গণজাগরণ ও ছাত্রলীগের আনন্দ মিছিল : ‘৪৫ বছরের প্রতীক্ষার অবসান’

Print

মানবতাবিরোধী অপরাধে জামায়াত নেতা মতিউর রহমান নিজামীর ফাঁসি কার্যকর হওয়ায় গণজাগরণ মঞ্চ ও ছাত্রলীগ সন্তোষ প্রকাশ করেছে। মঞ্চ ও ছাত্রলীগের কর্মীরা মিছিল করে উল্লাস প্রকাশ করেছে।

রায় ঘোষণার পর যুদ্ধাপরাধীদের সর্বোচ্চ শাস্তির দাবিতে গড়ে ওঠা গণজাগরণ মঞ্চের মুখপাত্র ডা. ইমরান এইচ সরকার বলেন, ‘এই রায়ের জন্য দীর্ঘ ৪৫ বছর ধরে প্রতীক্ষায় ছিলাম। রায় ঘোষণার মাধ্যমে এই প্রতীক্ষার অবসান হয়েছে। বদর কমান্ডার নিজামীর রায় কার্যকর হয়েছে।’ এ জন্য সংশ্লিষ্টদের ধন্যবাদ জানান তিনি।

ইমরান বলেন, এই রায় কার্যকরের মাধ্যমে দেশে আইনের শাসন প্রতিষ্ঠার পথ সুগম হয়েছে। নতুন যে দেশ গড়ার স্বপ্ন মানুষ দেখে তার পথ সুগম হয়েছে। শুধু যুদ্ধাপরাধীদের রায় কার্যকর হলেই হবে না, সাম্প্রতিক সময়ের অন্য সব হত্যাকাণ্ডেরও বিচার করতে হবে। যুদ্ধাপরাধীদের বিচার দাবির আন্দোলনে জড়িত থেকে যারা প্রাণ হারিয়েছে, তাদের খুনিদেরও বিচার করতে হবে।

এর আগে রায় ঘোষণাকে কেন্দ্র করে রাত সাড়ে ৮টা থেকে শাহবাগে অবস্থান নেয় গণজাগরণ মঞ্চ। রাত ১২টা ১০ মিনিটে নিজামীকে ফাঁসিতে ঝোলানোর পর স্বস্তি প্রকাশ করে আনন্দ উল্লাস করে মঞ্চের কর্মীরা। এ সময় তারা ‘ভি’ চিহ্ন প্রদর্শন করে বিজয় উল্লাস করে। পরে ইমরান এইচ সরকারের নেতৃত্বে শাহবাগ থেকে একটি আনন্দ মিছিল বের করা হয়।

একইভাবে আনন্দ মিছিল করেছে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা। মিছিলটি মধুর ক্যান্টিন থেকে শুরু হয়ে টিএসসি, শাহবাগ ঘুরে আবার টিএসসির রাজু ভাস্কর্যের সামনে গিয়ে শেষ হয়। পরে সেখানে সংক্ষিপ্ত সমাবেশ হয়।

প্রতি মুহুর্তের সর্বশেষ খবর পেতে এখানে ক্লিক করে আমাদের ফেইসবুক পেইজে লাইক দিন

(লেখাটি পড়া হয়েছে 32 বার)


Print
এই পাতার আরও সংবাদ