মায়ের ভাষাও আমাদের রক্ত দিয়ে অর্জন করতে হয়েছে

Print

বাঙালির কোনো অর্জনই রক্তবিহীন হয়নি উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, মায়ের ভাষাও আমাদের রক্ত দিয়ে অর্জন করতে হয়েছে। রক্ত দিয়েই বাঙালির স্বাধীনতা অর্জন।
তিনি বলেন, ভাষার মাসের প্রত্যয় হচ্ছে, কোনো সন্ত্রাস বা জঙ্গিবাদের ঠাঁই বাংলাদেশে হবে না। বাংলাদেশ হবে দক্ষিণ এশিয়ার মধ্যে সবচেয়ে শান্তিপূর্ণ দেশ।

বুধবার বিকেলে অমর একুশে বইমেলার উদ্বোধনকালে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।
ভাষা আন্দোলনের ইতিহাস ব্যাখ্যা করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, মায়ের ভাষা অধিকারের এই আন্দোলনে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের অবদান অগ্রগণ্য। তিনি ছিলেন ছাত্র সমাজের কাছে আদর্শ। বঙ্গবন্ধু জেলে থাকলেও ছাত্র নেতারা তার কাছে গিয়ে পরামর্শ নিয়ে এসে আন্দোলনের কাঠামো দাঁড় করিয়েছেন। বঙ্গবন্ধুর লেখা অসমাপ্ত আত্মজীবনী বইয়ে ভাষা আন্দোলনের বিস্তর আলোচনা রয়েছে।
তিনি বলেন, আওয়ামী লীগ সরকারের আমলেই বাংলাভাষা বিশ্বে অধিক মর্যাদা লাভ করে। ১৯৯৯ সালে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস ঘোষণা করে বিশ্ববাসী আমাদের ভাষা শহীদদের বিশেষ মর্যাদা দিয়েছে। এর পেছনে কানাডা প্রবাসী সালাম এবং রফিক নামে দুই বাঙালির অবদানের কথাও উল্লেখ করেন প্রধানমন্ত্রী।
প্রধানমন্ত্রী বলেন, রক্তের বিনিময়েই সব অর্জন। মহান স্বাধীনতা লাখো শহীদের রক্ত দিয়ে অর্জন করতে হয়েছে। আবার এই বাঙালিই বঙ্গবন্ধুর রক্ত নিয়ে খুনির কালিমা পেয়েছে। আমরা বঙ্গবন্ধুর খুনি এবং যুদ্ধাপরাধের বিচার করে জাতিকে কলঙ্কমুক্ত করেছি। এর মধ্য দিয়ে বাঙালির আত্মমর্যাদা বিশ্বে বহুগুণ বেড়েছে।
ভাষার মাসের এই গ্রন্থমেলা বিশ্ববাসীর কাছে বিশেষ গুরুত্ব পাচ্ছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, বিশ্ববরণ্য অনেক লেখক-সাহিত্যিক এই মেলায় অংশ নিচ্ছেন। আন্তর্জাতিক সাহিত্য সম্মেলন অনুষ্ঠিত হবে এই মেলা প্রাঙ্গণেই। ভাষা এবং সাংস্কৃতিক চর্চার মধ্য দিয়ে মানুষে মানুষে বন্ধন গড়ে তোলা যায়। অন্য কোনো উপায়ে তা সম্ভব নয়। বাংলা সাহিত্য বিভিন্ন ভাষায় অনুবাদের ওপর গুরুত্ব আরোপ করেন প্রধানমন্ত্রী।

প্রতি মুহুর্তের সর্বশেষ খবর পেতে এখানে ক্লিক করে আমাদের ফেইসবুক পেইজে লাইক দিন

(লেখাটি পড়া হয়েছে 126 বার)


Print
এই পাতার আরও সংবাদ