চোরের টার্গেট যখন সরকারী প্রাইমারী স্কুল!

Print

মোঃ শামীম আহমেদ, জেলা প্রতিনিধি (নীলফামারী):  
নীলফামারীর সৈয়দপুরে সরকারী প্রাইমারী স্কুলে চুরির অভিযোগ উঠেছে। নৈশ্য প্রহরীর পাহাড়ার মধ্যে সৈয়দপুরের সরকারি প্রাইমারী স্কুলে চুরির হিড়িক পড়েছে। বর্তমানে চোরের সরকারি প্রাইমারী স্কুল টার্গেট করে একের পর এক চুরির ঘটনা ঘটাচ্ছে। চোরের স্কুলে ঢুকে স্কুলের সেলিং ফ্যানসহ মূল্যবান সামগ্রী চুরি করে নিয়ে যাচ্ছে। চুরির বেপরোয়া ঘটনায় স্কুলগুলো চুরির আতংক ছড়িয়ে পড়েছে। এতে করে স্কুলে দায়িত্বে নিয়োজিত নৈশ্য প্রহরীর দায়িত্ব পালন নিয়ে প্রশ্নের সৃষ্টি হয়েছে। স্কুল সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা যায়, পৌরসভা ও উপজেলার ৫ ইউনিয়ন মিলে ৭৭ টি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় রয়েছে। এসব বিদ্যালয়ে নিরাপত্তা ও সম্পদ রক্ষায় সৈয়দপুরে দুই দফায় নৈশ্য প্রহরী নিয়োগ দেয়া হয়। প্রহরীদের দায়িত্ব দিনে ও রাতে নিরাপত্তায় বিদ্যালয়ের দায়িত্ব পালন করা। কিন্তু ওই সব নৈশ্য প্রহরী শুধুমাত্র দিনের বেলায় দায়িত্ব পালন করে। রাতের বেলা কেউ দায়িত্ব পালন করে না। ফলে বিদ্যালয়গুলোতে একের পর এক চুরির ঘটনা ঘটছে। গত কয়েকদিনে ৪টি বিদ্যালয়ে চুরির ঘটনা ঘটেছে। সর্বশেষ চুরির ঘটনা ঘটেছে ধলাগাছ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় চোরের একই কায়দায় স্কুলের ফ্যানসহ মূল্যবান সামগ্রী চুরি করে নিয়ে যায়। ঘনঘন এ চুরির ঘটনায় বিদ্যালয়গুলোতে চুরির আতংক দেখা দিয়েছে। পাহারা থাকা অবস্থায় কিভাবে চুরি হলো এ নিয়ে জনমনে নানা প্রশ্নের সৃষ্টি হয়েছে। কোনভাবেই চুরির ঘটনা বন্ধ হচ্ছে না। অভিভাবকরা মনে করছে প্রহরী দায়িত্বে অবহেলার কারণে এসব চুরির ঘটনা ঘটছে। চুরির ঘটনা নিয়ে উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা দপ্তরকেও ভাবিয়ে তুলছেন। উপজেলা আইন শৃঙ্খলা কমিটির সভায় চুরির ঘটনা নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করা হয়েছে। সভায় প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা চুরির ঘটনা তুলে ধরে প্রতিকার কামনা করেছেন। জনপ্রতিনিধিরাও চুরির ঘটনা তদন্ত করে আইনী ব্যবস্থা গ্রহনের তাগিদ দিয়েছেন।

প্রতি মুহুর্তের সর্বশেষ খবর পেতে এখানে ক্লিক করে আমাদের ফেইসবুক পেইজে লাইক দিন

(লেখাটি পড়া হয়েছে 156 বার)


Print
এই পাতার আরও সংবাদ