কুষ্টিয়াতে আজ থেকে তিন দিনব্যাপী ফকির লালন স্মরণোৎসব শুরু

Print


মোঃআজাদ হোসেন—উদাসি টানেই হাজারো বাউল-ভক্তরা ছুটে আসছে বাউল তীর্থে আজ শনিবার থেকে কুমারখালী ছেঁউড়িয়া গ্রামে কুষ্টিয়া জেলা সাঁইজীর বারাম খানায় শুরু হল তিন দিনব্যাপী বাউল সম্রাট ফকির লালন শাহের স্মরণোৎসব ২০১৭ । দোল পূর্ণিমার চাঁদ ওঠার সঙ্গে সঙ্গে শুরু হয়েছে এই লালন স্মরণোৎসবের মূল আনুষ্ঠানিকতা । এ উৎসবকে ঘিরে ইতিমধ্যেই দূর দূরান্তের সাধু-ভক্তরা সমবেত হয়েছে লালন সাঁইয়ের আঁখড়া বাড়িতে । লালন ভক্তদের পদচারণায় এখন মুখর হয়ে উঠেছে সাইঁজীর আঁখড়া প্রাঙ্গণ ।
মরমী সাধক বাউল সম্রাট ফকির লালন সাঁই বাঙালির চেতনায় এক অবিস্মরণীয় কাল পুরুষ । বাউল সম্রাট লালন শাহের জীবনদ্দশায় চৈত্র মাসের প্রথম সপ্তাহে দোল পূর্ণিমার উৎসব পালন করা হয়। সেই থেকে লালন ভক্তরা প্রতি বছর এ উৎসব পালন করে আসছে । সাঁইয়ের গানের মাঝেই লুকিয়ে আছে সৃষ্টির রহস্য । সৃষ্টিকর্তার সাথে আত্মিক সম্পর্ক তাঁর গানের মূলমন্ত্র। জাতি-ধর্ম-বর্ণ নির্বিশেষে সকল মানুষকে একই স্রোতধারায় আনার জন্য আমরণ কাজ করেছেন এই মরমী সাধক । বাউল সম্রাট ফকির লালন সাঁই’র সঙ্গীত আমাদের অনুপ্রানিত করে ।
মহান সাধক বাউল সম্রাট ফকির লালন সাঁইয়ের স্মরণোৎসব উপলক্ষ্যে কুমারখালী ছেঁউড়িয়ার আখড়া বাড়ীতে আজ১১ মার্চ থেকে শুরু হয়েছে ৩ দিনব্যাপী অনুষ্ঠানমালা ।অনুষ্ঠানমালায় থাকছে আলোচনা সভা, লালন মেলা ও লালন সঙ্গীত । লালন একাডেমীর আয়োজনে এবং সংস্কৃতি
বিষয়ক মন্ত্রনালয় ও কুষ্টিয়া জেলা প্রশাসনের সহযোগিতায় চলবে বাউল সম্রাট ফকির লালন সাইয়ের স্মরণোৎসবের অনুষ্ঠান । স্মরণোৎসবের অনুষ্ঠানকে ঘিরে ইতোমধ্যে লালন একাডেমি সকল প্রস্তুতি সম্পূন্ন করেছেন । আজ উদ্বোধনী দিনে কুষ্টিয়ার জেলা প্রশাসক মো. জহির রায়হান’র সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি থাকবেন খুলনা বিভাগীয় কমিশনার (দায়িত্বপ্রাপ্ত) ও খুলনা বিভাগীয় অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার (সার্বিক) মোহাম্মদ ফারুক হোসেন।আলোচনা শেষে দ্বিতীয় পর্বে লালন মঞ্চে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে পরিবেশিত হবে লালন সঙ্গীত।এতে সঙ্গীত পরিবেশন করবেন দেশের খ্যাতনামা শিল্পীবৃন্দসহ লালন একাডেমীর শিল্পিরা। উৎসবকে ঘিরে পুরো একাডেমি চত্ত্বরে শুরু হয়েছে খন্ড-খন্ড স্থানে গানের আসর। এসব গান শুনে আগত দর্শক শ্রোতারাও নেচে-গেয়ে গানের সাথে সাথে তাল মিলাচ্ছে।

