ইটের গাঁথুনির কাজ করার সময় যে বিষয়গুলি খেয়াল রাখা জরুরী

Print
Image may contain: food

ইটের গাঁথুনী নিয়ে কিছু কথা !!
—————————————-
যে বিষয়গুলি খেয়াল রাখা জরুরী ইটের গাঁথুনির কাজ করার সময় :

> কাজ শুরুর আগে ইটগুলোকে অন্তত: ৬ ঘন্টা পানিতে ভিজিয়ে রাখতে হবে এবং ভালভাবে পরিস্কার করা উচিত। ভেজা ইটে গাঁথুনি ভাল হয় এবং ফাঁটল ধরার সম্ভাবনা কম থাকে। এছাড়া ভাল করে না ভেজালে প্লাস্টারে সমস্যা হতে পারে।
> ইট গাঁথার সময় প্রত্যেকবার সুতা এবং শল দেখেনিতে হবে গাঁথনী সোজা রাখতে হলে।
>গাঁথুনির সময় দেখতে হবে দুটো ইটের মধ্যের ফাঁক যেন ১ সে. মিটার থেকে বেশী না হয় এবং জোড়ার উপর জোড়া যেন অবিরাম না হয়।
> অধিকাংশ ব্যবসায়ীরা বেশী লাভ করার জন্য ইটের আকার আকৃতি ঠিক থাকেনা ফলে ইট ব্যবহার করা ক্ষেত্রে অনেক সময় দেখা যায়। গাঁথনী সোজা হয় না গাঁথনীর একপাশ মেলালে আরেক পাশ মিলে না।
> ইটের আকার ঠিক না থাকা কারনে অনেক বেশী মসলার ব্যবহার করতে হয় গাঁথনীর শল মিলাতে গিয়ে, যায় ফলে সিমেন্ট বালুতে অনেক বেশী টাকা ব্যয় হয় ইটের ক্ষেত্রে টাকা বাঁচাতে গিয়ে। ইটের অনেক অপচয় হয় বেছে বেছে তা ব্যবহার করতে গিয়ে মিস্ত্রিদের সময় বেশী লাগছে, ফলেমিস্ত্রি খরচ বেড়ে যায়।
> সেজন্য প্রথম শ্রেনীর ইট এবং পোর্টল্যান্ড সিমেন্ট ব্যবহার করা উচিত।
> FM 1.5 গ্রেডেড বালি ব্যবহার করা উচিত।
> মিশ্রনে মসলার অনুপাত হবে ১:৫।
> কোন নির্দীষ্ট উদ্দ্যেশ্য না থাকলে ইংলিশ বন্ডে গাঁথুনী করা ভাল ।
> আধলার ব্যবহার এড়িয়ে চলা ভাল যদি প্রয়োজন না পড়ে।
> জোড়াগুলো ইটের সিলমোহর উপরে রেখে মসলাদ্বারা পূর্ণ করা উচিত।
> জোড়ের পুরুত্ব ১৩ মিমি এর বেশী যেন না যায়।
> জোড়াগুলোর মধ্যে যেন কোন ফাঁক না থাকে,
প্রয়োজনে মশলা দ্বারা পূর্ণ করে সমতল করা অত্যাবশ্যকীয় ।
> ইটকে আস্তে আস্তে সম্পূর্ণ বেডের উপর মশলা বিছিয়ে চাপ দিয়ে বসানো উচিত ফলে মশলার সাথে ভাল ভাবে লেগে যায়।
> আনুভূমিক হবে সমস্ত কোর্সগুলো এবং সঠিকভাবে খাড়া হবে খাড়া জোড়াগুলো।
> সর্বোচ্চ ১.৫ মিটারের বেশী গাঁথুনী করা উচিত নয় একদিনে।
> কিউরিং ৭ দিন পর্যন্ত করা ভালো।

প্রতি মুহুর্তের সর্বশেষ খবর পেতে এখানে ক্লিক করে আমাদের ফেইসবুক পেইজে লাইক দিন

(লেখাটি পড়া হয়েছে 686 বার)


Print
এই পাতার আরও সংবাদ