প্রেম প্রত্যাখ্যান করায় নার্সকে কুপিয়ে রক্তাক্ত

Print

বিশ্ব ভালোবাসা দিবসে প্রেমের প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করায় এক নার্সকে ধারাল অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে রক্তাক্ত করেছে আতাউর রহমান নামের এক যুবক। এ ঘটনার পর ওই যুবক পালিয়েছে।
বুধবার সকালে ফরিদপুরের ভাঙ্গা উপজেলা প্রতিবন্ধী সেবা ও সাহায্য কেন্দ্রে এ ঘটনা ঘটে। আহত নার্সের নাম সাবিনা খাতুন (৩০)। গুরুতর আহতাবস্থায় সহকর্মীরা সাবিনাকে উদ্ধার করে ভাঙ্গা হাসপাতালে ভর্তি করেন। তার শরীরের একাধিক স্থানে জখম হয়।

আহত সাবিনা রাজবাড়ী জেলার পাংশা থানার ইঞ্জিনিয়ার জহুরুল হকের স্ত্রী এবং ভাঙ্গা উপজেলা প্রতিবন্ধী সেবা ও সাহায্য কেন্দ্রে চাকরি করেন।
অপরদিকে বখাটে আতাউর রহমান (৩৬) পাবনা জেলার সুজানগর থানার রজব আলীর ছেলে। আতাউর একটি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে চাকরি করেন।
উপজেলা প্রতিবন্ধী সেবা ও সাহায্য কেন্দ্রের চিকিৎসক মো. আব্দুল হাকিম বলেন, গত ১২ ফেব্রুয়ারি সাবিনা খাতুন ভাঙ্গার এই কেন্দ্রে কাজে যোগ দেন।
মঙ্গলবার সকালে তার অফিস রুম থেকে হঠাৎ চিৎকারের শব্দ পেয়ে আমরা এগিয়ে যাই। তখন আতাউর রহমান হাতে রক্তাক্ত ছুরি নিয়ে রুমের ভেতর থেকে দৌড়ে পালিয়ে যান। পরে সাবিনাকে রক্তাক্ত অবস্থায় আমরা হাসপাতালে নিয়ে আসি।
সাবিনার স্বামী ইঞ্জিনিয়ার জহুরুল ইসলাম বলেন, আমি ঢাকায় একটি প্রাইভেট কোম্পানিতে চাকরি করি। এই সুযোগে ওই যুবক আমার স্ত্রীকে দীর্ঘদিন ধরে অনৈতিক প্রস্তাব দিয়ে আসছে। এ নিয়ে আমি থানায় তার বিরুদ্ধে একাধিক জিডি ও অভিযোগ করেছি। কিন্তু তাতেও ওই যুবক থামেনি। আজ সকালে আমার স্ত্রীকে হত্যার উদ্দেশ্যে প্রকাশ্যে কুপিয়ে রক্তাক্ত করে পালিয়ে যায়।
ভাঙ্গা থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সৈয়দ আব্দুল্লাহ বলেন, খবর পেয়ে আমরা দ্রুত ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছি। ঘটনার পর ওই বখাটে পালিয়ে যায়। তাকে গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

প্রতি মুহুর্তের সর্বশেষ খবর পেতে এখানে ক্লিক করে আমাদের ফেইসবুক পেইজে লাইক দিন

(লেখাটি পড়া হয়েছে 199 বার)


Print
এই পাতার আরও সংবাদ