কানাডা, অস্ট্রেলিয়া, নিউজিল্যান্ড, ইউকে, ইউক্রেনের নাগরিকত্ব

Print

কানাডা, অস্ট্রেলিয়া, নিউজিল্যান্ড, ইউকে, ইউক্রেনের নাগরিকত্ব

২০১৬-১৭ সালকে বলা হচ্ছে ইমিগ্রেশনের জন্য সোনালি সময়ের সেরা বছর। সারা পৃথিবী থেকে সর্বাধিক সংখ্যক লোকজন চলতি ও আগামী বছর মাইগ্রেশন করে পৃথিবীর সবচেয়ে উন্নত দেশগুলোতে স্থায়ীভাবে বসবাস করার সুযোগ পাবে।
শিক্ষাগত যোগ্যতা, বয়স, আর্থিক সামর্থ্যের মাপকাঠিতে নির্ধারণ হবে আপনার স্থায়ী হওয়ার সম্ভাবনা।ওয়ার্ল্ডওয়াইড মাইগ্রেশন কনসালট্যান্টস লিমিটেড একটি নিবন্ধিত আইনি প্রতিষ্ঠান। প্রতিষ্ঠানটির  চেয়ারম্যান বাংলাদেশের সুপ্রীম কোর্টের আইনজীবী, আন্তর্জাতিক অভিবাসন ও কম্পানি আইন বিশেষজ্ঞ, সাইথ এশিয়ান ল’ ইয়ার্স ফোরামের বর্তমান সভাপতি এবং ওয়ার্ল্ডওয়াইড মাইগ্রেশন কনসালট্যান্টস লিমিটেডের চেয়ারম্যান ড. শেখ সালাউদ্দিন আহমেদ দীর্ঘদিন ধরে পৃথিবীর বিভিন্ন দেশের নাগরিকদের মাইগ্রেশন সুবিধা দিয়ে আসছে। আপনি আপনার যোগ্যতা অনুযায়ী সঠিক প্রক্রিয়া অনুসরণ করে এবং কিছু পদ্ধতি ও আইন মেনে আবেদন করে পরিবারসহ মাইগ্রেশন করার সুযোগ নিতে পারেন।

আপনার গন্তব্য হতে পারে কানাডা: পৃথিবীর সবচেয়ে সমৃদ্ধশালী দেশগুলোর একটি কানাডা। কানাডায় যাওয়ার প্রস্তুতি গ্রহণের এখনই সময়। নতুন ইমিগ্র্যান্টদের জন্য ইতিমধ্যে কানাডার ফেডারেল এবং প্রোভিনশনাল সরকার তাদের কর্ম পদ্ধতি অনুযায়ী কাজ শুরু করেছে। ৬০টির ‌ওপর কানাডায় ইমিগ্রেশন করার পদ্ধতি রয়েছে। প্রফেশনালদের জন্য অনেকগুলো ক্যাটাগরি রয়েছে। তার মধ্যে অন্যতম হলো ফেডারেল ও কুইবেক স্কিল প্রোগ্রাম, প্রভিনশনাল নমিনি প্রোগ্রাম, কানাডিয়ান এক্সপেরিয়েন্স ক্লাস, ফেডারেল সেলফ এমপ্লয়েড প্রোগ্রাম। এ ছাড়া রয়েছে ফ্যামিলি ক্লাস স্পন্সরশিপ প্রোগ্রামস। কানাডায় সর্বাধিক সংখ্যক আবেদনকারী এফএসডাব্লিউ অ্যান্ড এক্সপ্রেস এন্ট্রি প্রোগ্রামে আবেদন করছে। তাছাড়া বিপুল সংখ্যক লোকজন বিভিন্ন পিএনপি  প্রোগ্রামের মাধ্যমে নমিনেশন নিয়ে কানাডায় নাগরিকত্ব গ্রহণ করছে। অনেকগুলো পিএনপি প্রোগ্রাম চালু রয়েছে। তাই দেরি না করে ভালো ইমিগ্রেশন আইনজীবীর সহায়তা নিয়ে জেনে নিন আপনি যোগ্য কিনা এবং প্রয়োজনীয় কাগজপত্র প্রস্তুত করে সঠিকভাবে ফাইল জমা দিন।

