ফিরে দেখা ২০১৬ রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে আলোচিত দশ

Print

আহমেদ ফরিদ, রাবি প্রতিনিধি: বছরের শুরু। পেছনে পড়লো একটি বছর। আর এ সময়ে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে ঘটে গেছে বিভিন্ন আলোচিত-সমালোচিত ঘটনা। সেসব ঘটনায় ক্যাম্পাস ছিলো উত্তপ্ত আর উত্তাল। এই সময়ে হত্যাকা-ের মতো ঘটনাও ঘটেছে। প্রাণ হারিয়েছে কয়েকজন মেধাবী শিক্ষক- শিক্ষার্থী।

২০১৬ সালের যেসব আলোচিত ঘটনা ঘটেছে সেগুলো হলো, গত ২৩ এপ্রিল নগরীর শালবাগান এলাকায় নিজ বাড়ি থেকে ১৫০ গজ দূরে বিশ্ববিদ্যালয়ের ইংরেজি বিভাগের অধ্যাপক ড. এএফএম রেজাউল করিম সিদ্দিকীকে কুপিয়ে হত্যা করে দুর্বৃত্তরা। এ ঘটনায় নিহত অধ্যাপকের ছেলে রিয়াসাত ইমতিয়াজ সৌরভ বাদী হয়ে বোয়ালিয়া থানায় অজ্ঞাতদের নামে হত্যা মামলা দায়ের করেন। হত্যাকা-ের ঘটনায় গত ৬ নভেম্বর আটজনের বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র দাখিল করে পুলিশ। হত্যাকা-ের বিষয়ে নগর গোয়েন্দা শাখার পরিদর্শক ও মামলার তদন্ত কর্মকর্তা রেজাউস সাদিক বলেছিলেন, ‘এ হত্যাকা-টি জেএমবি ঘটিয়েছে। এখানে কোনো সন্দেহ নেই। অভিযুক্তরা সকলেই জেএমবির সক্রিয় সদস্য।’

এর আগের আরেকটি ঘটনা, ২০১৪ সালের ২৮ আগস্ট বিশ্ববিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান প্রকৌশলীকে মারধরের ঘটনায় গত ২৯ মার্চ রাতে সিন্ডিকেটের এক সভায় বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের তিন নেতাকে স্থায়ীভাবে বহিষ্কার করা হয়। বহিষ্কৃত ছাত্রলীগ নেতারা হলেন, বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের তৎকালীন সাধারণ সম্পাদক তৌহিদ আল হোসেন তুহিন, গত কমিটির সহ-সভাপতি তন্ময়ানন্দ অভি ও শহীদ হবিবুর রহমান হল শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি মামুন-অর-রশিদ।

আর ২৮ আগস্ট বিশ্ববিদ্যালয়ের ইসলামের ইতিহাস ও সংস্কৃতি বিভাগের এক শিক্ষকের বিরুদ্ধে আনীত যৌন হয়রানির অভিযোগ মিথ্যা প্রমাণিত হওয়ায় অভিযোগকারী ছাত্রীকে বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্থায়ীভাবে বহিষ্কার করার সিদ্ধান্ত নেয়া হয় উপাচার্যের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত এক সিন্ডিকেট সভায়। এর আগে ঘটনাটি তদন্তে তিন সদস্যবিশিষ্ট একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছিলো।