জানা গেছে, বিটিশ শাসকগোষ্ঠির নির্মম অত্যাচারে গ্রামের সাধারণ মানুষের জীবনকে যখন বিষিয়ে তুলেছিল, ঠিক সেই সময়ই সত্যের পথ ধরে, মানুষ গুরুর দিক্ষা দিতেই মানবতার পথ প্রদর্শক হিসাবে বাউল সম্রাট
ফকির লালন সাঁই’র আবির্ভাব ঘটে কুমারখালীরর,ছেঁউড়িয়াতে। তিনি ছিলেন নিঃসন্তান। তিনি ছিলেন স্ব-শিক্ষায় শিক্ষিত। যৌবনকালে পূর্ণ লাভের জন্য তীর্থ ভ্রমনে বেরিয়ে তার যৌবনের রূপান্তর ও সাধন জীবনে প্রবেশের ঘটনা ঘটে বলে জানা যায়। তীর্থকালে তিনি বসন্ত রোগে আক্রান্ত হলে তার সঙ্গীরা তাকে প্রত্যাখ্যান করে। পরে মলম শাহ’র আশ্রয়ে জীবন ফিরে পাওয়ার পর সাধক সিরাজ সাঁইয়ের সান্নিধ্যে তিনি সাধক ফকিরী লাভ করেন। প্রথমে তিনি কুমারখালীর ছেঁউড়িয়া গ্রামের গভীর বনে সাধনায় নিযুক্ত হন। পরে স্থানীয় কারিকর সম্প্রদায়ের সাহায্য লাভ করেন। লালন ভক্ত মলম শাহ আখড়া তৈরীর জন্য ষোল বিঘা জমি দান করেন। দানকৃত ওই জমিতে ১৮২৩ সালে লালন আখড়া গড়ে ওঠে। প্রথমে সেখানে লালনের বসবাস ও সাধনার জন্য বড় খড়ের ঘর তৈরী করা হয়। সেই ঘরেই তাঁর সাধন-ভজন বসতো।ছেঁউড়িয়ার আঁখড়া স্থাপনের পর থেকে মৃত্যুর আগ পর্যন্ত শিষ্যভক্তদের নিয়ে থাকতেন। তিনি প্রায় এক হাজার গান রচনা করে গেছেন। ১৮৯০ সালের ১৭ অক্টোবর ভোরে এই মরমী সাধক বাউল সম্রাট দেহত্যাগ করেন এবং তাঁর সাধন-ভজনের ঘরের মধ্যেই তাকে সমাহিত করা হয়।
তাঁর গানে “এই মানুষে আছে রে মন, যারে মানুষ রতন এই মানবতার দীক্ষা নিতে আত্মার টানে দেশ-বিদেশের সাধু-গুরু ও ভক্তরা দলে দলে আসতে শুরু করেছে সাঁইজির মাজারে । আখড়া বাড়ীতে আসা বাউল সাধকরা মাজারের বিভিন্ন স্থানে অবস্থান নিয়ে আসন গেড়ে গেয়ে চলেছে সাঁইজির আধ্যাত্মিক মর্মবাণী ও ভেদ তথ্যের গান। জমজমাট এখন লালন শাহের আখড়া বাড়ি । কুমারখালী ছেঁউড়িয়া পরিণত হয়েছে উৎসবের শহরে। সুষ্ঠুভাবে আয়োজন সম্পন্ন করতে নেয়া হয়েছে ব্যাপক নিরাপত্তা ব্যবস্থা। পুলিশের পাশাপাশি অনুষ্ঠানস্থলে থাকছে র্যাব ও সাদা পোষাকে গোয়েন্দা পুলিশ।
স্মরণোৎসবের অনুষ্ঠানে আসা দেশ-বিদেশের লাখো ভক্ত অনুরাগী ও সাধু-গুরুদের চরণ ধূলায় সিক্ত হচ্ছে বাউল সম্রাটের ছেঁউড়িয়ার আখড়াবাড়ী। সভ্যতার এই যুগে মানুষ মানুষে হিংসা বিদ্বেশ ভূলে সাঁইজির ধর্মদর্শনের চিরাচরিত “এই মানুষে আছে রে মন, যারে মানুষ ‘সত্য বল
সুপথে চল ওরে আমার মন ” ও মানুষ ভজলে সোনার মানুষ হবি ” এ বাস্তবায়নে সদা সত্য ও সঠিক পথে চলে দেশ ও জাতির উন্নয়নে নিজেদেরকে নিয়োজিত রাখতে হবে যেন এটাই ছিল বাউল সম্রাট ফকির লালন সাঁইয়ের গানের মূলমন্ত্র।

প্রতি মুহুর্তের সর্বশেষ খবর পেতে এখানে ক্লিক করে আমাদের ফেইসবুক পেইজে লাইক দিন

(লেখাটি পড়া হয়েছে 44 বার)


Print
এই পাতার আরও সংবাদ