কিছু বিষয় এনে দিতে পারে ব্যবসায় সফলতা। 

নিজের একটি ব্যবসা প্রতিষ্ঠান হবে,যেখানে আপনি নিজেই হবেন নিজের বস, থাকবে না কোনো সীমাবদ্ধতা  এমন স্বপ্ন অনেকেই দেখেন। আর এই স্বপ্ন বাস্তবায়ন করার জন্য ছোট পরিসরে ব্যবসা  শুরু করে থাকেন। ছোট কিংবা বড় যেকোনো ব্যবসা শুরু করার আগে কিছু  বিষয় বিবেচনা করা উচিত। তবেই ব্যবসা সফল করা সম্ভব হবে।   

১। সময়

ব্যবসা শুরু করতে চাচ্ছেন? নিশ্চিত হয়ে নিন ব্যবসায় আপনি সময় দিতে পারবেন কিনা? যত ছোট ব্যবসা শুরু করুন না কেনো সময় দিতে না পারলে সেখান থেকে সফলতা পাওয়া সম্ভব নয়। চাকরির সাথে ব্যবসা করতে হলে অব্যশই আপনাকে সময় ব্যবস্থাপনায় দক্ষ হতে হবে। সময় এবং কাজের অগ্রাধিকার হিসেবে আপনাকে কাজ করতে হবে। সময় সঠিকভাবে ব্যবস্থাপনা করতে না পারলে চাকরি এবং ব্যবসা একসাথে করা সম্ভব হবে না। তাই ব্যবসা শুরু করার আগে দেখুন চাকরির সাথে আমি ব্যবসা করতে পারবেন কিনা তারপর ব্যবসা শুরু করুন।

২। অর্থ

অর্থ ছাড়া ব্যবসা  অসম্ভব। অনেকেই মনে করেন ব্যবসা শুরু করলে অর্থ চলে আসবে, আর তখনই সৃষ্টি হয় ঋণের। কথিত আছে, টাকায় টাকা আনে। কথাটি অনেকাংশ সত্য। ব্যবসা শুরু করার পর তা পরিচালনার  জন্য ঋণের আশ্রয় নিয়ে থাকেন। একনজরে দেখে নিন নতুন ব্যবসা শুরুতে যে খরচগুলো আব্যশক। অনলাইন ব্যবসা শুরু করতে চাইলে-

পণ্য

ওয়েব সাইট

অ্যাকাউন্টিং সফটওয়্যার

মার্কেটিং

ডেলিভার খরচ

ফোনের বিল, ইত্যাদি।  এছাড়া অনলাইন ছাড়া ব্যবসা করতে চাইলে অব্যশই দোকান ভাড়া, এবং তা পরিচালন খরচকে মাথায় রাখবেন।

৩। ধৈর্য

আজকে ব্যবসা শুরু করলেন আর কাল তার থেকে লাভ আসা শুরু করবে তা কিন্তু নয়। ব্যবসা করতে চাইলে অব্যশই ধৈর্য ধারন করতে হবে। আশা করবেন না ব্যবসা থেকে তাৎক্ষনিক মুনাফা পাওয়া যাবে। প্রথম দিকে মুনাফা নাও আসতে পারে, হতাশ  হওয়া যাবে না। ধৈর্য নিয়ে ব্যবসা পরিচালন করতে হবে, আজ লাভ হয়নি কাল  হবে। তাই কোনো অবস্থাতে ধৈর্য হারা চলবে না। ভুলকে মেনে নিন। যে ভুলটি আপনার ব্যবসার জন্য ক্ষতিকর কিংবা অর্থের ক্ষতি করছে সেটি মনে রাখুন। এবং এটি পরের বার করা থেকে বিরত থাকুন। সবাইকে খুশি করার চিন্তা থেকে বিরত থাকুন। সকল ক্রেতাকে আপনি খুশি করতে পারবেন না। ক্রেতা নির্দিষ্ট করুন, তাদের প্রয়োজনুযায়ী ব্যবসা করুন। ব্যবসা চালু রাখার জন্য কিছু কাজ আছে যা খুবই বিরক্তকর সে কাজগুলো করার মানসিক প্রস্তুতি নিয়ে রাখুন।

৪। রিসার্চ

শুধুমাত্র ভালো আইডিয়া ব্যবসা সফল করার জন্য পর্যাপ্ত নয়, ব্যবসায় সফল হতে  হলে বাজার রিসার্চ, পণ্যের চাহিদা, পণ্যের ক্রেতা সম্পর্কে গবেষণা করতে হবে। পণ্যের বাজার চাহিদা না থাকলে যত ভালো পণ্য হোক না কেন তা বিক্রি হবে না। তাই ব্যবসা শুরু করার আগে কিছু বিষয়ে রিসার্চ করে নেওয়া ভালো। যেমন: যে পণ্যটি নিয়ে ব্যবসা শুরু করতে চান তার জন্য কী খুচরা দোকানের প্রয়োজন পড়বে? অনলাইনে ব্যবসা করতে চাইলে ওয়েবসাইটের প্রয়োজন পড়বে কিনা? ব্যবসা শুরু করার জন্য লাইসেন্স, ইন্সুরেন্স অথবা অন্য কোনো কিছুর অনুমতির প্রয়োজন হবে কিনা? ব্যবসার পণ্য কোথায় সংরক্ষণ রাখবেন? কোথা থেকে এবং কীভাবে পণ্য সংগ্রহ করবেন, ইত্যাদি বিষয় ভালো করে অনুসন্ধান করে তারপর ব্যবসা শুরু করুন।

৫। ব্যবসা পরিকল্পনা

ব্যবসা শুরু করার আগে একটি প্রাথমিক পরিকল্পনা করে নিন। কীভাবে শুরু করবেন? কোথা থেকে অর্থ সংস্থান করবেন? কী পরিমাণ অর্থ সংস্থান করবেন? কী ধরনের ব্যবসা করতে চান? তার ক্রেতা কারা সবকিছুর একটি পরিকল্পনা করে নিন। তারপর শুরু করুন আপনার স্বপ্নের ব্যবসা।

যেকোনো ব্যবসায় সফল হতে হলে প্রয়োজন পরিশ্রম এবং চেষ্টার। একমাত্র পরিশ্রম এবং চেষ্টা পারবে ব্যবসায় সফলতা এনে দিতে।