ঢামেকে ছাদের পলেস্তারা খসে পড়ে একজন আহত

Print

ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পুরাতন ভবনের ছাদের পলেস্তারা খসে পড়ে এক নারী গুরুতর আহত হয়েছেন। লুচিয়া বেগম রোগীর স্বজন।শনিবার দুপুরে এ দুর্ঘটনা ঘটে। তাকে আহত অবস্থায় নাক কান গলা বিভাগের অপারেশন থিয়োটারে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে। এ ঘটনার পর সেখানে চিকিৎসাধীন রোগী, কর্তব্যরত চিকিৎসক নার্স ও কর্মকর্তা কর্মচারীদের মধ্যে আতঙ্ক বিরাজ করছে।
আহত লুচিয়া বেগমের ভাগিনা আবদুর রহমান জানান, দুপুর পৌনে একটার দিকে তিনি বাথরুমে যাচ্ছিলেন। এ সময় ছাদের কিছু অংশ ভেঙে পড়ে। এতে তার কপালের কিছু অংশ কেটে যায়।

এই দুর্ঘটনার খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে ছুটে আসেন নাক কান গলা বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক নাজমুল ইসলাম। এ সময় তিনিও রোগীর স্বজনদের ক্ষোভের মুখে পড়েন।
এ সময় তিনি সাংবাদিকদের বলেন, ‘আমি আমার রুমে বসতে পারি না, কারণ সেখানে ছাদ ভাঙার আশঙ্কা রয়েছে। মাঝেমধ্যে আমি এসে সহকারী অধ্যাপক ডা. দেবেশ চন্দ্র তালুকদারের রুমে বসি।’
আহত রোগীর স্বজনদের ভাষ্যমতে গত ২৮ জানুয়ারি টিউমারে আক্রান্ত হয়ে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ২০৩ নম্বর ওয়ার্ডের বারান্দায় ১৭ নম্বর বিছানায় ভর্তি হন নোয়াখালীর সেনবাগের গোলাপ রহমান। সেখানে তাকে দেখাশোনা করতেন তার স্ত্রী লুচিয়া বেগম।
নাম প্রকাশে অনেচ্ছুক কয়েকজন রোগী সাংবাদিক পরিচয় পেয়ে এ প্রতিবেদককে বলেন, ‘স্যার একটু ভালো কইরা লেখেন। দেখেন আইছি চিকিৎসা নিতে কিন্তু মনে হয় কখন যেন ছাদ ভাঙে মাথায় পড়ব সেই চিন্তায় থাকি। আজকের পর তো মনে হয় চোখে ঘুম আইব না ভয়ে।’
জানতে চাইলে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের উপপরিচালক খাজা আবদুল গফুর বলেন, পুরোনো ছাদের অংশ ভেঙে পড়ার কথা আমিও শুনেছি। এখন আমাদের কী করার আছে। এটা ভেঙে নতুন ভবন তৈরির উদ্যোগ নেবে সরকার। আশা করি এই ঘটনার পর কর্তৃপক্ষ এ ব্যাপারে আন্তরিক হবে।

প্রতি মুহুর্তের সর্বশেষ খবর পেতে এখানে ক্লিক করে আমাদের ফেইসবুক পেইজে লাইক দিন

(লেখাটি পড়া হয়েছে 150 বার)


Print
এই পাতার আরও সংবাদ