নৈকাঠি বাজারে একরাতে ৫দোকানে সিরিজ চুরির ঘটনায় আতংক

Print

ওসি মুনিরকে বার বার জানালেও আসেনি
নৈকাঠি বাজারে একরাতে ৫দোকানে সিরিজ চুরির ঘটনায় আতংক


আজমীর হোসেন তালুকদার, ঝালকাঠি:: ঝালকাঠির রাজাপুরের খুন-জখম, সন্ত্রাসী-চাঁদাবাজী ও চোর-ডাকাত কবলিত নৈকাঠি বাজারে এবার একরাতে ৫টি দোকানে দূর্ধর্ষ চুরি সংগটিত হয়েছে। শুক্রবার দিবাগত গভীর রাতে এসকে মার্কেটের ৪টি ও পার্শবর্তী একটিসহ ৫ দোকানের সার্টারের তালা ও ভ্যানটিলেটার ভেঙ্গে প্রবেশ করে চোরেরদল নগদ টাকা, মোবাইলফোন ও ক্যামেরা লুটে নিয়েছে। উপজেলার গুরুত্বপূর্ন নৈকাঠি বাজারে এধরনের সিরিজ চুরির ঘটনায় পুরো বাজারের ব্যাবসায়ীদের মধ্যে আতংক ছড়িয়ে পরেছে।
প্রত্যক্ষদর্শী ও ক্ষতিগ্রস্থ ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের মালিকরা জানায়, শুক্রবার রাতে তারা দোকান বন্ধ করে বাড়ীতে চলে যাওয়ার পর অজ্ঞাত চোরেরদল একযোগে ৫টি দোকানের সার্টারে লাগানো তালা ও ভ্যানটিলেটার ভেঙ্গে প্রবেশ করে লুটপাট চালায়। এর মধ্যে ওসমান তালুকদার মধুর মেসার্স তালুকদার ট্রেডাস গ্যাস, জ্বালানী তেল ও সেনিটারী দোনের ভ্যানটিলেটার ভেঙ্গে প্রবেশ করে নগদ ৩২ হাজার টাকা ও ১টি মোবাইল ফোন, মোঃ জুবায়ের হোসেনের শেফা মেডিক্যালের তালা ভেঙ্গে ডুকে নগদ ১৪ হাজার টাকা ও ডায়াবেটিকস মেশিন ১টি, নাইম সরদারের নাইম ষ্টিডিও থেকে ২০ হাজার টাকা মুল্যের একটি ক্যামেরা ও প্রায় ১০ হাজার টাকার মোবাইল পার্স, তন্নি এন্টারপ্রাইজ এর তালা ভেঙ্গে ফেলে এবং কবির হোসেনের খালিদ মটর্স নামে জ্বালানী তেল ও মটর পার্সের দোকান থেকে নগদ ৩৮ হাজার টাকা ও ১টি মোবাইলসেট সহ লক্ষাধিক টাকার মালামাল লুটে নেয়।
খবর পেয়ে ঘটনাস্থল ছুটে আসেন সাতুরিয়া ইউপি চেয়ারম্যান সিদ্দিকুর রহমান, জেলাপরিষদ সদস্য আঃ সোবাহান, ইউপি সদস্য সিরাজুল ইসলাম, মহিলা মেম্বর সাসিমা পারভিন, স্থানীয় চৌকিদার শাহাদাত হোসেনসহ গন্যমান্য লোকজন। এসময় তারা নৈশপ্রহরীদের সাথে আলাপকালে স্থানীয় কাঠিপাড়া গ্রামের শাহআলম মাঝির কিশোর পুত্র রাকিব মাঝি (১১) নামে একটি ছেলেকে আটক করে। পরে রাজাপুর থানার ওসিকে জানানো হলেও তিনি এসআই কালামকে পাঠালে ছেলেটিকে তার হাতে তুলে দেয়া হয়েছে।
এ ঘটনায় নৈকাঠি বাজারের নৈশপ্রহরী মোঃ মোস্তফা ও আঃ বারেক সিকদার জানায়, তারা প্রতিদিনের ন্যায় পাহাড়া দেয়ার সময় বাজারেরই একটি চায়ের দোকানের সামনে দাড়ানো অবস্থায় রাত প্রায় ১২ টার দিকে শুক্তাগর ইউনিয়নের চরকেওতা গ্রামের মাসুদ (৩০), নৈকাঠি গ্রামের সংখ্যালঘু যুবক রনি (২৬), সিকদার পাড়ার মনসুর সিকদারের পুত্র নান্নু সিকদার ও তোতা সিকদারের ছেলে মনু সিকদার (২৮) কে এই এলাকায় ঘোরাফেরা করতে দেখেছে। তবে দোকানগুলোতে কে বা কারা চুরি করেছে তা আমাদের চোখে পরেনি।
সরেজমিন ঘটনাস্থল পরিদর্শনকালে নৈকাঠি বাজারে ব্যবসায়ী ও এলকাবাসী ক্ষোভপ্রকাশ করে বলেন, ‘এলাকায় এক রাতে ৫টি দোকানে সিরিজ চুরির ঘটনার পর বেশ কয়েকবার রাজাপুর থানার ওসি মুনির উল গিয়াসকে ফোন করা হলেও তিনি এক মূহুর্তের জন্য ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেনি। বরং চিহ্নিত জামায়াত নেতার বাড়ীতে আস্ত খাসির মাথা দিয়ে বা কুখ্যাত ডাকাত সরদারের বাড়ীতে দাওয়াত করে খায়ালে সেখানে উপস্থিত হতে ভূল করেনা। তাই এ চুরির পর থেকে আমরা দারুন উৎকন্ঠায় দিন কাটাচ্ছি।

প্রতি মুহুর্তের সর্বশেষ খবর পেতে এখানে ক্লিক করে আমাদের ফেইসবুক পেইজে লাইক দিন

(লেখাটি পড়া হয়েছে 57 বার)


Print
এই পাতার আরও সংবাদ