ভালো নেই রাজারহাটের মন্ত্রী আব্দুস সালাম

Print

সাইফুর রহমান শামীম, কুড়িগ্রাম
ভালো নেই রাজারহাটের মন্ত্রী আব্দুস সালাম। প্রায়ই শারিরীক অসুস্থ্যতার কারণে কাজেও যেতে পারছেন না তিনি। জাতীয় পরিচয় পত্রে ভূল বয়স সন্নিবেশিত হওয়ায় বয়স্ক ভাতাও হয়নি তার।
আব্দুস সালাম। বয়স সত্তুরের উপরে। রাজারহাটের আবাল, বৃদ্ধা-বণিতা তাকে মন্ত্রী নামেই চিনেন। তিনি উপজেলার নাজিমখাঁন ইউনিয়নের মল্লিকবেগ গ্রামের মৃত ফকরুদ্দিনের পুত্র। পেশায় ভ্যান চালক। ৩৫ বছর ধরে তিনি ভ্যান চালান। তবে তিনি নির্ধারিত গন্তব্য ছাড়া যত্রতত্র মালামাল বহন করেন না। নাজিমখাঁ বাজার থেকে কুড়িগ্রাম জেলা শহরের দুরুত্ব প্রায় ২২ কিলোমিটার। পথিমধ্যে রয়েছে ছোটবড় ৬টি বাজার। এই বাজার গুলোর অনেক ব্যবসায়িকে জেলা শহরের পাইকারী দোকান থেকে মালামাল আনতে হয়। মন্ত্রী আব্দুস সালাম ওইসব বাজারের ব্যবসায়ীদের সাক্ষাত করে কার কি মালামাল প্রয়োজন তা আনতে স্লিপ ও টাকা নিয়ে ভ্যান গাড়ি সহ প্রতিদিন আসেন জেলা শহর কুড়িগ্রামে। মন্ত্রীকে প্রয়োজনীয় মালের লিষ্ট ও কোন দোকান থেকে মালামাল আনতে হবে জানিয়ে দিলে ব্যবসায়ীদের কষ্ট করে কুড়িগ্রাম যেতে হয় না । কারন মন্ত্রীর সততা ও বিশ্বস্ততার কথা সবার জানা।
এভাবে তিনি জেলা শহরে মালামাল ক্রয় করে স্থানীয় ব্যবসায়ীদের দোকানে পৌঁছানোর ভাড়া বাবদ যা পান তাই দিয়েই চলে আব্দুস সালামের ৬সদস্যের পরিবার। তবে তিনি গরীব হলেও নিজে থেকে কোন ব্যবসায়ির নিকট ভাড়া চান না। ব্যবসায়ীরা যা দেন তা নিয়েই খুশি থাকেন। শারীরিক গঠন প্রণালীতে সু-স্বাস্থ্য ও বিশাল দেহের অধিকারী আব্দুস সালামকে দেখে অপরিচিত কোন মানুষ বুঝে উঠতে পারবে না তিনি ভ্যান চালক। আব্দুস সালামের সততা , বিশ্বস্ততা এবং সু-স্বাস্থ্যের কারণে তাকে সকলে মন্ত্রী নামে সম্বোধন করেন বলে জানা যায়।
আব্দুস সালাম জানান , না খেয়ে থাকলেও কাউকে বুঝতে না দিয়ে আমি কর্মের মাধ্যমে জীবিকা নির্বাহের চেষ্টা করি। আগে বেশি উপার্জন করতে পারলেও এখন বয়সের ভাড়ে খুব বেশী বোঝা টানতে পারি না। দিনে দুই থেকে আড়াইশত টাকা উপার্জন হয়। তবে প্রায়ই শারিরীক অসুস্থ্যতার কারণে কাজে যাওয়া হয় না। জাতীয় পরিচয়পত্রে বয়স ভূল থাকায় আমার বয়স্ক ভাতা হয়নি। ১০টাকা কেজির রেশনিং কার্ডেও নাম উঠে নাই।
উপজেলা সমাজসেবা অফিসার মোঃ ফজলুল হক জানান, ৬৫ বছরের নীচে কোন ব্যক্তিকে বয়স্ক ভাতা দেয়ার সুযোগ না থাকায় তার বয়স্ক ভাতা হয়নি।

প্রতি মুহুর্তের সর্বশেষ খবর পেতে এখানে ক্লিক করে আমাদের ফেইসবুক পেইজে লাইক দিন

(লেখাটি পড়া হয়েছে 277 বার)


Print
এই পাতার আরও সংবাদ