কুড়িগ্রামে বাল্য বিয়ে আটকালো শিক্ষার্থীরা

Print


সাইফুর রহমান শামীম,কুড়িগ্রামঃ
কুড়িগ্রামে বাল্য বিয়ে আটকালো শিক্ষার্থীরা। সোমবার ভোর রাতে আশা মনি আক্তার (১৪) কে বিয়ের পীড়িতে বসানোর আয়োজন চলছিল। সে সময় গ্রামের একদলশিক্ষার্থী বিয়ে বাড়িতে গিয়ে ভন্ডুল করে দেয় বাল্য বিবাহের অনুষ্ঠান।
জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক সফিকুল ইসলাম শাকিব জানান, মাঝ রাতে কুড়িগ্রাম শহরের বকসী পাড়া এলাকায় মৃত: আফছার আলীর কন্যা ও বেগম নুরন্নাহার বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের ৬ষ্ঠ শ্রেণির ছাত্রী আশা মনি আক্তারকে গোপনে বিয়ে দেয়ার প্রস্তুতি চলছিল। এসময় ওই এলাকা থেকে মোবাইলে জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদকের কাছে সহযোগিতা চাওয়া হয়। পরে একদল শিক্ষার্থীকে নিয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে বিয়ে আটকে দেয়া হয়।
জানা যায়, আশা মনির বোন জামাই সদর উপজেলার মোগল বাসা ইউনিয়নের প্রত্যন্ত নয়ারহাট এলাকার বাসিন্দা আবু তালেব মুহুরী তারই এলাকায় গোপনে শ্যালিকার বিয়ের আয়োজন করছিল। লোকজনের উপস্থিতি টের পেয়ে ছেলেপক্ষের লোকজন সটকে পড়ে। ফলে বাল্য বিয়ে ভেস্তে যায়।
আশা মনির মাহাফিজন বেওয়া জানান, আমার বাড়ীতে জামাইপক্ষের মেহমান এসেছে। তাদের জন্য রান্নার আয়োজন করাহয়। আশা মনির বিয়ের ব্যাপারে কোন আলোচনা হয়নি।আমি মেয়েকে পড়াবো। ৩ ভাই, ২ বোনের মধ্যে আশা মনি সবার ছোটসন্তান।
জেলা প্রশাসক খান মো. নুরুল আমিন জানান, শিক্ষার্থীদের মাধ্যমে বিষয়টি অবগত হবার পর সংশ্লিষ্ট পৌর কাউন্সিলর ও প্রধান শিক্ষককে আশামনিকে যাতেবাল্য বিয়ে দেয়া না হয় এ ব্যাপারে দেকভাল করতে বলা হয়েছে।

প্রতি মুহুর্তের সর্বশেষ খবর পেতে এখানে ক্লিক করে আমাদের ফেইসবুক পেইজে লাইক দিন

(লেখাটি পড়া হয়েছে 184 বার)


Print
এই পাতার আরও সংবাদ