ভোলা লালমোহনে প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শ্রেণী কক্ষে স্বামী-স্ত্রীর রান্না ঘর!

Print

ষ্টাফ রিপোর্টার ঃ
ভোলা লালমোহন উপজেলার নয়াভাঙ্গনী সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে স্বামী ও স্ত্রী একই স্কুলে সহকারী শিক্ষক পদে চাকরী করায় নানা অনিয়ম,দূর্ণীতিতে জড়িয়ে পড়ার অভিযোগ উঠেছে।স্থানীয় সূত্রে জানাযায়, দীর্ঘ দিন এই বিদ্যালয়ে প্রধান শিক্ষকের পদ শূন্য থাকায় ২০০৭ ইং সালের এপ্রিল মাসের ১ তারিখে সহকারী শিক্ষক মোঃ আজিজুল হক ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষকের দায়ীত্বে আসেন।তিনি ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষকের দায়িত্বে থাকাকালিন বিভিন্ন অনিয়ম ও দূর্ণীতিতে জড়িয়ে পড়েন। স্থানীয় অভিভাবকগন অভিযোগ করেন, নানান অযুহাতে বিদ্যালয়ে না এসে তিনি উপজেলা শিক্ষা অফিসে তদ্ববির নিয়ে ব্যস্ত থাকেন। নিজ স্ত্রী সহকারী শিক্ষিকা জান্নাত বেগম কে অন্য বিদ্যালয় থেকে এই বিদ্যালয়ে বদলী করে আনেন এবং ক্লাস ফাঁকি দিয়ে তাদের নিজের ছোট বাচ্চা নিয়ে শিক্ষক রুমে বসে থাকেন। ফলে ওই বিদ্যালয়ের শিক্ষা কার্যক্রম ব্যহত হয়।এদিকে বিদ্যালয় উন্নয়ণে সরকারি বরাদ্দের টাকা ম্যানেজিং কমিটির সদস্যদের না জানিয়ে আত্মসাৎ করে সরকারী টাকায় গ্যাস সিলিন্ডার কিনে শ্রেণী কক্ষে আগুন জ¦ালিয়ে দুপুরে খাবার তৈরির প্রমান পাওয়া গেছে। স্থানীয়রা জানান,শিক্ষক আজিজুল হক ভ’য়া নাম দেখিয়ে মোবাইল ব্যাংকিংয়ের সিম কার্ড নিজের কাছে রেখে ছাত্র/ছাত্রীদের উপবৃত্তির টাকা আত্মসাৎ করছেন। শ্রেণী কক্ষে গ্যাস সিলিন্ডার ব্যবহার করে আগুন জ¦ালিয়ে রান্না করায় অভিবাবকদের মধ্য চরম ক্ষেভ বিরাজ করছেন। তারা বলেন, কোমলমতি শিশুরা না বুঝে গ্যাস সিলিন্ডারের মুখ খুলে দিলে বিস্ফোরন ঘটার ঝুকি রয়েছে। বার বার নিষেধ করা সত্বেও শিক্ষক আজিজুল হক কারো কথাই শুনছেনা। ২০১৭ইং সালের ২৩ জুলাই বিদ্যালয়ে এক জন প্রধান শিক্ষক বদলী নিয়ে আসলেও এখনো আজিজুল হকের কতৃত্ব চলছে বিদ্যালয়ে। অভিযোগের বিষয়ে অভিযুক্ত শিক্ষক জানান,তিনি কোন প্রকার অনিয়ম,দূর্ণীতির সাথে জড়িত না । আমি বিদ্যালয়ের সকল কিছু উর্ধতন কতৃপক্ষের অনুমতি নিয়েই করছি।

এব্যপারে ভোলা জেলা প্রথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা নিখিল চন্দ্র হায়দার জানান, বিদ্যালয়ের ভেতরে গ্যাস সিলিন্ডার ব্যবহার করার কোন বিধান নেই। ওই শিক্ষকের বিরুদ্ধে যে সকল অভিযোগ এসেছে তা খতিয়ে দেখা হবে এবং অভিযোগর প্রমান পেলে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

প্রতি মুহুর্তের সর্বশেষ খবর পেতে এখানে ক্লিক করে আমাদের ফেইসবুক পেইজে লাইক দিন

(লেখাটি পড়া হয়েছে 447 বার)


Print
এই পাতার আরও সংবাদ