ভালবেসে আরেক তাজমহল

Print

সম্রাট শাহজাহান তার প্রেমকে অমর করে রাখতে যে কীর্তি স্থাপন করেছেন তা আসলেই নজিরবিহীন। ইতিহাস কাঁপিয়ে দেয়া অনেক প্রেম কাহিনী আছে। কিন্তু এমন প্রেম কাহিনী খুবই কম, যেটা মানুষের মুখে মুখে থাকে। অন্য সবার জন্য যেটা উদাহরণ হয়ে যায়।

স্ত্রী মমতাজকে ভালবেসে তাজমহল বানিয়ে এক দৃষ্টান্ত স্থাপন করেন সম্রাট শাহজাহান। এমনই আরেক দৃষ্টান্ত স্থাপন করলেন ভারতের উত্তরপ্রদেশের বুলন্দশহরের ফইজুল হাসান কাদরি (৭৭)। তবে তিনি কোনো সম্রাট বা ধনী ব্যক্তি নন। এক সময় তিনি ছিলেন সামান্য পোস্টমাস্টার। তিনিও তার স্ত্রী তাজাম্মুলি বেগমের স্মৃতিতে তৈরি করেন আরেক তাজমহল। যদিও এটি ছোট যা শাহজাহানের তাজমহলের সামনে কিছুই নয়, তবে তাদের তাজমহল তৈরীর কারণ ছিল এক। আর সেটা হলো ভালবাসা।

ফইজুল হাসান কাদরির এই তাজমহলকে বুলন্দশহরের লোকজন নাম দিয়েছে ‘মিনি তাজমহল’। কাদরি ২০১২ সাল থেকে নিজের হাতেই তৈরি করছেন এ মিনি তাজমহল। দিনে আট ঘণ্টার মতো তিনি এতে শ্রম দেন। আপাতত সিমেন্ট বালি দিয়েই এটি তৈরী করা হচ্ছে। ফইজুলের আশা, ভবিষ্যতে এ তাজমহলকে আরো সুন্দর করবেন।

জানা যায়, ফইজুলদের কোনো সন্তান ছিল না। মৃত্যুর সময়ে তার স্ত্রী বলেন, তাদের নাম ও স্মৃতি বহন করার মতো কেউ নেই। পরে ফইজুল ঠিক করলেন তিনি এমন কিছু করবেন যা সবাই মনে রাখবে।

জমানো ও পেনশনের টাকা দিয়ে তিনি তৈরি করেন এ স্মৃতিসৌধ। প্রথমে ৬ লাথ টাকা দিয়ে জমি কেনেন ফইজুল কাদরি। সেই জমিতে আরো ৩ লাখ টাকা খরচ করে তৈরি করেন এ ভালবাসার মিনি তাজমহল। শুধু তাই নয় ভালবাসার এ স্মৃতিসৌধকে রক্ষণাবেক্ষণে বছরে প্রায় এক লাথ টাকা খরচ করে যাচ্ছেন তিনি।

প্রতি মুহুর্তের সর্বশেষ খবর পেতে এখানে ক্লিক করে আমাদের ফেইসবুক পেইজে লাইক দিন

(লেখাটি পড়া হয়েছে 155 বার)


Print
এই পাতার আরও সংবাদ