বান্দরবানের লামায় বিএনপি’র সমাবেশে মিথ্যাচারের বিরুদ্ধে উপজেলা বিএনপি’র সংবাদ সম্মেলন

Print

মোঃ ইউছুপ মজুমদার, বান্দরবান প্রতিনিধি : বান্দরবানের লামায় জেলা বিএনপি নতুন কমিটির আগমন উপলক্ষ্যে পৌর বিএনপি কর্তৃক আয়োজিত সদস্য সংগ্রহ ও নবায়ন অনুষ্ঠানে সাম্প্রদায়িক বক্তব্য ও মিথ্যাচারের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ জানিয়ে সংবাদ সম্মেলন করেছে লামা উপজেলা বিএনপি। বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ৭টায় উপজেলা বিএনপি কার্যালয়ে সভাপতি আমির হোসেন ও সাধারণ সম্পাদক থোয়াইনু অং চৌধুরী এই সংবাদ সম্মেলন করেন। এই সময় শতাধিক নেতাকর্মী উপস্থিত ছিলেন। লিখিত বক্তব্যে উপজেলা বিএনপি সভাপতি আমির হোসেন বলেন, আওয়ামী লীগের অলিখিত কার্যালয় হিসেবে চিহ্নিত লামা বাজারের জেলা পরিষদ গেষ্ট হাউজে মিটিং করে বিএনপি’র একাংশ (মাম্যাচিং ও জাবেদ রেজা) জানান দিল তারা সরকার দলীয় নেতার এজেন্ডা বাস্তবায়ন করতে এসেছে। বিগত উপজেলা নির্বাচনে বান্দরবানে ৭টি উপজেলায় আওয়ামীলীগ উপজেলা চেয়ারম্যান নির্বাচিত করতে পারেনি। তাই সেই পরিকল্পনা বাস্তবায়ন করতে বিএনপি’র এই গ্রুপটিকে সকল দিক থেকে সহায়তা করে বিএনপি’র বিরুদ্ধে কাজ করাচ্ছে আওয়ামীলীগ। বিগত উপজেলা নির্বাচনে জেলা বিএনপি’র সভাপতি সাচিংপ্রু জেরীর মনোনীত প্রার্থী থোয়াইনু অং চৌধুরী সরকার দলীয় প্রার্থীকে ৫ হাজার ভোটের ব্যবধানে হারিয়ে জয়লাভ করেছে। পক্ষান্তরে মাম্যাচিং এর দেয়া প্রার্থী ১ হাজার ভোট পায়নি। তাদের জনপ্রিয়তা শূন্যের কৌটায়। যেখানে সারা দেশে বিএনপি নেতা কর্মীরা হামলা মামলা শিকার সেখানে লামায় পুলিশি ও আওয়ামীলীগের নেতাদের পাহারায় বিএনপি’র এই গ্রুপটি জনসভা করছে। এতেই প্রমাণ হয় তারা কোন পক্ষ হয়ে কাজ করছে। সমাবেশে তারা আমাদের সদস্য সংগ্রহ নিয়ে প্রশ্ন তুলেছে। এই ফরম কেন্দ্র থেকে আমাদের দেয়া হয়েছে। কেন্দ্র আমাদের থেকে গ্রহণ করবে। এখানে মাম্যাচিং ও জাবেদ রেজার কোন প্রয়োজন নেই। আজকের সদস্য সংগ্রহ ও নবায়ন অনুষ্ঠানে ভাড়া করা এবং সরকার দলীয় লোক দিয়ে বিএনপি’র একাংশ মিটিং করেছে। যা জাতীয়তাবাদী আদর্শকে প্রশ্নবিদ্ধ করে। তারা আওয়ামীলীগ মার্কা বিএনপি। বিগত ১০ বছর তাদেরকে রাজপথে দেখা যায়নি। বান্দরবানের কোন উপজেলা, ইউনিয়নে তাদের কোন কার্যক্রম দেখা নেই। হঠাৎ করে একটি ভুয়া কমিটি নিয়ে এসে বান্দরবানের বিএনপি’র রাজনীতিতে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করছে। এই পর্যন্ত তারা তাদের কমিটির লিখিত কোন কাগজ প্রশাসনকে দেখাতে পারেনি। তারা প্রতিদিন এক একটি সহযোগী কমিটিকে বিলুপ্ত ঘোষণা করছে। এতে করে দলের মধ্যে শুরু হয়েছে আত্ম কোন্দলের। দলকে ভালবাসলে তারা এইটা করতে পারত না। মূলত সামনের স্থানীয় ও সংসদ নির্বাচনে বিএনপি’র শক্তিকে দিখন্ডিত করে আওয়ামীলীগের প্রার্থীকে জয়যুক্ত করতে মাঠে নেমেছে এই অংশটি। দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়া দেশের বাহিরে আছেন। তিনি দেশে আসলে বান্দরবানের রাজনীতি নিয়ে বসবেন বলে দলের নীতি নির্ধারক মহল থেকে জানানো হয়েছে।

প্রতি মুহুর্তের সর্বশেষ খবর পেতে এখানে ক্লিক করে আমাদের ফেইসবুক পেইজে লাইক দিন

(লেখাটি পড়া হয়েছে 178 বার)


Print
এই পাতার আরও সংবাদ