নারীকে সম্মান করার অর্থ হলো মা’কে সম্মান করা : চুমকি

Print

মহিলা ও শিশু বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী মেহের আফরোজ চুমকি বলেছেন, প্রতিটি নারী একজন মা। আমরা যদি মা’কে সম্মান করতে চাই আমাদের উচিৎ প্রতিটি নারীকে সম্মান করা।আর নারীকে সম্মান করার অর্থ হলো মা’কে সম্মান করা
তিনি পুরুষদের উদ্দেশ্যে বলেন, আপনাদের স্ত্রীরাও কারো না কারো মা। আপনারা যদি আপনাদের মা’কে শ্রদ্ধা করেন তাহলে আপনাদের উচিৎ আপনাদের স্ত্রীকেও শ্রদ্ধা করা।
প্রতিমন্ত্রী আজ রাজধানীর ইস্কাটনে মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তরের সম্মেলন কক্ষে মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তর কর্তৃক আয়োজিত বিশ্ব মা দিবস উপলক্ষে স্বপ্নজয়ী মাদেরকে সম্মাননা ও পুরষ্কার প্রদান অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় একথা বলেন।
মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তরের মহা পরিচালক শাহীন আহমেদ চৌধুরী’র সভাপতিত্বে উক্ত অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সচিব নাছিমা বেগম এনডিসি ও মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তরের অতিরিক্ত পরিচালক শাহনেওয়াজ দিলরুবা।
এ উপলক্ষে মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তর আজ সফল ১৫জন মাকে সম্মাননা প্রদান করেছে । স্বপ্নজয়ী মা’রা হলেন: রাঙ্গামাটির বালা চাকমা , মানিকগঞ্জের হাজেরা খাতুন ও সালেহা আক্তার; যশোরের রাবেয়া খাতুন, ঝিনাইদহের আফরোজা বুলবুল, রাবেয়া বেগম, মৌক্কারা খাতুন, রেবেকা খানম ও রিজিয়া খাতুন, নওগাঁর ড. ফাল্গুনী রানী চক্রবর্তী, ময়মনসিংহের প্রভা দেবী ও অরুনা দে ,পঞ্চগড়ের রওশন আরা বেগম, ঠাকুরগায়ের সাহেরা বেগম, মাগুড়ার মমতা মজুমদার।
মেহের আফরোজ চুমকি বলেন, সন্তান জন্ম দিতে গিয়ে দেশে আর একটি মাও যেন মারা না যায় সে লক্ষ্যে কাজ করছে সরকার। তিনি মায়েদের উদ্দেশ্যে বলেন, ‘আপনারা আপনাদের সন্তানদের প্রতি গভীর মনোযোগ রাখবেন। সকল সন্তানের পক্ষে পরীক্ষায় প্রথম হওয়া বড় কথা নয়, ভাল মানুষ হয়ে বেড়ে উঠাই বড় কথা। এ লক্ষ্যে মায়েদের আরো বেশি যতœশীল হতে হবে।
নাছিমা বেগম বলেন, মা তার সন্তানের জন্য সবরকমের ত্যাগ স্বীকার করতে প্রস্তুত থাকেন। কখনো কখনো মা তার পরিচয় ভুলে গিয়ে সন্তানের পরিচয়ে পরিচিত হতেও আনন্দবোধ করেন।
মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তর আজ সফল ১৫জন মাকে সম্মাননা প্রদান করেছে এবং এই মাদের সন্তানরা বিভিন্ন সেক্টরে প্রতিষ্ঠিত। স্বপ্নজয়ী মা’রা হলেন: রাঙ্গামাটির বালা চাকমা; মানিকগঞ্জের হাজেরা খাতুন ও সালেহা আক্তার; যশোরের রাবেয়া খাতুন; ঝিনাইদহের আফরোজা বুলবুল, রাবেয়া বেগম, মৌক্কারা খাতুন, রেবেকা খানম ও রিজিয়া খাতুন; নওগাঁর ড. ফাল্গুনী রানী চক্রবর্তী; ময়মনসিংহের প্রভা দেবী ও অরুনা দে; পঞ্চগড়ের রওশন আরা বেগম; ঠাকুরগায়ের সাহেরা বেগম, মাগুড়ার মমতা মজুমদার। সম্মাননা প্রাপ্ত সকল মায়েদের সন্তানরা বিভিন্ন ক্ষেত্রে প্রতিষ্ঠিত। পত্রিকায় বিজ্ঞাপনের মাধ্যমে মাদের কাছ থেকে আবেদন আহ্বান করা হয়। আবেদন সমূহ যাচাই বাছাই করে শ্রেষ্ঠ ১৫জন মা’কে এই সম্মাননা প্রদান করা হয়।

প্রতি মুহুর্তের সর্বশেষ খবর পেতে এখানে ক্লিক করে আমাদের ফেইসবুক পেইজে লাইক দিন

(লেখাটি পড়া হয়েছে 26 বার)


Print
এই পাতার আরও সংবাদ