বড়লোক হতে চান, সাতটি জিনিস বাড়ি থেকে সরান

Print

সাতটি জিনিস বাড়ি থেকে সরিয়ে হয়ে উঠুন বড়লোক

সামান্য কিছু টাকার জন্য দিন-রাত পরিশ্রম করে সকলে। কিন্তু তবুও বিলাসবহুল জীবনযাপন আর কতজনই বা করতে পারে? তবে এই বিষয়টিকে ঘিরে রয়েছে বেশ কিছু বিশ্বাসও। তবে আপনিও যদি বড়লোক হতে চান, তাহলে এই বিশেষ কিছু নিয়ম আপনাকে মেনে চলতেই হবে। বাস্তুশাস্ত্র অনুযায়ী, ঘরে সুখ স্বাচ্ছন্দ্যের জন্য রয়েছে বিশেষ কিছু নিয়ম। আপনার ঘরে কি এই বিশেষ জিনিসগুলি রয়েছে? তাহলে এখন থেকেই সতর্ক হয়ে যান।

১) পায়রার বাসা:  ঘরের মধ্যে পায়রার বাসা নেই তো কোথাও? এখনই দেখে নিয়ে সাবধান হয়ে যান। এই পায়রার বাসা যদি থাকে, তাহলে চোখের নিমেষে আপনি হয়ে যেতে পারেন গরীব। এছাড়াও ওই বাড়িতে শুরু হবে পারিবারিক অশান্তি। তাই আপনার বাড়িতে যদি থাকে পায়রার বাসা তাহলে এখনই সাবধান হয়ে যান।

২) মৌমাছির চাক: এই জিনসটিও পরিবারের জন্য খুবই ক্ষতিকর। যদি এমনই একটি চাক গজিয়ে ওঠে আপনার বাড়িতে তাহলে এখন থেকেই সাবধান হয়ে যান। এই চাক আপনার দুর্ভাগ্যের কারণ হয়ে উঠতে পারে।

৩) মাকড়সার জাল: দুর্ভাগ্যের কারণ হয়ে উঠতে পারে এই মাকড়সার জালও। এই জিনিসটিও আপনার জীবনে দারিদ্র্যের কারণ হয়ে দাঁড়াতে পারে।

৪) ভাঙা আয়না: বাস্তুশাস্ত্র অনুযায়ী ভাঙা কাঁচও বাড়ির জন্য খুবই ক্ষতিকর হতে পারে। এই ভাঙা আয়না নেগেটিভ এনার্জি ডেকে আনতে পারে জীবনে। তাই এখনই ঘরের মধ্যে যদি কোনও ভাঙা কাঁচ থাকে তাহলে বাড়ি থেকে সেগুলো ইতিমধ্যেই সরিয়ে দিন।

৫) বাদুড়: বাড়ির জন্য সবথেকে ক্ষতিকর এই বাদুড়টি। এরফলে মৃত্যু অবধি ঘনিয়ে আসতে পারে জীবনে।

৬) ছিদ্রময় কল: বাড়িতে কল থেকে জল পড়া খুবই সাধারণ একটা ব্যাপার। কিন্তু এই বিষয়টিও হয়ে উঠতে পারে মারাত্মক। পজিটিভ এনার্জি ঘর থেকে আসতে আসতে বেরিয়ে যেতে পারে।

৭) বারান্দা: বাড়ির বারান্দা মাঝে মধ্যেই হয়ে ওঠে ঘরের স্টোর রুম। বাতিল হয়ে যাওয়া সমস্ত আলমারি, খাট ওই সমস্ত জিনিস রাখার জায়গা হয়ে ওঠে সেটি। আপনার বাড়িতেও যদি এমনই এক বারান্দা থাকে তাহলে অবিলম্বে সেটি পরিষ্কার করুন। এমন বারান্দা আপনার দারিদ্র্যে কারণ হয়ে দাঁড়াতে পারে।

এই সমস্ত জিনিসগুলি যদি আপনার ঘরে থাকে তাহলে অবিলম্বে তা সরিয়ে ফেলুন। তাহলেই আপনি হতে পারবেন সমাজের এক প্রভাবশালী ব্যক্তি।

প্রতি মুহুর্তের সর্বশেষ খবর পেতে এখানে ক্লিক করে আমাদের ফেইসবুক পেইজে লাইক দিন

(লেখাটি পড়া হয়েছে 795 বার)


Print
এই পাতার আরও সংবাদ