এবার কী করবেন ভারতের প্রধান বিচারপতি

Print

সম্প্রতি প্রধান বিচারপতিকে নিয়ে এক নজিরবিহীন ঘটনার সাক্ষী হয়েছে বাংলাদেশ। যার ধারাবাহিকতায় পদত্যাগ করেছেন দেশের ২১তম প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহা।

সেই প্রধান বিচারপতিকে নিয়ে ভিন্ন এক ঘটনা ঘটেছে প্রতিবেশী দেশ ভারতে। দেশটির প্রধান বিচারপতি দীপক মিশ্রের বিরুদ্ধে অস্বচ্ছ কর্মকাণ্ডের অভিযোগ এনে শুক্রবার সংবাদ সম্মেলন করেছেন সুপ্রিম কোর্টেরই জ্যেষ্ঠ চার বিচারপতি।

‘কোন মামলার শুনানি কোন বেঞ্চে হবে, তা ঠিক করার ক্ষেত্রে অন্যায্য সিদ্ধান্ত হচ্ছে। এবং কয়েকজন বাছাই করা বিচারপতির বেঞ্চেই পাঠানো হচ্ছে গুরুত্বপূর্ণ মামল- এমন অভিযোগ এনে দীপক মিশ্রের বিরুদ্ধে সংবাদ সম্মেলন করেন বিচারপতি চেলামেশ্বর, বিচারপতি কুরিয়েন জোসেফ, বিচারপতি রঞ্জন গগৈ এবং বিচারপতি মদন বি লোকুর।

প্রশ্ন হচ্ছে, ভারতের বিচার বিভাগের ইতিহাসে নজিরবিহীন এই ঘটনার পর এখন কি করবেন সে দেশের প্রধান বিচারপতি?

তার বিরুদ্ধে ‘ইম্পিচমেন্টের’ প্রক্রিয়া শুরু হবে কি না-এমন প্রশ্নে যদিও বিচারপতি চেলামেশ্বর বলেছেন, ‘সেটা জাতিকেই ঠিক করতে হবে। আমরা কিছু বলছি না।’

এ বিষয়ে ভারতের আইনজীবী অরুণাভ ঘোষ গণমাধ্যমকে বলছেন, ‘যারা সংবাদ সম্মেলন করেছেন তারা প্রধান বিচারপতি দীপক মিশ্রের প্রশাসনিক ভূমিকার প্রতি অনাস্থা প্রকাশ করেছেন। কিন্তু মনে রাখতে হবে, তারা প্রধান বিচারপতির বিরুদ্ধে ব্যক্তিগত দুর্নীতির কোনো অভিযোগ সরাসরি তোলেননি। অতএব, এক্ষেত্রে ইমপিচমেন্ট প্রক্রিয়া শুরু হওয়ার কোনো সম্ভাবনা এখনই দেখতে পাচ্ছি না।’

‘আর প্রধান বিচারপতিকে অপসারণ করতে হলে লোকসভায় দুই-তৃতীয়াংশ সংখ্যাগরিষ্ঠতার ভিত্তিতে পাস করাতে হয় ইমপিচমেন্ট প্রস্তাব। তারপর রাজ্যসভায় সাধারণ সংখ্যাগরিষ্ঠতার ভিত্তিতে পাস করাতে হয়। রাজ্যসভায় আটকে গেলে, যৌথ অধিবেশন ডেকে ফের দুই-তৃতীয়াংশ সংখ্যাগরিষ্ঠতার ভিত্তিতে প্রস্তাব পাস করাতে হয়।’

তবে চার বিচারপতির সংবাদ সম্মেলনের পর প্রধান বিচারপতি দীপক মিশ্রের কাছ থেকে এখনো কোন প্রতিক্রিয়া আসেনি।

প্রতি মুহুর্তের সর্বশেষ খবর পেতে এখানে ক্লিক করে আমাদের ফেইসবুক পেইজে লাইক দিন

(লেখাটি পড়া হয়েছে 74 বার)


Print
এই পাতার আরও সংবাদ