ম্যাটস শিক্ষার্থীদের সাথে পুলিশের সংঘর্ষ, শাহবাগ রণক্ষেত্র

Print

রাজধানীর শাহবাগে মেডিকেল ট্রেনিং ইনস্টিটিউটের (ম্যাটস) শিক্ষার্থীদের সাথে পুলিশের দফায় দফায় সংঘর্ষ চলছে। এসময় ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ায় পুলিশসহ আহত হয়েছে শতাধিক শিক্ষার্থী।
বৃহস্পতিবার (১৮ মে) দুপুর ১২টায় ৪ দফা দাবিতে ম্যাটস শিক্ষার্থীরা ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র শিক্ষক কেন্দ্র (টিএসসি) থেকে একটি বিক্ষোভ মিছিল বের করে শাহবাগ থানা সংলগ্ন ঢাবির চারুকলা অনুষদের সামনের সড়কে অবস্থান নিয়ে সড়ক অবরোধ ও বিক্ষোভ মিছিল করেন।

বিক্ষোভ মিছিলকে কেন্দ্র করে শাহবাগ থানার সামনে পুলিশ অবস্থান নিলে বিক্ষোভরত শিক্ষার্থীরা পুলিশ সদস্যদের লক্ষ্য করে ইট-পাটকেল নিক্ষেপ করলে পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে টিয়ারশেল নিক্ষেপ করে ম্যাটস শিক্ষার্থীদের মিছিল ছত্রভঙ্গ করে দেয়।
বৃহস্পতিবার বঙ্গবন্ধু ডিপ্লোমা মেডিকেল স্টুডেন্ট অ্যাসোসিয়েশনের (বিডিএমএসএ) এর ব্যানারে বেলা পৌনে ১১টার দিকে ম্যাটস শিক্ষার্থীরা টিএসসিতে জড়ো হয়ে বিক্ষোভ মিছিল বের করে স্লোগান দিতে দিতে শাহবাগ থানার সামনে সড়ক অবরোধ করে অবস্থান নেবার চেষ্টা করলে পুলিশ বাঁধা দেয়। আর তখনই পুলিশ ও শিক্ষার্থীদের মধ্যে ব্যাপক সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।
আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের পক্ষে বঙ্গবন্ধু্ ডিপ্লোমা মেডিকেল অ্যাসোসিয়েশনের সহ-সভাপতি মেহেদি হাসান জানান, বিগত চার বছর আমরা ম্যাটস শিক্ষার্থীরা এ আন্দোলন করে আসছি। আমাদের একটাই দাবি তা হলো সুশিক্ষায় শিক্ষিত হবার দাবি। আমরা ডিপ্লোমা চিকিৎসকরা বারবার উচ্চ শিক্ষার দাবি নিয়ে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়সহ সকলের দ্বারে দ্বারে ঘুরেও আমরা কোন সদুত্তর পাইনি। আজকে আমাদের চারটি দাবি নিয়ে এখানে আন্দোলন করছি। আমাদের প্রধান দাবি হলো মাননীয় প্রধানমন্ত্রী গণতন্ত্রের মানসকন্যা শেখ হাসিনার সাথে সাক্ষাতের মাধ্যমে আমাদের মনের দুঃখ ও সমস্যা প্রকাশ করতে চাই।’
এসময় আন্দোলনরত বিডিএমএসএ-এর সাধারণ সম্পাদক সোহেল রানা ফাহিম ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, ‘জাতির প্রত্যেক শিক্ষার্থীর জন্য উচ্চ শিক্ষায় শিক্ষিত হবার সুযোগ থাকলেও ম্যাটস শিক্ষার্থীদের সে সুযোগ নেই।’
তিনি বলেন, ‘মাত্র ২০ বছর বয়সেই ম্যাটস শিক্ষার্থীদের শিক্ষা জীবন শেষ হয়ে যায়, আমাদের উচ্চ শিক্ষার সুযোগ নেই, নেই কোন চাকরির সুযোগ। গত ২৬ এপ্রিল থেকে আন্দোলন করছি আমরা, আজকে আমরা চার দফা দাবি নিয়ে আমাদের সমস্যা সমাধানে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা করে তার কার্যালয়ের দিকে যাচ্ছিলাম কিন্তু পুলিশ আমাদের বাঁধা দেয়, টিয়ারশেল ও রাবার বুলেট নিক্ষেপ করে এতে অলরেডি ৩শ’ ম্যাটস শিক্ষার্থী আহত হয়ে ঢাকা মেডিকেলে ভর্তি হয়েছে। এছাড়া পুলিশ শতাধিক শিক্ষার্থীকে গ্রেফতার করেছে।’
তিনি প্রধানমন্ত্রীর দৃষ্টি আকর্ষণ করে বলেন, ‘আমরা আপনার পিতা জাতির জনকের হাত ধরে সৃষ্ট ম্যাটস শিক্ষার্থী, আমরা পড়াশুনা করতে চাই, একটি স্বাধীন সার্বভৌম দেশে কেন আমাদের উচ্চ শিক্ষার সুযোগ দেয়া হচ্ছে না?’
তিনি জানান, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের পঞ্চবার্ষিকী পরিকল্পনা অনুযায়ী ম্যাটস শিক্ষার্থীদের উচ্চ শিক্ষার অধিকার নিশ্চিত করা, মেডিকেল অ্যাডুকেশন বোর্ড নামে স্বতন্ত্র বোর্ড গঠন করা, ইন্টার্নশিপ ভাতা প্রদানসহ চার দফা দাবিতে কেন্দ্রীয় কর্মসূচি অনুযায়ী ম্যাটস শিক্ষার্থীরা আজকে মানববন্ধন ও শান্তিপূর্ণভাবে আন্দোলন পরিচালনা করছে।
আন্দোলনরত প্যারামেডিকেল (ম্যাটস) শিক্ষার্থীদের সাথে পুলিশের সংঘর্ষের বিষয়ে শাহবাগ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবুল হাসান বলেন, ‘নিরাপত্তা রক্ষার্থে ও রাস্তায় যানজট এড়াতে পুলিশ আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীদের রাস্তা অবরোধ করতে দেয়নি। বিশেষ করে আশেপাশে বেশ কিছু হাসপাতাল রয়েছে সেখানে জরুরি ভিত্তিতে রোগীদের অ্যাম্বুলেন্স চলাচলে যাতে বিঘ্ন না ঘটে সেজন্যই আমাদের প্রতিরোধ। বিশেষ করে তারা অবস্থান কর্মসূচি শেষে রাস্তা অবরোধের চেষ্টা করলে এ সংঘর্ষ হয়। সে জন্যই আমরা আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীদের ছত্রভঙ্গ করে দিতে বাধ্য হই।’
এদিকে, বিক্ষোভ কর্মসূচিতে সংঘর্ষের ফলে একজন অজ্ঞাত পথচারী আশঙ্কাজনকভাবে আহত হলে তাকে ঢাবির শিক্ষার্থীরা ঢামেকে ভর্তি করানোর ব্যবস্থা করেন। তাছাড়া এসময় ঢাবির টিএসসি ও শাহবাগ মোড়ে সৃষ্টি হয় তীব্র যানজট ও জনদুর্ভোগ।

প্রতি মুহুর্তের সর্বশেষ খবর পেতে এখানে ক্লিক করে আমাদের ফেইসবুক পেইজে লাইক দিন

(লেখাটি পড়া হয়েছে 188 বার)


Print
এই পাতার আরও সংবাদ