এরপরে গত ৯ সেপ্টেম্বর বিশ্ববিদ্যালয়ের জুবেরী ভবন থেকে গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক আকতার জাহান জলির মরদেহ উদ্ধার করা হয়। তিনি জুবেরী ভবনের ৩০৩ নম্বর কক্ষে একাই থাকতেন। ওই দিন সন্ধ্যায় জলির ছোটভাই কামরুল হাসান রতন অজ্ঞাত নামাদের নামে নগরীর মতিহার থানায় মামলা দায়ের করেন। এ ঘটনায় গত ৪ নভেম্বর জলির সহকর্মী আতিকুর রহমানকে আত্মহত্যা প্ররোচনার দায়ে গ্রেফতার করে পুলিশ। এখন তিনি জামিনে মুক্ত আছেন। পরে ৩০ নভেম্বর রাতে উপাচার্য অধ্যাপক ড. মুহম্মদ মিজানউদ্দিনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সিন্ডিকেটের ৪৬৯তম সভায় জলির মৃত্যুর ঘটনায় সহকর্মী আতিকুরকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়। এছাড়া আরেক শিক্ষক জলির সাবেক স্বামী তানভীর আহমেদের বিরুদ্ধে দায়ের করা অভিযোগ তদন্তে তিন সদস্যের কমিটি গঠন করা হয়।
এদিকে গত ১৮ অক্টোবর বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক শরিফুল ইসলাম সাদ্দামের হুমকির পরও অনাকাঙ্খিত ঘটনা এড়াতে বিশ্ববিদ্যালয়ের ইনফরমেশন সায়েন্স এ্যান্ড লাইব্রেরী ম্যানেজমেন্ট বিভাগের চতুর্থ বর্ষের চূড়ান্ত পরীক্ষা পুলিশি পাহারায় গ্রহণ করা হয়।
আর ২০ অক্টোবর নবাব আব্দুল লতিফ হলের ডাইনিংয়ের পেছনের নর্দমা থেকে গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্র মোতালেব হোসেন লিপুর রক্তাক্ত লাশ উদ্ধার করা হয়। প্রাথমিকভাবে এ ঘটনাকে হত্যাকা- বলে জানিয়েছিলেন রাজশাহী মহানগর পুলিশের উপ-কমিশনার (পূর্ব) আমীর জাফর। লিপু ওই হলের আবাসিক শিক্ষার্থী ছিলেন ও ২৫৩ নম্বর কক্ষে থাকতেন। আর এ ঘটনায় এখন পর্যন্ত শুধুমাত্র লিপুর রুমমেট মনিরুলকে আটক করে রিমান্ডে নেওয়া হয়। পরে তাকে গ্রেফতার দেখিয়ে জেলে পাঠানো হয়। এ বিষয়ে মামলার তদন্ত কর্মকর্তা অশোক চৌহান বলেন, ‘হত্যার কারণ বলার মতো এখনও তেমন কিছু জানা যায়নি। লিপুর রুমমেট মনিরুল কিছু তথ্য দিয়েছিলো সেগুলো যাচাই-বাছাই করে আবার তার রিমান্ড আবেদন করা হয়েছিল। ম্যাজিস্ট্রেট কোর্টে তার শুনানি ছিল ১৫ নভেম্বর। কিন্তু রিমান্ড শুনানির আগে গত ৮ নভেম্বর জজ কোর্ট থেকে সে জামিন পায়।’
এদিকে বড় ধরনের অপ্রীতিকর ঘটনা ছাড়ায় ২০১৬-১৭ শিক্ষাবর্ষের স্নাতক সম্মান ও স্নাতক শ্রেণিতে চার দিনব্যাপী ভর্তিপরীক্ষা ২৪ অক্টোবর থেকে ২৭ অক্টোবর পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়।

এদিকে গত ০৮ নভেম্বর সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন কার্যক্রম সম্পর্কে ‘আপত্তিকর’ মন্তব্য করার অভিযোগে বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার অধ্যাপক এন্তাজুল হক নগরীর মতিহার থানায় তথ্য প্রযুক্তি আইনে বিশ্ববিদ্যালয়ের কম্পিউটার সায়েন্স এন্ড ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের সহকারী অধ্যাপক কাজী জাহিদুর রহমানের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করেন। এর পাঁচদিন পর ১৩ নভেম্বর তথ্য প্রযুক্তি আইনে মামলাটি রেকর্ড করা হয়। পরে ৫ ডিসেম্বর হাইকোর্ট থেকে আগাম জামিন পেয়েছেন ওই শিক্ষক।

গত ৮ ডিসেম্বর বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবাস বাংলাদেশ মাঠে রাবি ছাত্রলীগের ২৫তম সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। সম্মেলনের চতুর্থ দিনের মাথায় ১১ ডিসেম্বর রোববার গোলাম কিবরিয়াকে সভাপতি এবং ফয়সাল আহমেদ রুনুকে সাধারণ সম্পাদক করে এ কমিটি ঘোষণা করে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ। গত কমিটির মতো এবারও স্থানীয়দের প্রাধান্য দেয়া হয়। নতুন কমিটির সভাপতি কিবরিয়ার বাড়ি বিশ্ববিদ্যালয় সংলগ্ন বুধপাড়া এলাকায়। আর সাধারণ সম্পাদক রুনুর বাড়ি রাজশাহী মহানগরীর নওহাটায়। এর আগে বছরের শুরুতে ১৬ জানুয়ারি দলীয় শৃঙ্খলা ভঙ্গের দায়ে শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি এম মিজানুর রহমান রানাকে বহিষ্কার করে সহ-সভাপতি রাশেদুল ইসলাম রাঞ্জুকে ভারপ্রাপ্ত সভাপতি করা হয়।

সর্বশেষ গত ২১ ডিসেম্বর বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষা ও গবেষণা ইনস্টিটিউটের (আইইআর) এক নিয়োগ পরীক্ষা বন্ধ করে দেয় রাজশাহী মহানগর আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা। পরে ২৩ ডিসেম্বর বিশ্ববিদ্যালয়ের তৃতীয় শ্রেণির কর্মচারী আরেক নিয়োগ পরীক্ষা বন্ধ করে দেয় আওয়ামী লীগ ও বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগ নেতাকর্মীরা। এ সময় তারা পরীক্ষা বন্ধে বিভিন্ন ভবনের গেটের তালায় সুপার গ্লু ও বিশ্ববিদ্যালয়ের সবগুলো প্রবেশ পথ বন্ধ করে বিক্ষোভ করতে থাকে।

প্রতি মুহুর্তের সর্বশেষ খবর পেতে এখানে ক্লিক করে আমাদের ফেইসবুক পেইজে লাইক দিন

(লেখাটি পড়া হয়েছে 194 বার)


Print
এই পাতার আরও সংবাদ
error: ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি