ব্রীজতো নয় যেন মরন ফাঁদ!

Print

নির্মানের ২১ বছর পরেও জনগুরুত্বপূর্ণ ব্রীজের সংস্কার কাজ না করায় মধ্যের অংশের ঢালাইসহ আয়রণ স্ট্রাকচারগুলো মরিচা ধরে ভেঙ্গে ও খসে পরে স্কুল-কলেজগামী শিক্ষার্থীসহ স্থানীয়দের চলাচলের জন্য এখন মরন ফাঁদে পরিনত হয়েছে। ঘটনাটি জেলার আগৈলঝাড়া উপজেলার রাজিহার ইউনিয়নের উত্তর বাহাদুরপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয় ও হাট সংলগ্ন আয়রণ ব্রীজের।
সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, ১৯৯৬ সালে এলজিইডি বিভাগের আওতায় পুরাতন ব্রীজের মালামাল দিয়ে স্কুল-কলেজগামী শিক্ষার্থীসহ স্থানীয়দের যাতায়াতের জন্য আয়রণ স্ট্রাকচারের ওই ব্রীজটি নির্মান করা হয়। স্থানীয়রা জানান, জনগুরুত্বপূর্ণ ওই ব্রীজ ও বর্ষার পানিতে নিমজ্জিত রাস্তা দিয়ে বাহাদুরপুর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়, বাহাদুরপুর হাট সংলগ্ন মাধ্যমিক বিদ্যালয়, বাহাদুরপুর নিশিকান্ত গাইন স্কুল এন্ড কলেজের শিক্ষার্থীসহ ওই এলাকার কয়েক হাজার মানুষ প্রতিনিয়ত জীবনের ঝুঁকি নিয়ে যাতায়াত করেন। স্থানীয়রা মরন ফাঁদে পরিনত হওয়া ব্রীজটিতে কাঠের পাটাতন দিয়ে সাময়িকভাবে কোন রকমে চলাচল করছেন। সূত্রে আরও জানা গেছে, ঝুঁকিপূর্ণ ওই ব্রীজের উত্তর পাশে নীচু রাস্তায় সম্প্রতি সময়ের বর্ষায় পানিতে তলিয়ে যাওয়ায় অনেক শিক্ষার্থীরা স্কুল-কলেজে যাওয়া বন্ধ করে দিয়েছে।

উপজেলা এলজিইডি বিভাগের প্রকৌশলী রাজকুমার গাইন ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, তিনিসহ ডানিডা সার্ভে প্রকৌশলী এনায়েতুর রহমান রবিবার বিকেলে প্রত্যন্ত ওই এলাকার ব্রীজসহ প্রায় দেড় কিলোমিটারের নীচু ও কর্দমক্ত রাস্তা পরিদর্শণ করেছেন। জরুরী ভিত্তিতে ব্রীজটি পুণঃনির্মাণসহ রাস্তা পাকাকরনের জন্য স্থানীয় সংসদ সদস্য আবুল হাসানাত আবদুল্লাহ’র সুপারিশ ও নির্দেশ মোতাবেক জনস্বার্থে দ্রুত প্রকল্প গ্রহণ করা হবে বলেও উল্লেখ করেন।

প্রতি মুহুর্তের সর্বশেষ খবর পেতে এখানে ক্লিক করে আমাদের ফেইসবুক পেইজে লাইক দিন

(লেখাটি পড়া হয়েছে 158 বার)


Print
এই পাতার আরও সংবাদ