ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরে অভিযোগ করুন পন্য কিনে প্রতারিত হলে

Print

এই বিষয়গুলোর জন‍্য অভিযোগ করুন! ভোক্তা অধিকার আপনার নাগরিক অধিকার।

ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ আইন, ২০০৯

অভিযোগ করার নিয়মঃ

১. অভিযোগ অবশ্যই লিখিত হতে হবে। তবে সেটা হাতে লিখে, টাইপ করে বা ই-মেইলেও লিখে পাঠানো যাবে।

২. জিনিস কেনার দিন থেকে শুরু করে ৩০ দিনের মধ্যে অভিযোগ দায়ের করতে হবে। ৩০ দিন পর অভিযোগটি গ্রহণযোগ্য হবে না।

৩. ভোক্তা হিসেবে আপনি কিভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন (বেশি দাম, ভেজাল, ওজনে কম ইত্যাদি) সেটি উল্লেখ করবেন অভিযোগপত্রে।

৪. অভিযোগের প্রমাণ হিসেবে সঙ্গে বিল বা রশিদের ছবি দিতে হবে।

৫. যদি সম্ভব হয়, তবে পন্যের ছবিও দিতে পারেন। তবে এটা বাধ্যতামূলক না।

৬. শেষে অবশ্যই অভিযোগকারীর নিজের পূর্ণাঙ্গ নাম, পেশা, পিতা ও মাতার নাম, ঠিকানা, ফোন ও ই-মেইল আইডি (যদি থাকে) উল্লেখ করতে হবে।

এগুলো উল্লেখ না করা হলে অভিযোগ গ্রহণযোগ্য হবে না।

কোথায় অভিযোগ করবেনঃ

১. ডাকযোগে বা সরাসরি এসে- মহাপরিচালক, জাতীয় ভোক্তা-অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর, ১ কারওয়ান বাজার (টিসিবি ভবন-৮ম তলা), ঢাকা।

২. ই-মেইলেঃ nccc@dncrp.gov.bd

এই ই-মেইল ঠিকানায় অভিযোগ লিখে বিলের ছবি এটাচ করে শুধু সেন্ড করে দিন, দেশের যে প্রান্তেই থাকুন না কেন আপনি। এরপর বাকি সব দায়িত্ব তাদের।

৩. প্রত্যেক জেলার ডিসি এবং উপজেলার ইউএনও বরাবর। প্রত্যেক জেলাতেই ডিসি অফিএ ভোক্তা অধিদপ্তরের শাখা আছে।

সবার সুবিধার জন্য আমি অভিযোগ কিভাবে লিখতে হবে, তার নমুনা ছবি হিসেবে পোস্টের সাথেই যোগ করে দিলাম।

তাছাড়া, যারা অভিযোগ লিখতে পারে না, তারা একটি ফর্ম পূরণ করেও অভিযোগ দায়ের করতে পারে।

এই ফর্মটি পাওয়া যাবে এই লিংকে

ফর্মটি প্রিন্ট করে কলম দিয়ে পূরণ করে, ডাকযোগে পাঠিয়ে বা পূরণকৃত ফর্মের ছবি তুলে সেটি ই-মেইল করে পাঠিয়ে দিয়েও অভিযোগ করা যাবে।

কোন অভিযোগ সঠিক হলে, আদায়কৃত জরিমানার ২৫ শতাংশ তাৎক্ষণিকভাবে অভিযোগকারী পাবেন।

বেশি মুল্যে পণ্য ক্রয়ে যদি আমাদের আর্থিক ক্ষতি হয়, তাহলে অভিযোগ করে আর্থিকভাবে লাভবান হওয়ার অধিকারও আমাদেরও আছে। আর এই সুবিধাই আইন আমাদের দিয়েছে।

অভিযোগের টাকাটা বড় কথা না, বড় কথা হল সচেতন নাগরিক হিসেবে, ভোক্তা হিসেবে নিজের অধিকার আদায় করা…

বি.দ্র. কেউ বিল বা রশিদ দিতে না চাইলে, এই বিষয়ে সাথে সাথে ভোক্তা অধিদপ্তর বা সংশ্লিষ্ট জেলার ডিসি অফিসে লিখিত অভিযোগ জানাবেন। মনে রাখবেন, যেকোনো অভিযোগের বিচার পেতে হলে আপনার সব কথা, প্রতিবাদ হতে হবে লিখিতভাবে, মুখে মুখে না।

প্রতি মুহুর্তের সর্বশেষ খবর পেতে এখানে ক্লিক করে আমাদের ফেইসবুক পেইজে লাইক দিন

(লেখাটি পড়া হয়েছে 863 বার)


Print
এই পাতার আরও সংবাদ