ভাঙ্গায় একই স্থানেকাজীজাফরউল্লাহ ও নিক্সন চৌধুরীর সমর্থকদের পাল্টা-পাল্টি মানববন্ধন

Print

স্টাফ রিপোর্টার।
ঢাকা-মাওয়া-বরিশাল মহাসড়কের ফরিদপুরের ভাঙ্গা উপজেলার মালীগ্রাম বাসষ্ট্যান্ডে একই স্থানে এলাকার একটি জমি সংক্রান্ত বিরোধ ও মামলার জের ধরে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম মেম্বার কাজী জাফরউল্লাহ’র সমর্থক ও স্থানীয় (ফরিদপুর-৪) সংসদ সদস্য মজিবর রহমান নিক্সন চৌধুরীর সমর্থকদের পাল্টা-পাল্টি পৃথক দু’টি মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে।

শুক্রবার বিকাল ৪টায় ১ম মানববন্ধনে কাজী জাফরউল্লাহ’র পক্ষের উপজেলা আওয়ামী লীগ ও অঙ্গ সংগঠনের নেতৃবৃন্দ মালীগ্রাম ঘোষপাড়ার সংখ্যালঘু হিন্দু পরিবার দেবদাস ঘোষ গংদের জমি জবর দখলের চেষ্টা ও নির্যাতনের প্রতিবাদে এক মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়।

অপরদিকে বিকাল ৫টায় ২য় মানববন্ধনে এমপি নিক্সন চৌধুরীর সমর্থক স্থানীয় চান্দ্রা ইউপি চেয়ারম্যান গিয়াস উদ্দিন আহমেদ এর নেতৃত্বে স্থানীয় নারী পুরুষ এমপি নিক্সন চৌধুরীকে কটুক্তি করা ও চেয়ারম্যানসহ স্থানীয় এমপি সমর্থকদের বিরুদ্ধে ভাঙ্গা থানায় ভ’মি দস্যুতার মামলার প্রতিবাদে অপর মানববন্ধনটি অনুষ্ঠিত হয়।

প্রায় ২ ঘন্টাব্যাপী মহাসড়কটিতে ২টি মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হওয়ায় যান চলাচল বন্ধ থাকে এবং তীব্র যানজটের সৃষ্টি হয়। মানববন্ধন চলাকালে পুলিশের উর্ধ্বতন কর্মকর্তা ও জেলা থেকে আসা দাঙ্গা পুলিশসহ ভাঙ্গা থানার পর্যাপ্ত পুলিশ সদস্য মোতায়েন ছিল।
কাজী জাফর উল্লাহর আওয়ামী লীগ সমর্থিত মানববন্ধনে হিন্দু পরিবারের নির্যাতনের শিকার দেবদাস ঘোষ জানান, মালীগ্রাম বাজারের পাশে একটি পুকুর সংলগ্ন তাদের পৈত্রিক জায়গা। উক্ত জায়গা চেয়ারম্যান গিয়াস উদ্দিন আহমেদ দখলের চেষ্টা করেন। গত মঙ্গলবার সন্ধ্যায় আমরা বাধা দিতে গেলে চেয়ারম্যান তার লোকজন নিয়ে আমাদের উপর অতর্কিত হামলা চালায়। তাতে আমিসহ আমার পরিবারের কমপক্ষে ১০ জন সদস্য গুরুতর আহত হই। এ ব্যাপারে চেয়ারম্যানসহ তার সহযোগি কয়েকজনকে আসামী করে ভাঙ্গা থানায় একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে।
এ সময় ১ম মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন, উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি সাইফুর রহমান মিরন, সহ-সাধারন সম্পাদক আকরামুজ্জামান রাজা, পূজা উদযাপন কমিটির সভাপতি প ানন মালো পচা, স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতা মিঞা ইমরান হোসেন খোকা প্রমূখ। বক্তারা হিন্দু পরিবারের উপর নির্যাতন ও মামলার আসামীদের গ্রেফতার পূর্বক দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানান।
অপরদিকে একই স্থানে ২য় মানববন্ধনে এমপি নিক্সন চৌধুরী সমর্থিত চেয়ারম্যান গিয়াস উদ্দিন আহমেদ জানান, উক্ত পুকুর সংলগ্ন কিছু খাস জমি রয়েছে তাহা আমরা বরাদ্দ (লীজ) নিয়েছি। আমি বা আমার কোন লোক হিন্দুদের জায়গা দখল করতে যাইনি। বিষয়টি নিয়ে স্থানীয় একটি কুচক্রি মহল ঘোলা পানিতে মাছ শিকার করার চেষ্টা করছে। আমি দুই দুইবার স্থানীয় চেয়ারম্যান নির্বাচিত হই। আমি নিক্সন চৌধুরীর সমর্থক হওয়ায় এবং আমার জনপ্রিয়তা ক্ষুন্ন করার জন্য উক্ত কুচক্রি মহলটি আমার এবং আমার বেশ কয়েকজন সমর্থকের নামে ভাঙ্গা থানায় একটি মিথ্যা মামলা দায়ের করেছে। বর্তমানে আমরা জামিনে রয়েছি। এছাড়া একটি মহল স্থানীয় জনপ্রিয় এমপি নিক্সন চৌধুরীর নামে কটুক্তি ও আমার নামে মিথ্যা অপবাদ দিয়ে চলেছে। আমরা তার তীব্র প্রতিবাদ জানাই।
মানববন্ধনে উপস্থিত শত শত লোকের সামনে মাইকে তিনি আরো ঘোষণা দেন এই মিথ্যা মামলা প্রত্যাহার করা না হলে পরবর্তীতে এমপি নিক্সন চৌধুরীকে সাথে নিয়ে তীব্র থেকে তীব্রতর আন্দোলন সহ পরবর্তী কর্মসূচী দেওয়া হবে।
এ সময় মানবন্ধনে বক্তব্য রাখেন, খন্দকার ওবাইদুর রহমান মামুন, ইমারত মুন্সি, মশিউর রহমান পলাশ, বেলায়েত খালাসী প্রমূখ।

প্রতি মুহুর্তের সর্বশেষ খবর পেতে এখানে ক্লিক করে আমাদের ফেইসবুক পেইজে লাইক দিন

(লেখাটি পড়া হয়েছে 145 বার)


Print
এই পাতার আরও সংবাদ