক্ষ ফজলুর রহমান (বিএনপির বিদ্রোহী) ও তেতুলিয়া ইউনিয়নে সুনীল কুমার সাহা (নৌকা)। পার্বতীপুর উপজেলার-বেলাইচন্ডিতে এআইএম হাসিবুর রশিদ রোমান (বিএনপি), চান্ডিপুরে এমদাদুল হক (আওয়ামী লীগ বিদ্রোহী), হাবড়ায় আনিছুর রহমান (নৌকা), হামিদপুরে সাদেকুল ইসলাম (বিএনপি), হরিরামপুরে মাসুদুর রহমান (নৌকা), মনমথপুরে আসগার আলী (আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী), মোমিনপুরে ওহাব মণ্ডল (নৌকা), মোস্তফাপুরে সাবেনুর আলম (নৌকা), পলাশবাড়ী (স্থগিত), রামপুর (স্থগিত) ইউনিয়ন।

নীলফামারী: ডোমার উপজেলার- বামুনি য়ায় ওয়াহেদুজ্জামান বুলেট (বিএনপি বিদ্রোহী), ভোগডাবুড়িতে একরামুল হক (আওয়ামী লীগ বিদ্রোহী), বোড়াগাড়ীতে তোফায়েল আহমেদ (নৌকা), ডোমারে মোসাব্বের হোসেন মানু (বিএনপি বিদ্রোহী), গোমনাতীতে আব্দুল হামিদ (নৌকা), হরিণচড়ায় আজিজুল ইসলাম (স্বতন্ত্র), জোড়াবাড়ীতে আবুল হাসান (নৌকা), কেতকীবাড়ীতে জহিরুল হক বিপু (স্বতন্ত্র), পাংগামটুকপুরে আব্দুল মজিদ (বিএনপি বিদ্রোহী), সোনারায় আবুল কালাম আজাদ (আওয়ামী লীগ বিদ্রোহ)। কিশোরগঞ্জ উপজেলার-বাহাগিলিতে মো. আতাউর রহমান (নৌকা), বড়ভিটায় মো. ফজলার রহমান (স্বতন্ত্র), চাঁদখানায় মো. নাজিম উদ্দিন আলম (নৌকা), গাড়াগ্রামে মো. মোসাদ্দেক হোসেন (স্বতন্ত্র), কিশোরগঞ্জে মো. আনিছুর রহমান (নৌকা), মাগুড়ায় মো. মাহমুদুল হাসান শিহাব (স্বতন্ত্র), নিতাইয়ে মো. ফারুকুজ্জামান (নৌকা), চাঁদখানায় নাফিজা রহমান (জাপা),পুটিমারীতে মো. আবু সায়েদ (লাঙ্গল), রনচন্ডি ইউনিয়নে মো. মোখলেচুর রহমান (নৌকা)।

পঞ্চগড়: আটোয়ারী উপজেলার- আলোয়াখোলায় প্রদীপ কুমার রায় (নৌকা), ধামোরে কাজী নজরুল ইসলাম (বিএনপি), মির্জাপুরে ওমর আলী (নৌকা), রাধানগরে আবু জাহেদ (নৌকা), তোড়িয়ায় হাসান হাবিব আল আজাদ (স্বতন্ত্র)।

লালমনিরহাট: আদীতমারী উপজেলার-ভাদাই ইউপিতে রোকনুজ্জামান রোকন (স্বতন্ত্র), ভেলাবাড়ীতে মোহাম্মদ আলী (আওয়ামী লীগ), দুর্গাপুরে খালেকুজ্জামান প্রামাণিক (বিএনপি), কমলাবাড়ীতে আলাউদ্দিন আলাল (ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ), মহিষখোচায় মোসাদ্দেক হোসেন চৌধুরী (আওয়ামী লীগ), পলাশীতে শওকত আলী (আওয়ামী লীগ), সাপ্টিবাড়ীতে রফিকুল আলম (আওয়ামী লীগ), সারপুকুর ইউনিয়নে আজিজুল ইসলাম প্রধান (নৌকা)। লালমনিরহাট সদর উপজেলার-বড়বাড়ীতে ইয়াছিন আলী (বিএনপি), গোকুন্ডায় গোলাম মোস্তফা (নৌকা), হারাটিতে রফিকুল ইসলাম (স্বতন্ত্র), খুনিয়াগাছায় আমিরুল ইসলাম (বিএনপি), মোগলহাটে হাবিবুর রহমান (নৌকা), মহেন্দ্রনগরে মশিউর রহমান (লাঙ্গল), পঞ্চগ্রামে দেলোয়ার হোসেন (বিএনপি), রাজপুর ইউনিয়নে মোফাজ্জল হোসেন (নৌকা)।

সিলেট: দক্ষিণ সুরমা উপজেলার-বরইকান্দিতে হাবিব হোসেন (বিএনপি), কুচাইতে আবুল কালাম (বিএনপি), সিলামে একরামুল হোসেন (নৌকা), লালাবাজারে পীর মো. ফজলুল হক (স্বতন্ত্র), জালালপুরে মাওলানা সোলাইমান হোসেন (স্বতন্ত্র), মোগলাবাজারে ফখরুল ইসলাম সায়েস্তা (নৌকা), দাউদপুরে এইচএম খলিল (বিএনপি) ইউনিয়ন। গোলাপগঞ্জ উপজেলার-বাঘায় আব্দুল মুকিত (স্বতন্ত্র), গোলাপগঞ্জে আশফাক আহমেদ চৌধুরী (বিএনপি), ফুলবাড়ীতে মাহাবুবুল আলম ফয়সল (বিএনপি), লক্ষীপাশায় কবীর আহমেদ (আওয়ামী লীগ বিদ্রোহী), বুধবারীবাজারে কামাল উদ্দিন (আওয়ামী লীগ বিদ্রোহী), ঢাকা দক্ষিণে আব্দুর রহিম (স্বতন্ত্র), লক্ষণাবন্দে নাসিরুল্লাহ হক শাহীন (বিএনপি), ভাদেশ্বরে জিলাল উদ্দিন (বিএনপি), পশ্চিম আমুড়ায় মঈনুদ্দিন (নৌকা), উত্তর বাদেপাশায় মোস্তাক আহমেদ (নৌকা), শরিফগঞ্জ ইউনিয়নে এমএ মুমিত হিরা (নৌকা)। বিশ্বনাথ উপজেলার-লামাকাজিতে কবির হোসেন (বিএনপি), খাজাঞ্চিতে গিয়াস উদ্দিন (বিএনপি বিদ্রোহী), অলংকারীতে নাজমুল ইসলাম রুহেল (বিএনপি বিদ্রোহী), রামপাশায় অ্যাডভোকেট মো. আলমগীর (নৌকা), দৌলতপুরে মো. আমির আলী (নৌকা), বিশ্বনাথ সদরে মো. ছয়ফুল হক (আওয়ামী লীগ বিদ্রোহী), দেওকলস (স্থগিত)।

মৌলভীবাজার: কুলাউড়া উপজেলার-ভাটেরায় সৈয়দ একেএম নজরুল ইসলাম (নৌকা), হাজীপুরে মো. আব্দুল বাছিত বাচ্চু (স্বতন্ত্র), কর্মধায় মো. আতিকুর রহমান (নৌকা), পৃথিমপাশায় নওয়াব আলী বাখর খান (স্বতন্ত্র), শরীফপুরে জুনাব আলী (বিএনপি), টিলাগাঁওয়ে আব্দুল মালিক (স্বতন্ত্র)। রাজনগর উপজেলার- ফতেপুরে নকুল চন্দ্র দাশ (নৌকা), কামারচাকে মো. নজমুল হক সেলিম (নৌকা), মনসুরনগরে মিলন বখত (নৌকা), মুন্সিবাজারে ছালেক মিয়া (নৌকা), পাঁচগাঁওয়ে শামছুন নূর আহমদ আজাদ (স্বতন্ত্র), রাজনগরে দেওয়ান খয়রুল মজিদ সালেক (স্বতন্ত্র), টেংরায় মো. টিপু খান (স্বতন্ত্র), উত্তরভাগে শাহ শহিদুজ্জামান ছালিক (স্বতন্ত্র)।

কক্সবাজার: জেলার চকরিয়ায় পশ্চিম বড় ভেওলায় সিরাজুল ইসলাম চৌধুরী বাবলা (নৌকা), ঢেমুশিয়ায় নুরুল আলম জিকু (বিএনপি), কোণাখালীতে দিদারুল হক সিকদার (নৌকা), বিএমচরে এসএম জাহাংগীর আলম (স্বতন্ত্র), পুর্ববড় ভেওলায় আনোয়ারুল আরিফ দুলাল (বিএনপি), বদরখালীতে খাইরুল বশর (স্বতন্ত্র)।

ব্র্রাহ্মণবাড়িয়া: জেলার আখাউড়ার উত্তরে আবদুল হান্নান ভুইয়া, দক্ষিণে জালাল উদ্দিন, মোগড়ায় মনির হোসেন, মনিঅন্ধে কামাল ভুইয়া ও দরখারে আনিসুল হক এবং বিজয়নগরের পাহাড়পুরে মোঃ আবদুর রশিদ খন্দকার, বিষ্ণুপুরে মোঃ জামালউদ্দিন, সিঙ্গারবিলে মোঃ মনিরুল ইসলাম, পত্তনে মোঃ কামরুজ্জামান রতন, চরইসলামপুরে মোঃ দানা মিয়া ভুইয়া, চম্পকনগরে হামিদুল হক, বুধন্তিতে মোঃ জিতু মিয়া ও চান্দুরায় এ এম শামীউল হক চৌধুরী, ইছাপুরায় আওয়ামীলীগের বিদ্রোহী প্রার্থী জিয়াউল হক বকুল নির্বাচিত হয়েছেন।

কুমিল্লা: জেলার মনোহরগঞ্জের ১১টির মধ্যে ৯টিতে আওয়ামী লীগ প্রার্থীরা জয়ী হয়েছেন। দুটি ইউনিয়নের নির্বাচন স্থগিত রয়েছে। বিজয়ী প্রার্থীরা হলেন, ১ বাইশগাঁওয়ে মোঃ আলমগীর হোসেন, ৩ নং হাসনাবাদে মোঃ কামাল হোসেন, ৪ নং ঝলমে (উঃ) মোঃ ইকবাল হোসেন মজুমদার, ৬ নং মৈশাতুয়ায় মোঃ মোস্তফা কামাল, ৭ নং লক্ষনপুরে মোঃ মহিন উদ্দিন, ৮ নং খিলায় আল-আমিন ভূঁইয়া, ৯ নং উত্তর হাওলায় এম.এ হান্নান হিরণ, ১০ নং নাথেরপেটুয়ায় মোঃ রুহুল আমিন, ১১ নং বিপুলাসারে মোঃ সাইদুর রহমান দুলাল।

কুমিল্লার চান্দিনার ১৩ ইউপির মধ্যে ৯টিতে আওয়ামী লীগ এবং ২টিতে স্বতন্ত্র প্রার্থীরা জয়ী হয়েছেন। ২টির ফল স্থগিত করা হয়েছে। চান্দিনার ১নং সুহিলপুরে ঈমাম হোসেন সরকার (নৌকা), ২নং বাতাঘাসীতে ছিদ্দিকুর রহমান (নৌকা), ৩নং মাধাইয়ায় স্বতন্ত্র প্রার্থী অহিদ উল্লাহ (আনারস), ৫নং কেরনখালে আলহাজ্ব হারুন-অর রশিদ (নৌকা), ৬নং বাড়েরায় খোরশেদ আলম (নৌকা), ৭নং এতবারপুরে একেএম মামুনুর রশিদ আবু (নৌকা), ৮নং বরকইটে আবুল হাসেম (নৌকা), ৯নং মাইজখারে স্বতন্ত্র প্রার্থী শাহ্ সেলিম প্রধান (আনারস), ১০নং গল্লাইয়ে জসিম উদ্দিন (নৌকা), ১১নং দোল্লাই নবাবপুরে সাহাব উদ্দিন (নৌকা), ১২নং বরকরইয়ে সাইফুল ইসলাম শিপন (নৌকা) বিজয়ী হয়েছেন।

কুমিল্লার চৌদ্দগ্রামের ২নং উজিরপুরে জয়নাল আবেদীন খোরশেদ, ৩নং কালিকাপুরে মাহবুব হোসেন মজুমদার, ৫নং শুভপুরে খলিলুর রহমান মজুমদার, ৬নং ঘোলপাশায় কাজী জাফর আহম্মদ, ৮নং মুন্সিরহাটে মাহফুজ আলম, ৯নং কনকাপৈতে জাফর ইকবাল, ১০নং বাতিসায় জাহিদ হোসেন টিপু, ১১নং চিওড়ায় একরামুল হক, ১২নং গুনবতীতে ছৈয়দ আহম্মদ খোকন, ১৩নং জগন্নাথদীঘিতে জানে আলম ভূইয়া, ১৪নং আলকরায় গোলাম ফারুক হেলাল, ১নং কাশিনগরে মোশারেফ হোসেন ও ৪নং শ্রীপুরে শাহ জালাল মজুমদার নির্বাচিত হয়েছেন।

কুমিল্লার ব্রাহ্মণপাড়ার সদরে হাজী জসিম উদ্দিন (স্বতন্ত্র), চান্দলায় মোস্তবা আলী শাহীন (নৌকা), শশীদলে গিয়াস উদ্দিন মাষ্টার (স্বতন্ত্র), সাহেবাবাদে মোস্তফা সারোয়ার খান (নৌকা), মালাপাড়ায় আবুল কালাম আজাদ (নৌকা), দুলালপুরে আনিসুর রহমান ভূইয়া রিপন (ধানের শীষ), শিদলাইতে গিয়াস উদ্দিন মাহমুদ (নৌকা) এবং মাধবপুরে ভোট স্থগিত রাখায় সেখানে ফলাফল ঘোষণা করা হয়নি, তবে নৌকা প্রতীকের প্রার্থী এগিয়ে রয়েছেন।

চাঁদপুর: জেলার শাহরাস্তির সুচীপাড়া উত্তরে মোঃ মোস্তফা কামাল মজুমদার (নৌকা), সুচীপাড়া দক্ষিনে মোঃ আঃ রশিদ (স্বতন্ত্র), চিতোষী পশ্চিমে জোবায়েদ কবির বাহাদুর (বিএনপি), রায়শ্রী দক্ষিনে মোঃ আবু হানিফ (স্বতন্ত্র) বিজয়ী হয়েছেন।

চাঁদপুরের মতলব দক্ষিণে উপজেলার ৬টি ইউনিয়নের মধ্যে ৪টিতে আওয়ামী লীগ প্রার্থীরা জয়লাভ করেছে। এরা হলেন, উপাদী উত্তরে শহীদ উল্যাহ প্রধান, উপাদী দক্ষিণে মোঃ গোলাম মোস্তফা প্রধান, নায়েরগাঁও উত্তরে মিজানুর রহমান সেলিম, নায়েরগাঁও দক্ষিণে আব্দুস সালাম মৃধা (মামুন মৃধা)।

লক্ষ্মীপুর: সদর উপজেলার ৩টি এবং রায়পুর উপজেলার ৫টি ইউপিতে আওয়ামী লীগের প্রার্থীরা বিজয়ী হয়েছেন। এরা হলেন, সদর উপজেলার টুমচরে নুরুল আমিন লোলা, উত্তর হামছাদীতে এমরান হোসেন নান্নু, শাকচরে তাফাজ্জল হোসেন চৌধুরী টিটু এবং রায়পুর উপজেলার দক্ষিণ চর বংশীতে নাছির উদ্দিন, রায়পুরে সুমন চৌধুরী, বামনীতে তোফাজ্জল হোসেন, চরপাতায় খোরশেদ আলম, কেরোয়ায় শাহজাহান কামাল।

ফেনী: সদরের ফরহাদনগরে মোশারফ হোসেন টিপু (নৌকা), ধলিয়ায় মুন্সি খায়রুল ইসলাম (নৌকা), লেমুয়ায় (সদর) মোসারফ হোসেন নাছিম (নৌকা) এবং ছাগলনাইয়ার ৫নং মহামায়ায় গরীব শাহ হোসেন বাদশা চৌধুরী (নৌকা), ৮নং রাধানগরে মোঃ রবিউল হক চৌধুরী মাহবুব (ধানের শীষ), ৯নং শুভপুরে মোঃ আবদুল্লা সেলিম (নৌকা), ১০নং ঘোপালে মোঃ আজিজুল হক মানিক (নৌকা) এবং ৬নং পাঠাননগরে রফিকুল হায়দার চৌধুরী জুয়েল (নৌকা) নির্বাচিত হয়েছেন।

নোয়াখালী: সোনাইমুড়ি উপজেলার ১০টি ইউনিয়নে আওয়ামী লীগ প্রার্থীরা বিজয়ী হয়েছেন। এরা হলেন, ১নং জয়াগে শওকত আকবর পলাশ, ২নং নদনায় হারুন অর রশিদ, ৩নং চাষিরহাটে কামাল উদ্দিন, ৫নং আম্বরনগরে আফসার হোসেন দুলু, ৬নং নাটেশ্বরে কবির হোসেন, ৭নং চটগাঁওয়ে মামুনুর রশিদ মামুন, ৮নং সোনাপুরে আলমগীর হোসেন, ৯নং দেওটিতে নুরুল আমিন শাকিল এবং ১০নং আমিশাপাড়ায় আলমগীর হোসেন ভূইয়া। ৪নং বারগাঁওয়েং বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়েছেন আনিসুর রহমান।

প্রতি মুহুর্তের সর্বশেষ খবর পেতে এখানে ক্লিক করে আমাদের ফেইসবুক পেইজে লাইক দিন

(লেখাটি পড়া হয়েছে 182 বার)


Print
এই পাতার আরও সংবাদ