দেশজুড়ে হবে পাঁচ শতাধিক মডেল মসজিদ

Print

প্রতি জেলা ও উপজেলায় একটি করে মোট ৫৬০টি মডেল মসজিদ নির্মাণ করে দেবে সৌদি আরব। মসজিদগুলোর পাশাপাশি স্থাপন করা হবে ইসলামিক সাংস্কৃতিক কেন্দ্রও। এ ছাড়া কেরানীগঞ্জে ইসলামী আরবি বিশ্ববিদ্যালয়ের স্থায়ী ক্যাম্পাস স্থাপনেও আর্থিক সহায়তা দেবে মধ্যপ্রাচ্যের এই প্রভাবশালী দেশটি।

সম্প্রতি প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত এক সভার কার্যবিবরণীতে এসব তথ্য পাওয়া গেছে। ৫ নভেম্বর বিভিন্ন রাষ্ট্রের সঙ্গে জড়িত বাংলাদেশের দ্বিপক্ষীয় ইস্যুগুলোর অগ্রগতি নিয়ে সভাটি হয়। বিষয়টি নিশ্চিত করে ধর্মবিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সচিব আবদুল জলিল বাংলাদেশ প্রতিদিনকে বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সফরে রাজকীয় সৌদি সরকার এ প্রকল্পে অর্থায়নের প্রতিশ্রুতি দিয়েছে। প্রথম পর্যায়ে আমরা প্রস্তাবিত মসজিদের একটি স্থাপত্য নকশা তৈরি করে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে উপস্থাপন করেছিলাম। পরে সেখান থেকে ত্রিমাত্রিক নকশা (থ্রি-ডি মডেল) চাওয়া হয়। আমরা ইতিমধ্যে যে ধরনের মসজিদ হবে তার ত্রিমাত্রিক নকশাও অনুমোদনের জন্য প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে পাঠিয়ে দিয়েছি। ’ সূত্রগুলো জানায়, গত বছরের জুনে (৩-৭ জুন) সৌদি আরব সফর করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। জুলাইয়ে তিনি মঙ্গোলিয়ায় অনুষ্ঠিত আসেম সম্মেলনে অংশ নেন। সফর দুটিতে চুক্তি ও সমঝোতা স্মারক, বিনিয়োগ ও প্রকল্প প্রস্তাবনা এবং উচ্চপর্যায়ের গৃহীত সিদ্ধান্ত বাস্তবায়ন ও এর অগ্রগতি নিয়ে সভাটি অনুষ্ঠিত হয়েছিল। সভার কার্যবিবরণীতে প্রাপ্ত তথ্য অনুযায়ী ধর্ম মন্ত্রণালয় জানায়, প্রধানমন্ত্রীর সফরের পর দ্বিপক্ষীয় সিদ্ধান্ত অনুযায়ী প্রতি জেলা ও উপজেলায় একটি করে মডেল মসজিদ ও সাংস্কৃতিক কেন্দ্র স্থাপন-সংক্রান্ত প্রাথমিক প্রকল্প প্রস্তাব অর্থনৈতিক সম্পর্ক বিভাগ ও পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে পাঠানো হয়েছে। এ বিষয়ে একটি ধারণাপত্রও তৈরি করা হয়েছে। এ ছাড়া সৌদি সরকারের বিবেচনার জন্য প্রকল্প প্রস্তাবটি ইতিমধ্যে রিয়াদে বাংলাদেশ দূতাবাসেও পাঠানো হয়েছে। তবে ওই প্রকল্প প্রস্তাবটি সংশোধনের তাগিদ দিয়ে সংশোধিত প্রস্তাব থেকে প্রকল্প কর্মকর্তাদের বেতন-ভাতা, জমি অধিগ্রহণ ও ভূমি উন্নয়ন-সংক্রান্ত ব্যয় বাদ দেওয়ার জন্য ধর্ম মন্ত্রণালয়কে পরামর্শ দেয় প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়। এ ছাড়া মসজিদ নির্মাণ-সংক্রান্ত সংশোধিত প্রস্তাবটি আবারও সৌদি সরকারের কাছে পাঠানোর জন্য পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় অথবা রিয়াদে বাংলাদেশ দূতাবাসের সঙ্গে যোগাযোগের পরামর্শও দেওয়া হয়। এ ছাড়া ইসলামী আরবি বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপনে কেরানীগঞ্জে ২০ একর জমি অধিগ্রহণের জন্য স্থান নির্বাচন করা হয়েছে বলে সভার কার্যবিবরণীতে জানানো হয়। সেখানে বলা হয়, প্রস্তাবিত বিশ্ববিদ্যালয় সম্প্রসারণ ও উন্নয়নে সৌদি সরকারের সহায়তা প্রাপ্তির লক্ষ্যে একটি প্রকল্প প্রস্তাব তৈরির জন্য শিক্ষা মন্ত্রণালয়কে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে।

প্রতি মুহুর্তের সর্বশেষ খবর পেতে এখানে ক্লিক করে আমাদের ফেইসবুক পেইজে লাইক দিন

(লেখাটি পড়া হয়েছে 818 বার)


Print
এই পাতার আরও সংবাদ