এ ছবির জন্য কালো দাগ লেগেছে আমার ক্যারিয়ারে : সিমলা

Print

জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার বিজয়ী অভিনেত্রী সিমলা। নামটি শোনা মাত্রই মনে পরে যায় ম্যাডাম ফুলি ছবিতে তার অনবদ্য অভিনয়ের কথা। এর পর কয়েকটা ভালো ছবি উপহার দিলেও নিজেকে ঠিক ধারাবাহিক রাখতে পারেননি এই নায়িকা।
চলতি বছরে তার অভিনীত দুটি ছবি মুক্তি পেতে যাচ্ছে। ছবি দুটি হচ্ছে রুবেল আনুশের ‘নিষিদ্ধ প্রেমের গল্প’ ও রাশিদ পলাশের ‘নাইওর’। যদিও অসম প্রেমের কাহিনী নিয়ে নির্মিত এই ছবির নাম পরিবর্তন করা হয়েছে। ‘নিষিদ্ধ প্রেমের গল্প’ এখন নাম ধারণ করেছে ‘প্রেম কাহন’। ছবিটির গল্প লিখেছেন পরিচালক নিজেই।

এদিকে ‘নিষিদ্ধ প্রেমের গল্প’ ছবিটি নিয়ে গত বছর বেশ বিতর্ক ও সমালোচনায় জড়িয়েছিলেন সিমলা। বিশেষ করে হঠাৎ লাপাত্তা হওয়া, শিডিউল ফাঁসানো, ছবির ডাবিং না করাসহ এ ছবির পরিচালক রুবেল আনুশ সিমলার বিরুদ্ধে একাধিক অভিযোগ করেন।
তবে সিমলা সাফ জানান, আমি প্রথম থেকেই ছবিটি নিয়ে মানসিকভাবে খুবই বিরক্ত। বিশেষ করে পরিচালক ও প্রযোজকের কথা ঠিক না থাকার কারণে এসব সমস্যার সৃষ্টি হয়েছে। আনুশের মধ্যে পরিচালক হওয়ার কোনো যোগ্যতা নেই। ছবিতে কাজ করতে রাজি হয়েছিলাম, এটা আমার সবচেয়ে বড় ভুল।
এ ছবির স্ক্রিপ্ট হাতে না পাওয়ার কারণে আমি ডাবিংও করিনি। স্ক্রিপ্ট ছাড়া ডাবিং হয় নাকি! তারপরও আমি ছবির কাজটা শেষ করে দিয়েছি। তবে আবারও বলছি এ ছবিটি আমার ক্যারিয়ারের সবচেয়ে বড় ভুল। এ ছবির জন্য কালো দাগ লেগেছে আমার ক্যারিয়ারে।
‘ম্যাডাম ফুলি’ খ্যাত এই অভিনেত্রী নিজের জীবনের প্রথম চলচ্চিত্রেই অর্জন করেন জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার। সেটাও ১৯৯৯ সালের কথা। নতুন বছরে ‘ম্যাডাম ফুলি’ ছবির সিক্যুয়ালে কাজ করবেন তিনি। বর্তমানে এ ছবির স্ক্রিপ্টের কাজ চলছে।

প্রতি মুহুর্তের সর্বশেষ খবর পেতে এখানে ক্লিক করে আমাদের ফেইসবুক পেইজে লাইক দিন

(লেখাটি পড়া হয়েছে 72 বার)


Print
এই পাতার আরও সংবাদ