বিএনপির থিংক ট্যাংক এখন কারা?

Print

bnp logoঅন্যতম প্রধান রাজনৈতিক দল বিএনপির থিংক ট্যাংক হিসেবে এতোদিনে যাদের পরিচিতি ছিল সাম্প্রতিক সময়ে দলটির সঙ্গে কার্যত তাদের দূরত্ব লক্ষ্যণীয়। এই প্রেক্ষিতে প্রশ্ন উঠেছে কারা এখন বিএনপির থিংক ট্যাংক। রাষ্টবিজ্ঞানী অ্যধাপক ড. এমাজউদ্দীন আহমদ, অধ্যাপক ড. মোস্তাহিদুর রহমান, ডা. জাফর উল্লাহ চৌধুরী, ফরহাদ মাজহার, শফিক রেহমান বিএনপির থিংক ট্যাংক হিসেবে পরিচিত থাকলেও নানা কারণে বেশ কিছুদিন যাবত তারা নীরব রয়েছেন। বিএনপির বিভিন্ন কর্মসূচিতে আগে তাদের দেখা গেলেও বিগত ৬ মাসে বিএনপির কর্মসূচিতে তাদের উপস্থিতি নেই।

আগে যারা দলের থিংক ট্যাংক হিসেবে পরিচিত ছিলেন বিএনপির ক্ষেত্রে এখন তাদের ভূমিকা কী জানতে চাইলে অধ্যাপক এমাজউদ্দীন আহমদ বলেন, ‘বিএনপি-আওয়ামী লীগ ওইভাবে চিন্তা করার বয়স এখন আমার নেই। রাজনৈতিকভাবে যেটা সঠিক মনে করি সেটা বলবো। বিএনপির পক্ষে গেলেও বলব, বিপক্ষে গেলেও বলব।’

সূত্র জানায়. জামায়াত ইস্যুতে অধ্যাপক ড. এমাজউদ্দীন আহমদের সঙ্গে বিএনপি চেয়ারপারসনের দূরত্ব তৈরি হওয়ার পর ড. মাহফুজ উল্লাহ, ড. মাহবুব উল্লাহ, সাবেক গভর্নর সালেহ উদ্দিন আহমেদ, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক প্রো-ভিসি সদরুল আমিন, দলের থিংক ট্যাংক হিসেবে কাজ করছেন।

অপর একটি সূত্র জানায়, দলের সর্বশেষ কাউন্সিলে বিএনপির গবেষণা সেলের অনুমোদন রয়েছে ওই সেলে পেশাদার লোকরা বিএনপির থিংক ট্যাংক হিসেবে অদৃশ্যভাবে কাজ করছেন। রামপাল, নির্বাচন কমিশন গঠন, বাংলাদেশ ব্যাংকের রিজার্ভ চুরি ইস্যুতে বিএনপির থিংক ট্যাংক কাজ করেছে এবং দলের নেতারা তা তদারকি করছেন।

জামায়াত ইস্যুতে বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার সঙ্গে অধ্যাপক এমাজউদ্দীন আহমদসহ একটি অংশের দূরত্ব সৃষ্টি হওয়ার পর কারা এখন বিএনপির থিংক ট্যাংক হিসেবে কাজ করছেন এমন প্রশ্নের জবাবে বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান ব্যারিস্টার শাজাহান ওমর বীর উত্তম বলেন, ‘তা তো বলতে পারব না, আমরা সরাসরি রাজনীতি করি, আমরা ছাড়া থিংক ট্যাংক কে? যারা কোয়ালিফাইড শিক্ষিত, রাজনৈতিক অভিজ্ঞতা সম্পন্ন তারাই তো থিংক ট্যাংক। আবার আলাদা থিংক ট্যাংক আছে নাকি?’

বিএনপির থিংক ট্যাংক প্রশ্নে রাজনীতি বিশেষজ্ঞ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের রাষ্ট্র বিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক নুরুল আমিন বেপারি বলেন, ‘আমার মনে হয় দেশের আনাচে কানাচে খুঁজেও বিএনপির থিংক ট্যাংক পাওয়া যাচ্ছে না।’

প্রতি মুহুর্তের সর্বশেষ খবর পেতে এখানে ক্লিক করে আমাদের ফেইসবুক পেইজে লাইক দিন

(লেখাটি পড়া হয়েছে 134 বার)


Print
এই পাতার আরও সংবাদ