এই দেশে কোনো যুদ্ধাপরাধী ও পাকিস্তানের প্রেতাত্মাদের দেখতে চাই না: হানিফ

Print

পাকিস্তান সব সময়ই নির্লজ্জ মিথ্যাচারে লিপ্ত বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব উল আলম হানিফ। তিনি বলেছেন, ‘জামায়াতের আমির মতিউর নিজামীর ফাঁসি হওয়ার পরও নেতিবাচক প্রতিক্রিয়া জানিয়েছে পাকিস্তান। কারণ মুক্তিযুদ্ধের সময় তাদের অপকর্মের সহযোগী ছিল নিজামীদের মতো নরপিশাচ দোসরেরা। এই দেশটি সব সময়ই বাইরের বিষয়ে নাক গলিয়েছে।’

কামরাঙ্গীর চরে আল-হেরা কমিউনিটি সেন্টারে  বৃহস্পতিবার নবগঠিত ঢাকা মহানগর উত্তর ও দক্ষিণ আওয়ামী লীগের সভাপতি-সাধারণ সম্পাদককে দেওয়া এক সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে হানিফ এসব কথা বলেন। কামরাঙ্গীর চর থানা আওয়ামী লীগ এই সংবর্ধনার আয়োজন করে।
মাহবুব উল আলম হানিফ বলেন, ‘পাকিস্তান সব সময়ই নির্লজ্জ মিথ্যাচারে লিপ্ত। কারণ এই ব্যর্থ রাষ্ট্রের জন্মই মিথ্যাচার দিয়ে। তাদের এই ধৃষ্টতার তীব্র ধিক্কার জানাই। ফের যদি তারা এ ধরনের দুঃসাহস দেখায় তবে দেশটির সঙ্গে কূটনৈতিক সম্পর্ক আমরা রাখব কি না, তা বাংলার জনগণ ভেবে দেখবে।’
হানিফ বলেন, ‘পাকিস্তানের যদি এতই দরদ, তবে তাদের দোসর প্রিয় ব্যক্তিদের বাংলাদেশ থেকে নিয়ে গিয়ে তাদের দেশের নাগরিকত্ব দিক। আমরা এই দেশে কোনো যুদ্ধাপরাধী ও পাকিস্তানের প্রেতাত্মাদের দেখতে চাই না।’
সভায় সাবেক মন্ত্রী আব্দুর রাজ্জাক বলেন, ‘কামরাঙ্গীর চরসহ সারা দেশে বর্তমান সরকারের সময় যে পরিমাণ উন্নয়ন হয়েছে তা জনগণ আনন্দের সঙ্গে ভোগ করছে। আওয়ামী লীগের নেতা-কর্মী ও জনগণের মাঝে যে পরিমাণ উচ্ছ্বাস আমি দেখছি, সরকারের ওপর যে আস্থা তাদের তৈরি হয়েছে, তাতে পাকিস্তান ও তাদের দোসরদের সকল চক্রান্ত ব্যর্থ হতে বাধ্য।’
খাদ্যমন্ত্রী ও স্থানীয় সাংসদ কামরুল ইসলাম বলেন, ‘এই এলাকায় কিছু ছিল না। এখন এই এলাকায় সিটি করপোরেশনের তিনটি ওয়ার্ড, বিভিন্ন আর্থসামাজিক উন্নয়ন হয়েছে। এই যে উন্নয়নের ছোঁয়া ও আধুনিকতা, তা বর্তমান সরকারের সফলতা ও অর্জন।’
কামরাঙ্গীর চর আওয়ামী লীগের সহসভাপতি নুরে আলম চৌধুরীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য দেন ঢাকা মহানগর দক্ষিণের সভাপতি আবুল হাসানত, সাধারণ সম্পাদক শাহে আলম মুরাদ প্রমুখ।

প্রতি মুহুর্তের সর্বশেষ খবর পেতে এখানে ক্লিক করে আমাদের ফেইসবুক পেইজে লাইক দিন

(লেখাটি পড়া হয়েছে 24 বার)


Print
এই পাতার আরও সংবাদ