কে প্রার্থী হচ্ছেন সুরঞ্জিতের স্ত্রী না ছেলে

Print

শোক না কাটতেই প্রয়াত সুরঞ্জিতের আসনে নির্বাচনী শোড়গোল শুরু হয়ে গেছে। তার অনুপস্থিতিতে কে প্রার্থী পাচ্ছে, এ নিয়ে কয়েকদিন ধরেই সুনামগঞ্জের দিরাইয়ে চলছে আলোচনা। রাজনীতির আসর থেকে শুরু করে চা স্টলেও এ নিয়ে ঝড় বইছে।
গত রোববার ভোরে রাজধানীর ল্যাবএইড হাসপাতালে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন আটবার নির্বাচিত সংসদ সদস্য আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য বর্ষীয়ান রাজনীতিবিদ সুরঞ্জিত সেনগুপ্ত । এরপর থেকেই এলাকায় আলোচনা শুরু হয়েছে সুনামগঞ্জের দিরাই-সাল্লা নির্বাচনী এলাকায় শূন্য আসনের উপ-নির্বাচনে কে প্রার্থী হচ্ছেন? জেলা ও উপজেলার একাধিক নেতা এরই মধ্যে কেন্দ্রীয় নেতাদের সঙ্গে যোগাযোগ শুরু করে দিয়েছেন।

তবে আলোচনার ঝড় যাই বয়ে যাক না কে, ওই আসনে প্রয়াত সুরঞ্জিত সেনগুপ্তের ছেলে স্ত্রী জয়া সেনগুপ্তের নামই বেশি উচ্চারিত হচ্ছে। তাদের মধ্য থেকেই যে কোনো একজন আওয়ামী লীগের প্রার্থী হচ্ছেন বলে এমটিই নিশ্চিত করেছে দলীয় একাধিক সূত্র।
আওয়ামী লীগের একটি নির্ভরযোগ্য সূত্র জানায়, আগামী উপনির্বাচনে জয়া সেনগুপ্তকেই মনোনয়ন নিতে চান দলীয় সভানেত্রী ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এক্ষেত্রে সুরঞ্জিত-জয়া সেনগুপ্তের একমাত্র সন্তান সৌমেন সেনগুপ্তের প্রার্থী হওয়ার সম্ভাবনাও উড়িয়ে দিচ্ছে না সূত্রটি।
একাধিক দলীয় সূত্র জানায়, প্রধানমন্ত্রী নারীর ক্ষমতায়নে বিশ্বাসী এবং সুরঞ্জিতের স্ত্রী হিসেবে জয়া দীর্ঘ সময় অনেক অভিজ্ঞ, মেধাবী ও প্রজ্ঞাবান রাজনীতিবিদের সংস্পর্শে থেকে অনেক কিছু শিখেছেন, যা দেশ ও জাতির জন্য কাজে লাগবে। পরিবারটির সঙ্গে শেখ হাসিনার ঘনিষ্ঠতাও দীর্ঘদিনের ফলে ওই আসনে প্রয়াত নেতার পরিবারের সদস্যরাই বেশি প্রাধান্য পাবেন।
প্রসঙ্গত, জয়া সেনগুপ্ত বাংলা ভাষা ও সাহিত্যে ডক্টরেট। তিনি একটি বেসরকারি সংস্থার শিক্ষা বিভাগে সমন্বয়কারী পদে দায়িত্ব পালন করেছেন। সুরঞ্জিত-জয়া সেনগুপ্ত দম্পত্তির একমাত্র সন্তান সৌমেন নর্থ সাউথ ইউনিভার্সিটি থেকে কম্পিউটার সায়েন্সে স্নাতক এবং কানাডা থেকে মাস্টার্স ডিগ্রি নিয়ে বর্তমানে ব্যবসায়ী। সৌমেনের স্ত্রী রাখী মৈত্রী সেনগুপ্ত পেশায় চিকিৎসক।

প্রতি মুহুর্তের সর্বশেষ খবর পেতে এখানে ক্লিক করে আমাদের ফেইসবুক পেইজে লাইক দিন

(লেখাটি পড়া হয়েছে 312 বার)


Print
এই পাতার আরও সংবাদ