জিততে হলে বাংলাদেশকে গড়তে হবে ইতিহাস

Print

গল টেস্টে জিততে হলে বাংলাদেশকে গড়তে হবে ইতিহাস। ১৪০ বছরের টেস্ট ইতিহাসে যা কোনো দেশ করতে পারেনি, মুশফিকুর রহীমের দলকে করতে হবে সেই অসাধ্য কিছু। চতুর্থ ইনিংসে সর্বোচ্চ রান তাড়া করে জয়ের রেকর্ড যেখানে ৪১৮ রান, সেখানে মুশফিকদের সামনে শ্রীলঙ্কা ছুড়ে দিয়েছে ৪৫৭ রানের লক্ষ্য। জয়ের কথা ভুলে ম্যাচ বাঁচানোটাই তাই বাংলাদেশের প্রথম এবং একমাত্র লক্ষ্য। সেই লক্ষ্যে শুরুটা দারুণই হয়েছে বলতে হবে। ৬ উইকেটে ২৭৪ রানে শ্রীলঙ্কা দ্বিতীয় ইনিংস ঘোষণার পর চতুর্থ ইনিংসে (নিজেদের দ্বিতীয় ইনিংস) ব্যাট করতে নেমে বাংলাদেশ এই প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত উদ্বোধনী জুটিতেই করে ফেলেছে ৬৭ রান। ধৈর্যের প্রতিমূর্তি হয়ে তামিম ইকবাল ৪৪ বলে ১৩ ও আগ্রাসী ভূমিকা নেওয়া সৌম্য সরকার ব্যাট করছেন ৪৭ বলে ৫৩ রানে।
চতুর্থ আলোকস্বল্পতার জন্য খেলা বন্ধ। তবে সময় অনুযায়ী দিনের খেলা আরও ১১ ওভার বাকি। তামিম-সৌম্য বাকি সময়টা কাটিয়ে দিতে পারলে, সেটা হবে বাংলাদেশের জন্য দারুণ। ম্যাচ বাঁচানোর পথে এগিয়ে থাকা যাবে অনেকটাই। তৃতীয় দিনে গলের আকাশ ভেঙে নামা বৃষ্টি মুশফিকদের পথটা সহজ করে দিয়েছে। ওই বৃষ্টির পর যেমনটা মনে করা হয়েছিল, শ্রীলঙ্কানরা করেছে ঠিক তাই। চতুর্থ দিনের চা বিরতির পরও তারা ব্যাটিং করেছে ৫ ওভার। যার মানে, বাংলাদেশকে চতুর্থ ইনিংসে ব্যাট করতে হবে চার সেশনেরও কম সময়। বাংলাদেশি ব্যাটসম্যানরা নিজেদের পছন্দের স্টাইলে খেলা বাদ দিয়ে টেস্টের চেতনা অনুযায়ী খেলতে পারলে পথ পাড়ি দেওয়াটা কঠিন কিছু হবে না। সেজন্য প্রয়োজন শুধু ধৈর্য ধরা।
শুক্রবার দ্বিতীয় ইনিংস শুরু করে প্রথম সেশনে ১ উইকেট হারিয়ে ৮৭ রান করে শ্রীলঙ্কা। মধ্যাহ্ন বিরতির পর লঙ্কানরা মনোযোগ দেয় দ্রুত রান তোলার দিকে। নিজেদের সেই লক্ষ্য ঠিকঠাকভাবে পালন করতে গিয়ে লঙ্কানরা দ্বিতীয় সেশনে উইকেট হারায় ৪টি। যে ৪ উইকেটের সমান ২টি করে উইকেট নেন সাকিব আল হাসান ও মেহেদী হাসান মিরাজ। তবে উইকেট হারালেও লঙ্কানরা নিজেদের আসল কাজটা করেছেন ঠিকঠাক মতোই। দ্বিতীয় সেশনে ৩১ ওভারেই তুলে ১৬০ রান। ক্যারিয়ারের তৃতীয় সেঞ্চুরি তুলে নিয়ে লঙ্কানদের এই রান-উৎসবে নেতৃত্ব দেন উপুল থারাঙ্গা।
মেহেদীর শিকার হওয়ার আগে তিনি করেন ১১৫ রান। হেরাথ চাইলে ৫ উইকেটে ২৪৭ রান নিয়ে চা বিরতিতে যাওয়ার সময়ই ইনিংস ঘোষণায় যেতে পারতেন। কিন্তু সাবধানের মার নেই, ভেবেই হয়তো চা বিরতির পরও ব্যাট করতে নামে শ্রীলঙ্কা। তবে তৃতীয় সেশনে মাত্রই ৫ ওভার ব্যাট করেছে তারা। তাতে দিলরুয়ান পেরেরার উইকেট হারিয়ে ২৭ রান তুলে ইনিংস ঘোষণা করে শ্রীলঙ্কা। মোস্তাফিজ পেরেরাকে আউট করতেই ইনিংস ঘোষণার ডাক দেন হেরাথ।

প্রতি মুহুর্তের সর্বশেষ খবর পেতে এখানে ক্লিক করে আমাদের ফেইসবুক পেইজে লাইক দিন

(লেখাটি পড়া হয়েছে 163 বার)


Print
এই পাতার আরও সংবাদ