কম্পিউটার ঘন ঘন হ্যাং হলে যা করণীয়

Print

কম্পিউটার ব্যবহার করতে গিয়ে কম্পিউটার একবারও হ্যাং করেনি এমনটা পাওয়া দুষ্কর। আর কম্পিউটার হ্যাং করা মানেই সব কাজ বন্ধ করে অপেক্ষা করো। গুরুত্বপূর্ণ কাজের সময় এই ধরণের সমস্যায় পড়ে যাতে ভোগান্তি না হয় তার কিছু সমাধান।

কম্পিউটার রিস্টার্ট করা খুবই সহজ এবং প্রাথমিক সমাধান। কোনো কারণবশত কম্পিউটার কাজ না করলে পাওয়ার বাটন পাঁচ থেকে ১০ সেকেন্ড চেপে রেখে ছেড়ে দিলে কম্পিউটার রিস্টার্ট হয়ে যাবে। তবে এটি ঘন ঘন করলে কম্পিউটারের ক্ষতি হতে পারে।

পরবর্তীতে কম্পিউটার ঘন ঘন ফ্রিজ বা লক হয়ে যেতে থাকলে কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ কাজ করে রাখুন। কম্পিউটার ঠিকঠাক স্টার্ট হলে গুরুত্বপূর্ণ ফাইলগুলো অন্য কোথাও সরিয়ে ফেলুন। কোনো সমস্যা হলেও গুরুত্বপূর্ণ ফাইল হারাবে না।

কম্পিউটার চালু করার পর বুট অপশন দেখালে start Windows normally সিলেক্ট করতে হবে। এরপর যদি আরও সমস্যা করে তাহলে Safe Mode সিলেক্ট করবেন। এরপরও যদি কম্পিউটার সমস্যা করে তাহলে “Safe Mode with Networking” সিলেক্ট করুন। এরপর কম্পিউটার চালাতে সমস্যা না হলে বুঝবেন সমস্যাটি সফটওয়্যারের। এরপরও কম্পিউটার ফ্রিজ হলে ধরে নিতে হবে এটি হার্ডওয়্যারের সমস্যা।

সফটওয়্যার কিংবা হার্ডওয়্যার দুটি সমস্যার কারণেই কম্পিউটার রিবুট করার পর স্বাভাবিক মোড কিংবা সেফ মোড দুটিতেই ফ্রিজ হয়ে যেতে পারে। এই বিষয়ে লক্ষ্য রাখতে হবে। সফটওয়্যার ট্রাবলশুটিং বা সমস্যা কোথায় যদি তা নির্ণয় করতে না পারেন তাহলে CTRL + SHIFT + ESC বাটন একসাথে চেপে ধরে টাস্ক ম্যানেজার ওপেন করতে হবে। উইন্ডোজ ৮.১ ও ১০-এর ক্ষেত্রে টাস্ক ম্যানেজার থেকে More details-এ যাবেন। এবার কম্পিউটারের সিপিইউ, মেমোরি ও ডিস্ক ক্যাটেগরি চেক করুন। যদি কোনো সফটওয়্যারের গ্রাফ বেশি উপরে থাকলে এবং কম্পিউটারের সমস্যা হলে সফটওয়্যারটি বন্ধ বা আপডেট করে নিন।

কম্পিউটারে চলমান বিভিন্ন হিডেন সফটওয়্যার টাস্ক ম্যানেজারে ভাইরাস থাকতে পারে। এক্ষেত্রে ভাইরাস গার্ড আপডেট করুন এবং কম্পিউটার ভালোভাবে স্ক্যান করে নিন। কম্পিউটার ঠিক থাকলেও ভাইরাস গার্ড সব সময় আপডেটেড রাখুন।

স্টার্ট করার সময় কম্পিউটার ফ্রিজ হয়ে গেলে তা উইন্ডোজের সমস্যা বলে ধরে নেয়া যায়। কম্পিউটার সেফ মোডে ভালোভাবে চললে এবং স্বাভাবিক মোডে সমস্যা করলে অটোরান থেকে অপ্রয়োজনীয় সফটওয়্যার বাদ দিতে হবে। এক্ষেত্রে নতুন করে উইন্ডোজ ইনস্টল করতে পারেন।

অনেক সময় হার্ড ডিস্ক, সিপিইউ, পাওয়ার সাপ্লাই বা এ ধরনের কোনো যন্ত্রের সমস্যায় কম্পিউটার সেফ মোড ও স্বাভাবিক মোডে কোনটিতেই চালু হয় না। এছাড়া কিছু কিছু ক্ষেত্রে মাদারবোর্ডের সমস্যাতেও এমনটা হতে পারে। হার্ডওয়্যারের সমস্যা হচ্ছে কি না তা নির্ণয় করতে নির্দিষ্ট হার্ডওয়্যার পাল্টাতে হয়। এছাড়া এমন কিছু সফটওয়্যার আছে যা হার্ডওয়্যারের সমস্যা নির্ণয় করতে পারে।

প্রতি মুহুর্তের সর্বশেষ খবর পেতে এখানে ক্লিক করে আমাদের ফেইসবুক পেইজে লাইক দিন

(লেখাটি পড়া হয়েছে 99 বার)


Print
এই পাতার আরও সংবাদ