চলচ্চিত্র নির্মাণের জন্য ২২৩ বার চাবুকের ঘা!

Print

%e0%a6%9a%e0%a6%b2%e0%a6%9a%e0%a7%8d%e0%a6%9a%e0%a6%bf%e0%a6%a4%e0%a7%8d%e0%a6%b0-%e0%a6%a8%e0%a6%bf%e0%a6%b0%e0%a7%8d%e0%a6%ae%e0%a6%be%e0%a6%a3%e0%a7%87%e0%a6%b0-%e0%a6%9c%e0%a6%a8%e0%a7%8d%e0%a6%afকিংবদন্তী পরিচালক ঋত্বিক ঘটক সিনেমা নিয়ে একটা কথা বলেছিলেন, ‘বিপ্লবের সবচেয়ে বড় প্লাটফর্ম হচ্ছে সিনেমা।’ আসলে এই সিনেমার মাধ্যমেই সবচেয়ে বেশি জনগণের কাছে পৌঁছান যায়।
আর একটি গল্পের নিখাদ চিত্রায়ন সাধারণের মনে অনেক বড় প্রভাব ফেলতে পারে। তাইত দ্বিতীয় বিশ্ব যুদ্ধ নিয়ে জার্মান বিরোধী সিনেমা গুলো আমেরিকার মনে সবসময় নেতিবাচক প্রভাব ফেলে।
এমনি ভাবে সিনেমাকে বিপ্লবের ভাষা করে চলচ্চিত্র নির্মাণ করায় শাস্তি পেতে হল ইরানি পরিচালককে। কেভান কারিমি নামের এক ইরানি চলচ্চিত্রকারকে এক বছরের জেল ও ২২৩ বার চাবুক মারার নির্দেশ দিয়েছেন দেশটির আদালত।
‘রাইটিং অন দ্য সিটি’ ছবির জন্য এ শাস্তি ভোগ করতে হচ্ছে কেভানকে। ছবিটি দেশের রাজনীতি নিয়ে ব্যঙ্গ করে নির্মিত।
ইউটিউবে ছবির ট্রেইলার প্রকাশ হওয়ার পরই তাকে গ্রেফতার করা হয়। প্রথমে ছয় বছরের জেল দেয়া হলেও আপিলের ভিত্তিতে তার শাস্তির মেয়াদ কমানো হয়েছে
এই প্রসঙ্গে কেভান বলেছেন, আমি আমার স্বপ্নের ওপর ভিত্তি করে ইরানকে পূনঃনির্মাণ করতে চাই। এটাকে সবার মনে হতে পারে অদ্ভূত। কিন্তু আমি ভবিষ্যতের জন্য, আমাদের সন্তানের কথা ভেবে এটা করতে চাই।
এদিকে কারাগারের থাকা ওই সময়টায় তিনি পরবর্তী সিনেমার জন্য চিত্রনাট্য তৈরি করবেন বলে জানিয়েছেন।

প্রতি মুহুর্তের সর্বশেষ খবর পেতে এখানে ক্লিক করে আমাদের ফেইসবুক পেইজে লাইক দিন

(লেখাটি পড়া হয়েছে 179 বার)


Print
এই পাতার আরও সংবাদ
error: ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি