বাবার আসনে আ.লীগের মনোনয়ন চান পুত্র-কন্যারা

Print

বাবার আসনে আ.লীগের মনোনয়ন চান পুত্র-কন্যারা

একাদশ জাতীয় নির্বাচনকে সামনে রেখে জোরোশোরেই প্রস্তুতি নিয়ে মাঠে নেমেছে ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগ। প্রার্থী নির্বাচনের কাজও শুরু করেছে দলটির হাইকমান্ড। মনোনয়ন প্রত্যাশীরা মাঠ চষে বেড়াচ্ছেন নিজ নিজ নির্বাচনী এলাকায়। একাদশ জাতীয় নির্বাচনে পিতা এমপি বা মন্ত্রী ছিলেন এমন কয়েকটি পরিবারের সদস্যরা বিশেষ করে তাদের পুত্র ও কন্যারা আওয়ামী লীগের দলীয় মনোনয়ন যাচ্ছেন। আওয়ামী লীগের পারিবারিক ঐতিহ্য, দলের প্রতি আনুগত্য, ক্লিন ইমেজ নিয়ে যেসব আওয়ামী লীগের এমপি-মন্ত্রীদের পুত্র কন্যারা দলের মনোনয়ন চাচ্ছেন তাদের মধ্যে রয়েছেন-

সুনামগঞ্জ-৩ আসন থেকে আওয়ামী লীগের মনোননয় চান বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় উপ-কমিটির সাবেক সহ-সম্পাদক, বাংলাদেশের প্রথম পররাষ্টমন্ত্রী, ভাটি বাংলার কৃতি সন্তান আব্দুস সামাদ আজাদের বড় পুত্র আজিজুস সামাদ আজাদ ডন। ১৯৫৪ সাল থেকে ৬ বারের সংসদ সদস্যের ছেলে হিসাবে নিজ নির্বাচনী এলাকায় গতবারও মনোনয়ন দৌঁড়ে এগিয়ে ছিলেন। শেষ পর্যন্ত দলের সভানেত্রীর নির্দেশে তিনি নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়ান। এবার তিনি আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পাবেন বলে দৃঢ়ভাবে বিশ্বাস করেন।

নরসিংদী ৫ আসন (রায়পুরা) থেকে আগামী নির্বাচনে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন চান দলটির উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য, সাবেক মন্ত্রী ও বর্তমান এমপি রাজি উদ্দিন আহমেদ রাজুর পুত্র রাজিব আহমেদ পার্থ। পিতার আসনে মনোনয়ন নিশ্চিত করতে এলাকায় ব্যাপক যোগাযোগ শুরু করেছেন পার্থ।

স্বাধীন বাংলাদেশের প্রথম জাতীয় সংসদের এমপি ছিলেন চাঁদপুরের ভাষা সৈনিক, বীর মুক্তিযোদ্ধা আবু জাফর মো. মঈনুদ্দিন। বঙ্গবন্ধুর ঘনিষ্ঠ সহচর হিসাবে তিনি চাঁদপুর থেকে সংসদ সদস্য নির্বাচন হয়ে আসেন। তার কন্যা এ্যাড. নূরজাহান বেগম মুক্তা বর্তমান সংসদের সংরক্ষিত নারী আসনের এমপি। এই সংসদ সদস্য এলাকায় ব্যাপক গণসংযোগ চালিয়ে যাচ্ছেন। জনপ্র্রিয় এই এমপি সংসদ ও সংসদের বাইরে ব্যাপক তৎপরতা চালিয়ে যাচ্ছেন। আগামী নির্বাচনে চাঁদপুর-৫ আসনে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন প্রত্যাশী তিনি।

ঝিনাইদহ-১ আসন থেকে নির্বাচন করতে চান আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয়  কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্য পারভিন জামান কল্পনা। আওয়ামী লীগের সাবেক প্রেসিডিয়াম সদস্য কামরুজ্জামানের মেয়ে হিসাবে এলাকায় অনেক আগে থেকেই কাজ করে যাচ্ছেন। তিনি বিশ্বাস করেন শেখ হাসিনার হাতকে আরো শক্তিশালী করতে নির্বাচন করে দলকে জিতিয়ে আনতে চান।

ঝিনাইদহ-২ আসনে বর্তমান এমপি আওয়ামী লীগে সদ্য যোগ দেওয়া মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠন, স্বাধীন বাংলা ছাত্র সংগ্রাম পরিষদের অন্যতম নেতা নূরে আলম সিদ্দিকীর ছেলে তাহজীব আলম সিদ্দিকী সমি মনোনয়ন প্রত্যাশী। তিনি বর্তমান দশম সংসদেরও স্বতন্ত্র সংসদ নির্বাচিত হয়েছেন এবং সম্প্রতি আওয়ামী লীগে যোগ দিয়েছেন। তিনি বিশ্বাস করেন আগামী নির্বাচনে নৌকা প্রতীকে নির্বাচন করে জিতে আসতে পারবেন।

মাগুরা-১ আসনে আওয়ামী লীগের সম্ভাব্য প্রার্থী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার এপিএস সাইফুজ্জামান শিখর। তার বাবা আছাদুজ্জামান মাগুরার সাবেক এমপি ছিলেন। জেলা আওয়ামী লীগের প্রয়াত সভাপতির ছেলে শিখর শেখ আওয়ামী লীগের মনোনয়ন নিয়ে দলকে জিতিয়ে আনতে এলাকায় ব্যাপক সম্পৃক্ততা বাড়িয়েছেন এবং নৌকার বিজয় নিশ্চিত করতে দৃঢ় প্রতিজ্ঞ।

নেত্রকোনা-১ ( কলমাকান্দা-দুর্গাপুর) আসন থেকে বাবার আসনে মনোনয়ন চান তিন তিন বারের নির্বাচিত সংসদ সদস্য জালাল তালুকদারের ছেলে শাহ কুতুব উদ্দিন তালুকদার রুয়েল। গত দশম সংসদ নির্বাচনে রুয়েল তালুকদার এ আসন থেকে স্বতন্ত্র নির্বাচন করে জযলাভ করতে পারেননি। তিনি বিশ্বাস করেন এবার নৌকার প্রতীক নিয়ে নির্বাচন করার সুযোগ পাবেন।

জামালপুর-৫ আসনের বর্তমান এমপি হিসাবে দায়িত্ব পালন করছেন সাবেক ভূমি মন্ত্রী রেজাউল করিম হীরা। তার ছেলে মো. সালেহীন রেজা একাদশ জাতীয় নির্বাচনে মনোনয়ন পেতে চান। আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় উপ-কমিটির সাবেক সহ-সম্পাদক ও  ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক এ তরুণ নেতা  এলাকায় ব্যাপক জনসংযোগ করছেন এবং আগামী নির্বাচনে নৌকা প্রতীক নিয়ে শেখ হাসিনাকে জামালপুর-৫ আসনে বিজয়ী হওয়ার বিষয়ে শতভাগ আশাবাদী। যদিও তার পিতা রেজাউল করিম হীরাকে যদি মনোনয়ন দেন দলের সভানেত্রী তাহলে তিনি নির্বাচন করবেন না।

এছাড়া,  পাট ও বস্ত্র মন্ত্রী এমাজ উদ্দিন আহমেদের মেয়ে সীমাও নওগা থেকে নির্বাচনের প্রস্তুতি নিচ্ছেন এবং আওয়ামী লীগের মনোনয়ন প্রত্যাশী।

প্রতি মুহুর্তের সর্বশেষ খবর পেতে এখানে ক্লিক করে আমাদের ফেইসবুক পেইজে লাইক দিন

(লেখাটি পড়া হয়েছে 311 বার)


Print
এই পাতার আরও সংবাদ