বড় বোনের সামনে ছোট বোনকে পালাক্রমে ধর্ষণ

Print

ময়মনসিংহের ঈশ্বরগঞ্জে নয়জন বখাটে যুবক দলবেধে এক নারীকে তার বড় বোনের সামনে পালাক্রম ধর্ষণ করেছে বলে অভিযোগ ঊঠেছে। এ ঘটনায় শুক্রবার সন্ধ্যায় ওই ধর্ষিতানারী বাদী হয়ে ৯ জনকে আসামি করে ঈশ্বরগঞ্জ থানায় একটি মামলা করেছেন।
থানায় দায়েরকৃত মামলা ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, একবছর আগে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে ঈশ্বরগঞ্জ উপজেলার রাজীবপুর ইউনিয়নের ভাটি চরনওপাড়া গ্রামের নুরুল ইসলামের ছেলে জুয়েল মিয়ার পরিচয় হয় গোপালগঞ্জ জেলার কোটালীপাড়া থানার বান্দাবাড়ি গ্রামের বাসিন্দা ওই নারীর। সেই পরিচয় থেকে প্রেম প্রণয়, তারপর বিয়ের প্রস্তাব।

বখাটে জুয়েল মিয়ার বিয়ের প্রস্তাব পেয়ে ঐ নারী বড় বোনকে সাথে নিয়ে গত রোববার রাত ৯টার দিকে ঈশ্বরগঞ্জ বাস স্টেশনে এসে পৌঁছে। সেখান থেকে জুয়েল মিয়া সিএনজিযোগে দু’বোনকে নিয়ে যায় রাজীবপুর ইউনিয়নের ভাটি চরনওপাড়া গ্রামের লাটিয়ামারী বাজারের কাছে বেড়িবাঁধ এলাকার ব্রহ্মপুত্র নদের বালুর চরে।
পরে রাত ১১টা থেকে ভোর পৌঁনে ৫টা পর্যন্ত জুয়েল মিয়া ও তার সহযোগিরা বড় বোনকে আটকে রেখে ছোট বোনকে পালাক্রমে ধর্ষণ করে এবং তাদের সাথে থাকা বিভিন্ন স্বর্ণালঙ্কার ও দু’টি মোবাইল ফোন, ক্যামেরা, নগদ টাকাসহ অন্যান্য জিনিসপত্র ছিনিয়ে নিয়ে যায়। পরে ভোরে গুরুতর অসুস্থ অবস্থায় ছোটবোনকে উদ্ধার করে বড়বোন ঘটনাটি স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান মোদাব্বিরুল ইসলামসহ এলাকাবাসীকে জানায়।
প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে স্থানীয় চেয়ারম্যান ও গণ্যমান্যদের পরামর্শক্রমে শুক্রবার সন্ধ্যায় ওই নারী বাদী হয়ে জুয়েল মিয়াসহ নয়জনকে আসামি করে ঈশ্বরগঞ্জ থানায় একটি মামলা দায়ের করেন।
ঈশ্বরগঞ্জ থানার ওসি বদরুল আলম খান বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তিনি জানান, আসামিদের গ্রেফতারে পুলিশ অভিযান চালাচ্ছে।

প্রতি মুহুর্তের সর্বশেষ খবর পেতে এখানে ক্লিক করে আমাদের ফেইসবুক পেইজে লাইক দিন

(লেখাটি পড়া হয়েছে 120 বার)


Print
এই পাতার আরও সংবাদ
error: ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি