প্রধানমন্ত্রীর ওপর কথা বলার সাহস আপনাকে কে দিল

Print

ষোড়শ সংশোধনী বাতিলের রায়ের পর্যবেক্ষণ নিয়ে প্রধান বিচারপতিকে উদ্দেশ করে শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন আমু বলেছেন, প্রধান বিচারপতি রাষ্ট্রের ক্ষমতা নিয়ে নিতে চান। এই সব ঔদ্ধত্য দেখানোর একটা সীমা আছে। আওয়ামী লীগ সরকার, শেখ হাসিনার সরকার কোনো ঠুনকো দল নয়। কোনো সামরিক জান্তার পকেট থেকে এই দলের সৃষ্টি হয়নি।
তিনি আরও বলেন, আজকে ঘোলা পানিতে মাছ শিকার করার জন্য যারা মাঠে নেমেছে, আপনি ইতিমধ্যে নিশ্চয়ই তাদের চিনতে পেরেছেন। তারা আপনার বন্ধু নয়। তারা আপনার শত্রু। ভুলে গেলে হবে না, আজকের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, তিনি তিনবারের প্রধানমন্ত্রী। তিনি ক্ষমতায় আসার পর তাকে নানাভাবে হত্যা করার চেষ্টা করা হয়েছে, কিন্তু তাকে কোনো কিছুই দমিয়ে রাখতে পারেনি। তিনি সবকিছুকে উপেক্ষা করে দেশ ও মানুষের জন্য কাজ করে যাচ্ছেন। আজকে তার ওপর কথা বলার সাহস আপনাকে কে দিল? আজকে কী উদাহরণ দিয়া ভীতিপ্রদর্শন করছেন?’

মন্ত্রী বলেন, পর্যবেক্ষণে দেশের বিরুদ্ধে যে কথা বলা হয়েছে, তা প্রত্যাহার না করলে দেশের মানুষ এগিয়ে আসবে। দেশের মানুষ প্রতিবাদে নামবে। সংসদের বিরুদ্ধে কথা বলার আগে আপনার ভাবা উচিত ছিল, এই সংসদের মাধ্যমেই আপনার নিয়োগ। এই সংসদের রাষ্ট্রপতিই আপনাকে নিয়োগ দিয়েছেন। আজকে সেদিকে চিন্তা রেখে ভবিষ্যতে কথা বলবেন।
বৃহস্পতিবার দুপুরে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে ষোড়শ সংশোধনীর রায়ে নারী সংসদ সদস্য সম্পর্কে অবমাননাকর মন্তব্য করা হয়েছে উল্লেখ করে এর প্রতিবাদে যুব মহিলা লীগ এক মানববন্ধনের আয়োজন করে। অনুষ্ঠিত মানববন্ধনে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় আমির হোসেন আমু এসব কথা বলেন।
তিনি বলেন, আজকে অনেক দল, বিশেষ করে বিএনপি নেতারা শেখ হাসিনার বক্তব্যের সমালোচনা করছেন। তারা তো করবেনই। কারণ, তারা তো পাকিস্তানপ্রেমিক। বাংলাদেশে একটা কথা আছে, ‘সব শিয়ালের এক রা’।
যুব মহিলা লীগের সভাপতি নাজমা আকতারের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে বক্তব্য দেন-আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর কবির নানক। মানববন্ধনে যুব মহিলা লীগের কেন্দ্রীয় এবং ঢাকা মহানগর উত্তর ও দক্ষিণের নেতা-কর্মীরা উপস্থিত ছিলেন। অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন – যুব মহিলা লীগের সাধারণ সম্পাদক অপু উকিল ।

প্রতি মুহুর্তের সর্বশেষ খবর পেতে এখানে ক্লিক করে আমাদের ফেইসবুক পেইজে লাইক দিন

(লেখাটি পড়া হয়েছে 239 বার)


Print
এই পাতার আরও সংবাদ