কৃষিতে ব্যবহৃত ড্রোনের সফল পরীক্ষা

Print

%e0%a6%95%e0%a7%83%e0%a6%b7%e0%a6%bf%e0%a6%a4%e0%a7%87-%e0%a6%ac%e0%a7%8d%e0%a6%af%e0%a6%ac%e0%a6%b9%e0%a7%83%e0%a6%a4-%e0%a6%a1%e0%a7%8d%e0%a6%b0%e0%a7%8b%e0%a6%a8%e0%a7%87%e0%a6%b0-%e0%a6%b8

খুলনা বিশ্ববিদ্যালয় খেলার মাঠে সোমবার দুপুরে কৃষি ক্ষেত্রে ব্যবহার উপযোগী ড্রোনের পরীক্ষামূলক উড্ডয়ন করা হয়েছে।
বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের প্রকল্পের আওতায় বিশ্ববিদ্যালয়ের ইলেকট্রনিক্স অ্যান্ড কমিউনিকেশন ইঞ্জিনিয়ারিং ডিসিপ্লিনের পক্ষ থেকে এই ড্রোনটি তৈরি করা হয়। ডিসিপ্লিনের সহযোগী অধ্যাপক ড. মো. শামীম আহসানের তত্ত্বাবধানে মাস্টার্সের ছাত্র কাজী মাহমুদ হাসান এটি তৈরি করেন।
প্রাথমিকভাবে ৮০ ফুট উঁচু দিয়ে উড্ডয়ন করে কীভাবে কৃষি জমিতে এটা কীটনাশক ছিটাবে তা দেখানো হয়। এ ছাড়া উঁচুতে আম গাছে বা অন্যান্য ফলদ গাছেও প্রয়োজনে কীটনাশক ছিটাতে পারবে।
ড. মো. শামীম আহসান জানান, প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের অনুমতি নিয়ে ড্রোনটি তৈরি ও উড্ডয়ন করা হয়েছে। ড্রোনের গতি ঘণ্টায় ৩৮ কিলোমিটার। প্রতি মিনিটে ৫ কাঠা জমিতে কীটনাশক ছিটাতে পারবে এ ড্রোন।
তিনি জানান, অটোনমাস মাল্টিফাংশনাল ড্রোন এটি। ড্রোনটি কীটনাশক স্প্রে, মনিটরিং/সারভেইল্যান্স, আবহাওয়া-সংশ্লিষ্ট তথ্য সংগ্রহ করার ক্ষেত্রে ব্যবহার করা যাবে।
ড. শামীম আরও জানান, ড্রোনটিতে উচ্চ ক্ষমতাসম্পন্ন রোটেড ক্যামেরা সংযুক্ত করা সম্ভব হবে। ৫ কেজি ওজনের ড্রোনটি একবারে ২৫ মিনিট উড়তে পারবে। এর সর্বোচ্চ উড্ডয়ন উচ্চতা ২০০ মিটার, যা ৩ লিটার কীটনাশক বহনে সক্ষম। এ ছাড়া কৃষির আরও কাজে কীভাবে এটি ব্যবহার করা যায়, সে বিষয়ও ভেবে দেখা হচ্ছে। শিগগিরই এর আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করা হবে।

প্রতি মুহুর্তের সর্বশেষ খবর পেতে এখানে ক্লিক করে আমাদের ফেইসবুক পেইজে লাইক দিন

(লেখাটি পড়া হয়েছে 338 বার)


Print
এই পাতার আরও সংবাদ