ওয়ানডেতেও আসছে সুপার ওভার

Print

টি-টোয়েন্টির পর এবার ওয়ানডে ক্রিকেটেও সুপার ওভারের কথা বিবেচনা করছে ইন্টারন্যাশনাল ক্রিকেট কাউন্সিল (আইসিসি)। দুবাইতে আইসিসির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তাদের বৈঠকে ক্রিকেট কাঠামোর পরিবর্তনের বিষয়ে যে রূপরেখা প্রণয়ন করা হয়েছে, তাতে ওয়ানডে ক্রিকেটে সুপার ওভারের সুপারিশ করা হয়েছে। আগামী এপ্রিলে আইসিসির সভায় সুপারিশগুলো গৃহীত হলে জুনে অনুষ্ঠিত চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি ও নারী বিশ্বকাপে এ নিয়ম চালু হতে পারে। কোনো প্রতিযোগিতার সেমিফাইনাল বা ফাইনাল টাই হলেই কেবল সুপার ওভারের ম্যাচের ফল নির্ধারণ হবে। পরে সব ধরনের ম্যাচেই এ নিয়ম প্রয়োগ করা হবে।
ক্রিকেট ম্যাচে দুই দলের রান সমান হয়ে গেলে ফল নির্ধারণে দুদলকেই খেলতে হবে এক ওভার। আর এই এক ওভারে বল করার জন্য দুদলকে বেছে নিতে হবে তিন ব্যাটসম্যান ও এক বোলার। দুই উইকেট পড়ে গেলে ব্যাটিং করা দল হবে অলআউট। যারা বেশি রান করবে, ম্যাচ জিতবে তারাই। সুপার ওভারে যদি দুদলের রান সমান হয়, তাহলে যে দল কম উইকেট হারিয়েছে, তারা বিজয়ী হবে। এই হিসেবেও দুদল যদি একই অবস্থানে থাকে, তাহলে ফিরে তাকানো হবে মূল ইনিংসে। সেখানে কারা বেশি ছয় মেরেছে, সেটা দেখা হবে। এতেও দুদলের অবস্থান সমান হলে বেশি চার মারা দল জিতবে।

২০০৮ সালে টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে সর্বপ্রথম সুপার ওভারের প্রবর্তন ঘটে। সেবার নিউজিল্যান্ডকে হারিয়ে সুপার ওভারে ম্যাচ জেতে ওয়েস্ট ইন্ডিজ। ২০১১ সালের ক্রিকেট বিশ্বকাপের নকআউট পর্বে সর্বপ্রথম সুপার ওভার ব্যবহার করা হয়।

প্রতি মুহুর্তের সর্বশেষ খবর পেতে এখানে ক্লিক করে আমাদের ফেইসবুক পেইজে লাইক দিন

(লেখাটি পড়া হয়েছে 103 বার)


Print
এই পাতার আরও সংবাদ