মাদকের বড় বড় চালান আনা নেয়া হচ্ছে ঢাকা – ময়ময়নসিংহ ট্রেন রুটে

Print

ঢাকা – ময়ময়নসিংহ ট্রেন রুট ব্যবহার করেই মাদক ব্যবসায়ীরা আরো বেশি শক্ত হয়ে উটছে। স্টেশনে সরকারী লোকজনই এসব ক্ষেত্রে সহায়তা করছে। প্রতিদিনই মাদকের বড় বড় চালান আনা নেয়া হচ্ছে এ রুট ব্যবহার করেই। উল্লেখ্য ময়মনসিংহ রুটের ট্রেন গুলোতে মানুষ বেশি চলাচল করে, অনেকেই টিকেট ছাড়াই চলাচল করে। ব্যবসায়ীর অল্প খরচেই স্টেশনের পুলিশ থেকে শুরু করে ট্রেনের লোকজন দিয়েই মাদক আনা নেয়া করে। ময়নসিংহ গামী ট্রেন গুলো অগোছালো হয়ায় এই সুযোগ গুলো কাজে লাগাচ্ছে মাদক ব্যবসায়ীরা। ট্রেন গুলোতে পুলিশের চেকিং ও হয় না। এখন পযন্ত এই রুটে ট্রেন থেকে ফেলে দিয়ে মানুষ মেরে ফেলার অনেক ঘটনাই রয়েছে। কিছু কিছু ঘটনার এখনো কোনো কুল কিনারা পায় নাই রেল ওয়েতে দায়িত্ব প্রাপ্ত লোকজন। তবে কেউ মুখ খুলতে রাজি হলেও ধারনা করা হচ্ছে এই রুট টি বতমানে মাদক চালানের জন্য প্রধান মাধ্যম। সব কিছু জানা সত্তেও পুলিশ বরাবরেই নিরব ভুমিকা পালন করে যাচ্ছে। উল্লেখ্য রাত ১২.৩০ ঢাকা থেকে ছেড়ে আসা মোহনগঞ্জ গামী ট্রেন টিতে গত এক সপ্তাহে প্রায় কোটি টাকার মত মাদক চালান হয়েছে। এ ব্যাপারে নিউজ সংগ্রহ করতে গেলে কারো কোনো হেল্প পাওয়া যায়। বিডিসারাদিনের টিমের অনুসন্ধানে এমন সব তথ্য বেরিয়ে এসেছে। যাত্রী হয়রানী থেকে শুরু করে ব্লাকমেইলের মতো ঘটনাও ঘটেছে এর আগে। মোহন গঞ্জ গামী ট্রেনটি যখন ময়নসিংহ পোছায় ততক্ষনাক ব্যবসায়ীরা ততপর হয়ে ঊঠে। আমাদের প্রতিনিধিরা ছবি তুলতে গেলে ততক্ষনাক পালিয়ে যায় একদল লোক। পুলিশ থাকা সত্তেও প্রায় পাচ বস্তা মাদক উদ্ধার করা হয় নি। প্রায় মিনিট পরেই স্টেশনের সরকারী লোকের নাম ভাংগিয়ে এক প্রকার হামলা চালায় ব্যবসায়ীরা। অবশেষে ময়নসিংহ প্রতিনিধির উপর আক্রমণ করে ক্যামেরা নিয়ে যায়। পুলিশ থাকা সত্তেও কেনো এমন ঘটনা ঘটলো জানতে চাইলে দু:খ প্রকাশ করেছে দায়িত্ব প্রাপ্তরা। তারা বলেন, এই সিন্ডিকেটটা অনেক শক্তিশালী। এসব মাদক গ্রামে গঞ্জে ছড়িয়ে পড়ার ফলে তরুন সমাজে অবক্ষয় দেখা দিচ্ছে।

প্রতি মুহুর্তের সর্বশেষ খবর পেতে এখানে ক্লিক করে আমাদের ফেইসবুক পেইজে লাইক দিন

(লেখাটি পড়া হয়েছে 62 বার)


Print
এই পাতার আরও সংবাদ