দোহারে বাড়িতে আশ্রয় নিয়ে সেই বাড়ি দখল নেওয়ার চেষ্টা আহত শিশুসহ -২

Print
( স্টাফ রিপোর্টার) ঢাকার দোহারে ফজলুর খালসীর পরিবারকে এক বাড়িতে আশ্রয় দিলে সেই বাড়িটি দখল নেওয়ার চেষ্টায় তুচ্ছ ঘটনায় বাড়ির মালিকের কন্যা সালমা সান্তা ( ৩৫) ও নাতনি মনিরা আক্তার (২) কে পিটিয়ে আহত করার অভিযোগ পাওয়া যায়। এ ঘটনা উপজেলার মুকসুদপুর ইউনিয়নের দক্ষিন মধুর খোলা এলাকায় ঘটে। আহত সালমা এবং মনিরা উপজেলার দক্ষিন মধুরখোলা গ্রামের হাজী মোঃ কফিল উদ্দিন আকন্দের মেয়ে ও নাতনি। স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, ঢাকার দোহার উপজেলার মুকসুদপুর ইউনিয়নের দক্ষিন মধুর খোলা এলাকায় হাজী মোঃ কফিল উদ্দিন আকন্দ এর বাগান বাড়িতে একই এলাকার মৃত কোরবান খালাসীর ছেলে ফজলুর খালাসী তার তিন নাম্বার স্ত্রী ও ছেলে মেয়ে নিয়ে ২০০৬ সালে আশ্রয় নেয়। একই সালে হাজী কফিল আকন্দ এর সাথে আশ্রয় নেওয়া ফজলুর খালাসী গংদের সাথে একটি মারামারির ঝামেলা হলে হাজী কফিল এর মেয়ে সালমা বাদী হয়ে ফজলুর খালাসী গংদের বিরোদ্ধে আদালতে একটি মামলা করে। সে মামলাটি এখনও বিচারীধীন আছে। পরে জমি ও বাড়ির মালিক কফিল আকন্দ তাদের বাড়ি ছেড়ে দিতে বললে উল্টো তারা কফিল আকন্দের পরিবারকে মেরে ফেলার হুমকি প্রদান করে। ২০১৬ সালের ডিসেম্বরে সালমা সান্তা বাদী হয়ে ফজলুর গংদের বিরোদ্ধে আরো একটি উচ্ছেদ মামলা করেন। মামলার নং ২৪৩। বুধবার সকালে ঘূর্ণিঝড়ে সালমাদের একটি গাছের ডালা যাদের আশ্রয় দিয়েছে তাদের ঘরের চালায় পরলে তারা জমি ও ঘড়ের মালিকের কন্যা সালমা সান্তা এবং দুই বছরের শিশু কন্যা মনিরাকে তারা পিটিয়ে আহত করে। পরে সালমার ছোট বোন সাহনাজ আক্তার বাদী হয়ে ফজলুর খালাসী, পিতা- কোরবান খালাসী, বিথী- স্বামী আবুকালাম ও অজ্ঞাত চার, পাঁচজনকে আসামী করে দোহার থানায় একটি সাধারন ডায়েরী করেন। যাহার জিডি নং -৫৩৬। এই ব্যাপারে ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে এস, আই ফরহাদুজ্জামান জানায়, তদন্ত করে আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

প্রতি মুহুর্তের সর্বশেষ খবর পেতে এখানে ক্লিক করে আমাদের ফেইসবুক পেইজে লাইক দিন

(লেখাটি পড়া হয়েছে 1273 বার)


Print
এই পাতার আরও সংবাদ