জন্ম বাংলায়, মরব বাংলায়

Print

সিলেটে বহুল আলোচিত কলেজছাত্রী খাদিজা আক্তার নার্গিসকে হত্যাচেষ্টা মামলার একমাত্র আসামি শাবি ছাত্রলীগের বহিষ্কৃত নেতা বদরুল আলমকে দণ্ডবিধির ৩২৬ ধারায় যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। একই সঙ্গে তাকে পাঁচ হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে আরও দুই মাসের বিনাশ্রম কারাদণ্ড দেয়া হয়েছে।
বুধবার দুপুরে সিলেট মহানগর দায়রা জজ আদালতের বিচারক আকবর হোসেন মৃধা এ রায় ঘোষণা করেন। এসময় আদালতে উপস্থিত ছিলেন আসামি বদরুল আলম।

রায় ঘোষণার সময় আদালতে হাজির করা ও আদালতের কাঠগড়ায় থাকাকালে চুপ ছিলেন বদরুল আলম। তবে পুরো সময় তাকে কিছুটা বিচলিত দেখা যাচ্ছিল। রায় ঘোষণার পর আদালত থেকে বের হওয়ার সময়ও চুপ ছিলেন। কিন্তু আদালত ভবনের সিঁড়ি দিয়ে নামার সময় তিনি বলেন, ‘জন্ম বাংলায়, মরব বাংলায়, এখানেই শেষ নয়। জয় বাংলা…’ বলতে শুরু করেন। এসময় তিনি বলতে থাকেন, ‘এ আদালত শেষ নয়’। অনেকটা চিৎকার করে কথাগুলো বলছিলেন তিনি। এ অবস্থায় পুলিশ দ্রুত তাকে প্রিজন ভ্যানে তুলে নিয়ে যায়।
সিলেটের মুখ্য মহানগর বিচারিক হাকিম আদালতে মামলার অভিযোগ গঠনের দিন ও সর্বশেষ সাক্ষ্য গ্রহণের দিন বদরুল জয় বাংলা বলেছিলেন।
৩০ পৃষ্ঠার রায়ে আদালত খাদিজাকে ‘অলৌকিকভাবে বেঁচে যাওয়া এক জীবন্ত কিংবদন্তী নারী উল্লেখ করে বলেন, প্রেমে প্রত্যাখ্যাত পাষণ্ড প্রেমিকের চাপাতির নৃশংস আঘাতে ক্ষত বিক্ষত খাদিজা দীর্ঘদিন মৃত্যুর সঙ্গে পাঞ্জা লড়ে মৃত্যুর কাছে হেরে না যাওয়া সমগ্র বিশ্ব নারী সমাজের বিজয়িনী, প্রতিবাদকারিনী।
আদালত বলেন, আমার বিশ্বাস আসামির ওপর সর্বোচ্চ শাস্তি আরোপের মাধ্যমে প্রেমে প্রত্যাখ্যাত হাজার হাজার বদরুলরা (উত্যক্তকারীরা) ভবিষ্যতে এমন কাণ্ড থেকে বিরত থাকবে এবং নারী সমাজ সুরক্ষিত হবে।
আলোচিত এ ঘটনার পাঁচ মাস পাঁচদিনের মাথায় বিচার কার্যক্রম শেষে আদালত থেকে এই রায় এলো। গত বছরের ৩ অক্টোবর এমসি কলেজ ক্যাম্পাসে চাপাতি দিয়ে খাদিজাকে উপর্যুপরি কুপিয়ে গুরুতর আহত করে সুনামগঞ্জের ছাতক উপজেলার মনিরজ্ঞাতি গ্রামের বাসিন্দা বখাটে বদরুল।

প্রতি মুহুর্তের সর্বশেষ খবর পেতে এখানে ক্লিক করে আমাদের ফেইসবুক পেইজে লাইক দিন

(লেখাটি পড়া হয়েছে 99 বার)


Print
এই পাতার আরও সংবাদ