পৃথিবীর চেয়েও বেশি পানি নতুন ৭ গ্রহে

Print

প্রাণবৈচিত্র্যে ভরপুর পৃথিবীর চার ভাগের তিন ভাগ জুড়েই আছে পানি। বাকি এক ভাগ স্থল। তবে পানির পরিমাণে পৃথিবীকে ছাড়িয়ে যাবে নতুন আবিষ্কৃত সাতটি ‘পৃথিবী’। বিজ্ঞানীরা বলছেন, নতুন ওই সাত গ্রহ টইটম্বুর হয়ে আছে তরল পানিতে। ওগুলো পূর্ণ অতল, আদিগন্ত তরল পানির সাগর, মহাসাগর। সেই পানি কোনো পুরু বরফের চাদরে ঢাকা নেই, বরফ হয়ে নেই, এমনকি বরফগলা পানিও তা নয়। যে তাপমাত্রা ও বায়ুচাপে পৃথিবীর সাগর-মহাসাগরের পানি তরল অবস্থায় থাকতে পারে, ঠিক সেই তাপমাত্রা আছে বলেই সদ্য আবিষ্কৃত নতুন সাত ‘পৃথিবী’র পানিও রয়েছে একেবারে তরল অবস্থায়। ওই সাত ‘পৃথিবী’র প্রধান আবিষ্কারক জ্যোতির্বিজ্ঞানী মিশেল গিলন এক সাক্ষাৎকারে এ কথা জানিয়েছেন।
গত ২২ ফেব্রুয়ারি ওয়াশিংটনে নাসার সদর দপ্তরে যে পাঁচ বিজ্ঞানী নতুন সাত ‘পৃথিবী’ আবিষ্কারের খবর দেন, বেলজিয়ামের লিগে বিশ্ববিদ্যালয়ের জ্যোতির্বিজ্ঞান, ভূপদার্থবিদ্যা ও সমুদ্রবিজ্ঞান বিভাগের রিসার্চ অ্যাসোসিয়েট মিশেল গিলন তাদের অন্যতম।

মিশেল গিলন বলেন, প্রায় ৪৬০ কোটি বছর আগে যেভাবে জন্ম হয়েছিল আমাদের এই বাসযোগ্য গ্রহের, হয়তো ঠিক সেভাবেই মিল্কিওয়ে গ্যালাক্সিতেই আমাদের খুব কাছের (দূরত্ব ৩৯ আলোকবর্ষ) নক্ষত্রম ল ‘ট্রাপিস্ট-১’-এর সদ্য আবিষ্কৃত সাত গ্রহ গড়ে ওঠেনি। মহাকাশে নাসার স্পিৎজার টেলিস্কোপের পাশাপাশি আরও দুটি সুবিশাল টেলিস্কোপ হাবল আর কেপলারও এগুলোর দিকে নজর রাখছে। আগামী বছর নাসা মহাকাশে পাঠাচ্ছে জেমস ওয়েব স্পেস নামে আরও বড় ও উন্নত টেলিস্কোপ। গিলনের আশা, হয়তো আগামী বছর বা তার পরের বছরের মধ্যেই আমরা জানতে পারব ঠিক কতটা পানিতে পূর্ণ নতুন সাত ‘পৃথিবী’।
এই বিজ্ঞানী বলেন, এখনও নতুন সাত ‘পৃথিবী’র বায়ুম ল, আবহাওয়া, পরিবেশ, বায়ুম লের রাসায়নিক পদার্থ সম্পর্কে আমাদের ধারণাটা কিছুটা ভাসা ভাসা। তাত্তি্বক দৃষ্টিকোণ থেকেই আমরা বলতে পারছি, নতুন সাত গ্রহ পৃথিবীর মতো বাসযোগ্য হতে পারে। তবে এখনও পূর্ণাঙ্গভাবে গ্রহগুলো পর্যবেক্ষণ করা সম্ভব হয়নি। আশার কথা, এই গ্রহগুলোর ভূপৃষ্ঠের তাপমাত্রা শূন্য থেকে ১০০ ডিগ্রি সেলসিয়াসের মধ্যে। এই তাপমাত্রায় পানি খুব সহজেই তরল অবস্থায় থাকতে পারে; প্রাণের জন্ম ও বিকাশেও এই তাপমাত্রা আদর্শ।

প্রতি মুহুর্তের সর্বশেষ খবর পেতে এখানে ক্লিক করে আমাদের ফেইসবুক পেইজে লাইক দিন

(লেখাটি পড়া হয়েছে 215 বার)


Print
এই পাতার আরও সংবাদ