দোহারে বন্যায় বিদ্যায়লয়ে শিক্ষার্থী শূন্য

Print

মোঃ জাকির হোসেন, জেলা প্রতিনিধি : ঢাকার দোহারে প্রাথমিক বিদ্যালয় খোলা থাকার পরও শিক্ষার্থী শূন্য হয়ে আছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। বন্যার কারনে আসতে পারছে না শিক্ষার্থীরা বলে দাবি শিক্ষকদের। জানা যায়, দোহার উপজেলার মুকসুদপুর ইউনিয়নের ঢালার পাড়, মধুরখোলা, পূর্বচর, মৌড়লা, নারিশার চৈতাবাতর,গোদাবাড়ি,মালিকান্দা,সুতারপাড়া, মেঘুলা,বিলাসপুরের মাঝিরচর, কাজিরচর, নূরপুর, কার্তিকপুর, মাহমুদপুর, নয়াবাড়ি ও শিলাকোঠা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যায়ল গুলো যদিও খোলা প্রতিটি বিদ্যালয়ে দুই-তিন জন শিক্ষক উপস্থিত থাকলেও শিক্ষার্থী শূন্য হয়ে আছে বিদ্যালয় গুলো। সরেজমিনে দেখা যায়, বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ১০ টায় পূর্বচর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যলয়ে একজন সহকারি প্রধান শিক্ষিকা ইয়াসমিন আক্তার (৩০) লাইব্রেরীতে বসে মোবাইলে কথা বলছে। বিদ্যালয় বন্ধ কি না জানতে চাইলে বলেন, স্কুল খোলা আছে, বন্যার কারনে ছাত্র ছাত্রী ও অন্য শিক্ষকরা কেউ আসে নাই। সে পুনঃরায় কথা বলতে লাগলো। চৈতাবাতর গিয়ে দেখা যায়, জাতীয় পতাকা উড়ছে ঠিকই কিন্তু কোন শিক্ষক ও শিক্ষার্থীরা কেউ নেই। স্থানীয় বাসিন্দা কায়ুম খান জানায়, সকাল ১০ টায় এক শিক্ষক পতাকা উড়িয়ে চলে যায়, অন্য এক শিক্ষক দুপুরে পতাকা নামিয়ে চলে যায়। মাঝির চর স্কুলে গিয়ে দেখা যায়, কামাল, মবিন, আবজাল নামে তিন শিক্ষক উপস্থিত আছে শুধু স্কুলটিতে শিক্ষার্থী নেই। নুরপুর, মেঘুলা, মালিকান্দা ও নয়াবাড়ি গিয়ে দেখা যায়, একজন বা দুই জন শিক্ষক উপস্থিত আছে কিন্তু শিক্ষার্থী নেই। স্থানীয় বাসিন্দা আব্দুল কাদের জানায়, দোহারে বন্যায় প্লাবিত হয়েছে নিম্নাঞ্চল, এই সব বিদ্যালয়ে শিক্ষার্থী শুন্য হওয়ার মানি হয় না।

প্রতি মুহুর্তের সর্বশেষ খবর পেতে এখানে ক্লিক করে আমাদের ফেইসবুক পেইজে লাইক দিন

(লেখাটি পড়া হয়েছে 183 বার)


Print
এই পাতার আরও সংবাদ