এই শ্রীলঙ্কাকে আমি, সাঙ্গা, মাহেলা মিলেও বাঁচাতে পারবো না

Print

শ্রীলঙ্কার ক্রিকেট কি তবে ক্রান্তিকাল পার করছে? এক মুহূর্ত না ভেবে সবাই এই প্রশ্নের উত্তর দেবেন- ‘হ্যা’। ১৯৯৬ বিশ্বকাপের চ্যাম্পিয়নদের বর্তমান পারফরম্যান্সের দিকে তাকালেই বিষয়টা আঁচ করা যায়। কদিন আগে চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফিতে গ্রুপ পর্ব থেকেই বিদায় নেয় এশিয়ার এক সময়ের পরাশক্তি, সাবেক বিম্ব চ্যাম্পিয়নরা। এরপর ঘরের মাঠে দুর্বল জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে ৩-২ ব্যবধানে ওয়ানডে সিরিজ হারের লজ্জা। লঙ্কানদের অবস্থা কোথায় গিয়ে ঠেকেছে এরপর আর কোনো উদাহরণ খোঁজার প্রয়োজন থাকে না! সেই দেশের সংবাদপত্রই বলে, লঙ্কান ক্রিকেট এখন ডুবে আছে তাদের ইতিহাসের সবচেয়ে আঁধার যুগে।
ধারাবাহিক ব্যর্থতার জেরে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে ওয়ানডে সিরিজ হারার পর তিন ফরম্যাটের অধিনায়কত্বকেই বিদায় বলেছেন অ্যাঞ্জেলো ম্যাথুজ। শ্রীলঙ্কা দলের এই অচলাবস্থায় চেতন-অবচেতন মনেই অনেকের কুমার সাঙ্গাকারা, মাহেলা জয়াবর্ধনে, মুত্তিয়া মুরালিধরন নামগুলো মনে পড়ে যাচ্ছে। সাবেক হয়ে যাওয়া এই গ্রেটরা কি কোনো না কোনো ভূমিকায় পারেন না শ্রীলঙ্কাকে উদ্ধার করতে এগিয়ে আসতে? আগের অবস্থায় ফিরিয়ে নিতে? এমনটা যারা ভাবেন তাদেরকে দুঃসংবাদই দিলেন বিশ্ব ইতিহাসে সবচেয়ে বেশি টেস্ট উইকেট শিকারী মুরালিধরন। বললেন- এখনকার এই শ্রীলঙ্কাকে সাঙ্গা (সাঙ্গাকারা), মাহেলা (জয়াবর্ধনে) এবং তিনি মিলেও চেষ্টা করলে পারবেন না বাঁচাতে। শ্রীলঙ্কা দলের অচলাবস্থা বদলাতে হবে এখনকার খেলোয়াড়দেরই।

সাঙ্গাকারা আন্তর্জাতিক ক্রিকেটকে বিদায় বললেও এখানো বিভিন্ন দেশে ঘরোয়া ক্রিকেট খেলে বেড়াচ্ছেন। মুরালি ও জয়াবর্ধনে নিজেদের জড়িয়ে রেখেছেন কোচিংয়ে সঙ্গে। এই বিষয়টি উল্লেখ করে টেস্টে ৮০০ উইকেটের মালিক মুরালি বলেন, ‘অবসরের পর থেকেই আমি আর শ্রীলঙ্কা ক্রিকেটের সঙ্গে নেই। এটা প্রায় ৫-৬ বছর হয়ে গেল। আমি তাই জানি না কি ঘটছে শ্রীলঙ্কা দলে। পরিস্থিতি ভালোভাবে না জেনে মনে হয় না আমার এ নিয়ে মন্তব্য করা উচিত হবে। তবে অবশ্যই কোনো সমস্যা আছে। দলের পারফরম্যান্স ডুবাচ্ছে এবং এ থেকে তাদের (খেলোয়াড়দের) বেরিয়ে আসা দরকার।’
এরপরই মুরালির মুখে উচ্চারণ অপ্রিয় সেই কথাটার,‘সাঙ্গাকারা, জয়াবর্ধনে অথবা আমার পক্ষেও এটা (শ্রীলঙ্কার ক্রিকেটের বর্তমান অবস্থা) সমাধান করা সম্ভব নয়। কারণ আমরা আমাদের অন্য কাজে ব্যস্ত। সাঙ্গাকারা এখনো ক্রিকেট খেলছে। মাহেলা আমার মতো কোচিংয়ে ব্যস্ত। তাই তাদের সমস্য নিজেদেরই সমাধান করতে হবে।’
জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে ওয়ানডে সিরিজ হারের পর তাদের সঙ্গেই একমাত্র টেস্টের সিরিজ খেলছে শ্রীলঙ্কা। এরপর ভারতীয় ক্রিকেট দল শ্রীলঙ্কা সফর করবে। দুই দল খেলবে ৩টি টেস্ট, ৫টি ওয়ানডে ও একমাত্র টি-টুয়েন্টির সিরিজ। ঘরের মাঠে হলেও সামগ্রিক পারফরম্যান্স বিচারে এই সিরিজে ভারতকেই এগিয়ে রাখছেন মুরালিধরন।
কিংবদন্তি অফস্পিনার মুরালি শ্রীলঙ্কার হয়ে খেলেছেন ১৩৩ টেস্ট, ৩৫০টি ওয়ানডে ও ১২টি টি-টুয়েন্টি। টেস্টে ৮০০ উইকেট নিয়ে নিজেকে রেখেছেন সবার প্রায় ধরা ছোঁয়ার বাইরে। ওয়ানডেতে তার উইকেট ৫৩৪টি, টি-টুয়েন্টিতে ১৩টি।

প্রতি মুহুর্তের সর্বশেষ খবর পেতে এখানে ক্লিক করে আমাদের ফেইসবুক পেইজে লাইক দিন

(লেখাটি পড়া হয়েছে 243 বার)


Print
এই পাতার আরও সংবাদ