কেয়ারগিভারের চাকরিসহ স্থায়ী হতে পারেন কানাডায়: ‘কেয়ারগিভার’ বা সেবা শুশ্রূষাকারীদের উন্নত বিশ্বের দেশগুলোতে রয়েছে বিশেষ মর্যাদা। বিশেষ করে কানাডায় কেয়ারগিভার হিসেবে কাজ করতে গেলে সহজেই পাওয়া যায় সেদেশে স্থায়ীভাবে বসবাসের সুযোগ (নাগরিকত্ব)। আর এ কাজে প্রতি ঘণ্টায় ১৫ ডলার পর্যন্ত আয়ের সুযোগ রয়েছে। কানাডার অন্যান্য প্রোগ্রামের মতো এ প্রোগ্রামটি জটিল বা সময়সাপেক্ষ নয়। ওয়ার্ল্ডওয়াইড মাইগ্রেশন কনসালট্যান্টস লিমিটেড বাংলাদেশে প্রথমবারের মতো কেয়ারগিভার বা ন্যানি প্রোগ্রাম চালু করেছে। যারা যোগ্য কেয়ারগিভার হিসেবে বিবেচিত হবেন, তারা পাবেন কানাডায় পরিবারসহ স্থায়ীভাবে বসবাসের সুযোগ। ওয়ার্ল্ডওয়াইড মাইগ্রেশন কনসালট্যান্টস লিমিটেডের মাধ্যমে চাকরি ও কাজের অনুমতি দুটোই মিলবে বাংলাদেশ থেকে। নুন্যতম এইচএসসি বা ডিপ্লোমা, ইংরেজীতে কথা বলার প্রাথমিক দক্ষতা ও নার্সিংয়ের ওপর ছয় মাসের ট্রেনিং বা এক বছরের কাজের অভিজ্ঞতা থাকলেই আপনি চাইলে চাকরিসহ কানাডায় বসবাস করতে পারেন।

চাকরির জন্য স্বর্গ খ্যাত অস্ট্রেলিয়া: চাকরি, বসবাস, নাগরিক সুযোগ-সুবিধা যে কোনো  ক্যাটাগরিতে অস্ট্রেলিয়া সবার পছন্দের শীর্ষের দেশ। অস্ট্রেলিয়া স্কিল মাইগ্রেশন (সেলফ এমপ্লয়েড, স্টেট নমিনেশন, এমপ্লয়ার নমিনেশন) টেম্পরারি ওয়ার্ক ভিসা, স্টুডেন্ট, ফ্যামেলি, ভিজিটর যে কোনো ভিসা আপনি নিতে পারেন আপনার পছন্দ ও প্রয়োজন অনুযায়ী। ওয়ার্ল্ডওয়াইড মাইগ্রেশন কনসালট্যান্টস লিমিটেড আপনাকে দিবে সঠিক সিদ্ধান্ত নিবার সুযোগ এবং আপনার ভিসা সংক্রান্ত যাবতীয় কাজগুলো করে দিবে দক্ষ ও দায়িত্বশীলতার সঙ্গে। ইঞ্জিনিয়ার, চিকিৎসক, ব্যাংকার, এনজিও কর্মীসহ অনেক পেশার লোকজন অস্ট্রেলিয়ায় স্থায়ী অভিবাসন নিতে পারে।

শান্তির দেশ নিউজিল্যান্ড:  নির্দিষ্ট সময় পরপর স্কিলড মাইগ্রেশন ক্যাটাগরিতে ড্র অনুষ্ঠিত হয়। বছরে প্রায় কয়েক হাজার পরিবার এ প্রোগ্রামের আওতায় নিউজিল্যান্ডের স্থায়ী নাগরিকত্ব (পিআর) পেয়ে থাকেন। এই ক্যাটাগরিতে বাংলাদেশিরাও নিউজিল্যান্ডে স্থায়ীভাবে বসবাসের সুযোগ নিতে পারেন। স্কিলড মাইগ্রেশন ক্যাটাগরি সম্পর্কে ও এই আবেদনের শিক্ষাগত ও অন্যান্য যোগ্যতা সম্পর্কে জানানো হয় নিউজিল্যান্ডের সরকারি ওয়েবসাইট। এ ক্ষেত্রে বিশেষজ্ঞ আইনজীবীর সহায়তা গ্রহণ করতে পারেন। নিউজিল্যান্ডে সম্ভাব্য পেশার মধ্যে রয়েছে জেনারেল প্র্যাকটিশনার, প্যাথলজিস্ট, সাইকোথেরাপিস্ট, সোনোগ্রাফারসহ আরো কিছু খাত। নিউজিল্যান্ড সরকারের ওয়েবসাইটে দেশটিতে চাহিদা থাকা বিভিন্ন পেশার কথা সুনির্দিষ্টভাবে উল্লেখ করা হয়েছে। এ ছাড়া স্টুডেন্ট ভিসা নিয়েও পড়াশুনা করতে পারেন দেশটিতে।

ব্যবসার স্বর্গ খ্যাত মালয়েশিয়ায় বিজনেস মাইগ্রেশন মালয়েশিয়ায় নিজ নামে কম্পানি খুলে যে কোনো বৈধ ব্যবসা প্রতিষ্ঠান স্থাপন করার মাধ্যমে আপনি চাইলেই পরিবারসহ স্থায়ীভাবে বসবাস করতে পারেন এবং ব্যবসা করে আর্থিকভাবে লাভবান হতে পারবেন। খুব কম বাজেটে ব্যবসা করে ইউরোপের লাইফ স্টাইলে জীবনযাপন করা যায় একমাত্র মালয়েশিয়ায়। মাত্র চার মাসে ব্যবসা শুরু করা যায় দেশটিতে।

