মাদরাসা শিক্ষার্থীদের ওপর নজরদারি বাড়ছে

Print

জঙ্গি তৎপরতা বন্ধে কওমি ও আলিয়াসহ সকল মাদরাসার শিক্ষার্থীদের ওপর নজরদারি বাড়ানোর নির্দেশনা দেয়া হয়েছে।
সম্প্রতি মাদরাসা বোর্ড থেকে দেশের সকল মাদরাসায় পাঠানো জরুরি পাঁচ নির্দেশনা দ্রুত বাস্তবায়ন এবং ওই নির্দেশনা অনুযায়ী নিয়মিত প্রতিবেদন দাখিল করতে বলা হয়েছে।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, নানা কারণে জঙ্গিবাদের সঙ্গে জড়িয়ে পড়ছেন মাদরাসার শিক্ষার্থীরা। শোলাকিয়া ঈদগাহ মাঠে জঙ্গি হামলা, কল্যাণপুর জাহাজ বিল্ডিংসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে জঙ্গি কর্মকাণ্ডে মাদরাসাসহ বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীদের জড়িত থাকার প্রমাণ মিলেছে। এর পরিপ্রেক্ষিতে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে জঙ্গিবাদ ও সাম্প্রদায়িকতা নির্মূলে নানা পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে সরকার। সেই ধারাবাহিকতায় প্রধানমন্ত্রীর কার্যালায়ে এক সমন্বয় সভার সিদ্ধান্ত অনুযায়ী কওমি ও আলীয়াসহ সকল মাদরাসার শিক্ষার্থীদের ওপর নজরদারি বাড়ানোর নির্দেশনা দেয় মাদরাসা বোর্ড।
গত মঙ্গলবার দেশের সকল মাদরাসায় জরুরি পাঁচ নির্দেশনা বাস্তবায়ন এবং নির্দেশনার ভিত্তিতে নিয়মিত প্রতিবেদন দাখিলের নির্দেশ দেয় মাদরাসা শিক্ষা বোর্ড। বোর্ড রেজিস্ট্রার অধ্যাপক মো. মজিবুর রহমান স্বাক্ষরিত নির্দেশনামূলক ওই পত্রে মাদরাসা এবং এর আবাসনে জঙ্গি তৎপরতা আছে কিনা তা খতিয়ে দেখা; শিক্ষক-শিক্ষার্থী, অভিভাবকদের নিয়ে সন্ত্রাস-জঙ্গিবাদবিরোধী আলোচনার আয়োজন করা; শিক্ষার্থীদের যৌক্তিক কারণ ছাড়া ১৫ দিনের বেশি অনুপস্থিত থাকলে তাদের সম্পর্কে নিকটবর্তী থানা ও গোয়েন্দা সংস্থাসহ বোর্ডের নিকট নিয়মিত রিপোর্ট প্রদান করা; সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদবিরোধী নিয়মিত অ্যাডভোকেসি কর্মকাণ্ডের উদ্যোগ গ্রহণ এবং তা বাস্তবায়ন নিশ্চিত করা; সন্ত্রাস-জঙ্গিবাদ, মাদকগ্রহণ ইত্যাদি প্রতিরোধে একটি স্ট্যান্ডার্ড ফর্মে অভিভাবক-শিক্ষার্থীদের করণীয় সর্ম্পকে ধারণা প্রদান, শিক্ষক-অভিভাবকদের জন্য অনুসরণীয় কর্মপন্থা নির্ধারণ করে বিলবোর্ডের মাধ্যমে দৃশ্যমান স্থানে তা টাঙিয়ে দেয়া এবং আদর্শগতভাবে জঙ্গিবাদ মোকাবেলায় প্রয়োজনীয় কর্মকৌশল প্রণয়ন করে সে অনুযায়ী ব্যবস্থা গ্রহণ করা।
নির্দেশনায় আরও বলা হয়েছে, উল্লেখিত বিষয়গুলো অগ্রাধিকার ভিত্তিতে আমলে নিয়ে প্রয়োজনীয় প্রশাসনিক ও বিভাগীয় ব্যবস্থা গ্রহণসহ যথাযথভাবে অনুসরণ ও বাস্তবায়ন করতে হবে।
নির্দেশনা প্রদানের সত্যতা স্বীকার করে মাদরাসা বোর্ডের চেয়ারম্যান অধ্যাপক এ কে এম ছায়েফ উল্যা বলেন, জঙ্গিবাদ দমনের বিষয়টি চলমান রাখতে মন্ত্রিপরিষদ থেকে নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। এর ভিত্তিতে আমরা নতুন করে আবারও সকল মাদরাসায় এ সংক্রান্ত চিঠি দিয়েছি। যাতে সকলকে জঙ্গিবাদ সম্পর্কে সচেতন করা সম্ভব হয়।
তিনি বলেন, প্রতি মাসে মাদরাসা কর্তৃপক্ষকে এ বিষয়ে প্রতিবেদন পাঠাতে বলা হয়েছে। এছাড়া কোথাও অভিযোগ পাওয়া গেলে জেলা শিক্ষা অফিসারদের মাঠপর্যায়ে মনিটরিং করারও নির্দেশনা দেয়া হয়েছে।

প্রতি মুহুর্তের সর্বশেষ খবর পেতে এখানে ক্লিক করে আমাদের ফেইসবুক পেইজে লাইক দিন

(লেখাটি পড়া হয়েছে 144 বার)


Print
এই পাতার আরও সংবাদ