পুরুষদের পেটে চর্বি জমা হয় কেন?

Print
পুরুষদের পেটে চর্বি জমা হয় কেন?

পুরুষদের ওজন বাড়লে তাদের পেটে চর্বি জমা হয় কেন? যখন পুরুষদের ওজন বাড়ে তখন তাদের ওজন জমা হওয়ার প্রধান জায়গাটি হয় পেট। বিষয়টিকে অনেকটা একটি গাড়ির ট্রাঙ্কের সঙ্গে তুলনা করা যেতে পারে।

এমনটাই বলেছেন ড. ঝাওপিং লি। যিনি লস অ্যাঞ্জেলেসের ক্যালিফোর্নিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের সেন্টার ফর হিউম্যান নিউট্রিশন এর পরিচালক হিসেবে কর্মরত আছেন।

তিনি বলেন, লোকে যেমন করে পার্কে পিকনিক করার জন্য একটি গাড়ির ট্রাঙ্ক মালসামান বোঝাই করে নিয়ে যান তেমনি করে পেটেও চর্বি জমা হয়।

পুরুষরা যদি খুব বেশি খাবার খান এবং যথেষ্ট ব্যায়াম না করেন তখন একটি মালসামান ঠাসা গাড়ির ট্রাঙ্কের মতোই তার পেটেও চর্বি জমা হতে থাকে। এবং পেটের আকার অস্বাভাবিকহারে বাড়তে থাকে। আর পেটে যখন চর্বি জমা করার আর কোনো জায়গা না থাকে তখন শরীরের অন্যান্য জায়গায় চর্বি জমা হতে থাকে। যা খুবই অস্বাস্থ্যকর।

লি বলেন, “পেটে চর্বি জমা হওয়ার মতো আর কোনো জায়গা না থাকলে লিভার, অগ্ন্যাশয় এবং মাংসপেশিতে চর্বি জমা হতে থাকে। আর এর ফলে টাইপ টু ডায়াবেটিস, উচ্চরক্তচাপ, উচ্চ কোলোস্টেরল এবং হৃদরোগের মতো রোগ দেখা দেয়। ”

বিপরীতে এস্ট্রোজেন হরমোনের কারণে নারীদের দেহের অতিরিক্ত চর্বি জমা হয় মূলত তাদের পশ্চাদ্দেশ এবং পায়ে। বিশেষ করে তাদের উরুতে চর্বি জমা হয় বেশি। আর এই অতিরিক্ত চর্বি নারীদের গর্ভাবস্থায় এবং সন্তানকে স্তন পান করানোর সময় বেশ সহায়ক ভুমিকা পালন করে।

লি বলেন, নারীরা জিনগতভাবেই চর্বি জমা করার ক্ষেত্রে পুরুষের চেয়ে বেশি সক্ষমতার অধিকারী। আর এটা আমাদের বেঁচে থাকারই একটি অংশ।

তবে পেটে চর্বি জমা হলে যতটা সমস্যা হয় পায়ে বা উরুতে চর্বি জমা হওয়ার ফলে ততটা সমস্যা হয় না। অবশ্য পশ্চাদ্দেশ এবং পায়ে চর্বি জমা হওয়ার আর কোনো জায়গা না থাকলে তখন নারীদেরও পেটে চর্বি জমা হয়। এরপর পেটেও আর কোনো জায়গা না থাকলে তখন দেহের অন্যান্য অংশে চর্বি জমা হয়।

অধিকন্তু, নারীদের মেনোপোজ শুরু হওয়ার পর তাদের দেহে এস্ট্রোজেন হরমোনের মাত্রা কমে আসে। এরপর নারীদের দেহ তাদের পশ্চাদ্দেশ এবং পায়ে চর্বি জমা করা বন্ধ করে দেয়। এর পরিবর্তে বরং পেটে চর্বি জমা করা শুরু করে। আর এ কারণেই অনেক বয়স্ক নারীদেরও পুরুষদের মতোই পেট বড় হয়ে যায়।
সূত্র : লাইভ সায়েন্স

প্রতি মুহুর্তের সর্বশেষ খবর পেতে এখানে ক্লিক করে আমাদের ফেইসবুক পেইজে লাইক দিন

(লেখাটি পড়া হয়েছে 263 বার)


Print
এই পাতার আরও সংবাদ