ইউক্রেন সিটিজেনশিপ প্রোগ্রাম: প্রায় ১০ হাজার মার্কিন ডলার মাথাপিছু আয়ের দেশ ইউক্রেন। পৃথিবীর মধ্যে বর্তমান সবচেয়ে কম সময়ে পাসপোর্ট পাওয়া যায় দেশটিতে। বসবাস ও ব্যবসা করার জন্য রয়েছে অসাধারণ কিছু সুযোগ-সুবিধা। ওয়ার্ল্ডওয়াইড মাইগ্রেশন কনসালট্যান্টস লিমিটেড বাংলাদেশি নাগরিকদের জন্য প্রোগ্রামটি উন্মুক্ত করেছে। প্রয়োজনীয় কাগজপত্রসহ অফিস ভিজিট করলেই আপনি জানতে পারছেন আপনার সম্ভবনা কতটুকু। আমরাই প্রথম এই প্রোগ্রামটির সূচনা করেছি। এ প্রোগ্রামের অধীনে মাত্র এক বছরের মধ্যে ইউক্রেনের পাসপোর্ট পাওয়া সম্ভব।

পড়াশুনা করুন বিশ্বের শ্রেষ্ঠ বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে: সেশনজট, রাজনৈতিক হানাহানি, নিম্নমানের সিলেবাস ইত্যাদি কারণ ছাড়াও অনেকে বিদেশে পড়াশুনা করতে চায় শুধুমাত্র বিদেশি নাগরিকত্ব ও ভালো একটি চাকরির প্রত্যাশায়। আপনার সম্ভাবনাময় ভবিষ্যত গড়ে তুলতে  ওয়ার্ল্ডওয়াইড মাইগ্রেশন কনসালট্যান্টস লিমিটেড হতে পারে একটি গুরুত্বপূর্ণ সোপান। আপনার যোগ্যতা ও পছন্দ অনুযায়ী আমরা বিশ্বের যে কোনো দেশে ওয়ার্ল্ড র‍্যাংকিংয়ে থাকা কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে ভর্তির ব্যবস্থা করতে পারব। সাধারণত বাংলাদেশি ছেলে-মেয়েদের কাছে কানাডা অস্ট্রেলিয়া, নিউজিল্যান্ড, ইউকে, ডেনমার্ক, নরওয়ে, সুইডেন, জার্মানির বিশ্ববিদ্যালয়গুলোই থাকে পছন্দের শীর্ষে। ইঞ্জিয়ারিং, মেডিক্যাল, বিজনেস, আইটি, আইন ইত্যাদি যে কোনো বিষয়ে পড়াশুনা করতে পারেন।

এ ছাড়া  পোল্যান্ড, নরওয়ে, চিলিতে চাকরি ভিসা বা ব্যবসা করার সুযোগ নিতে পাবেন ওয়ার্ল্ডওয়াইড মাইগ্রেশন কনসালট্যান্টস লিমিটেডের মাধ্যমে। বিদেশ কাজ করার বা পরিবারসহ বসবাস করা যাদের স্বপ্ন তারাই বেছে নিতে পারেন। দেরি না করে বিস্তারিত জানতে   ওয়ার্ল্ডওয়াইড মাইগ্রেশন কনসালট্যান্টস লিমিটেডে যোগাযোগ করুন। অল্প সময়ে নিশ্চিত চাকরিসহ শান্তির লীলাভূমি নরওয়েতে বসবাস করতে পারেন। কোনো আইইএলটিএস’র প্রয়োজন নেই। আপনি আগ্রহী থাকলে দেরি না করে প্রয়োজনীয় কাগজপত্রসহ আন্তর্জাতিক অভিবাসনবিষয়ক আইনজীবী, ওয়ার্ল্ডওয়াইড মাইগ্রেশন কনসালট্যান্টস লিমিটেডের চেয়ারম্যান এবং বাংলাদেশ সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী ড. শেখ সালাহউদ্দিন আহমেদ রাজুর সাথে সরাসরি দেখা করতে ০১৯৬৬০৪১৩৩৩, ০১৯৯৩৮৪৩৩৪০ এই নম্বরে ফোন করে এপয়েন্টমেন্ট গ্রহণ করা যাবে অথবা পূর্ণাঙ্গ জীবনবৃত্তান্ত পাঠাতে পারেন এই ই-মেইল info@worldwidemigration.org ঠিকানায় ।

প্রতি মুহুর্তের সর্বশেষ খবর পেতে এখানে ক্লিক করে আমাদের ফেইসবুক পেইজে লাইক দিন

(লেখাটি পড়া হয়েছে 232 বার)


Print
এই পাতার আরও সংবাদ