যতই দিন যাচ্ছে পাথরচাপা ইতিহাস প্রকাশ হচ্ছে

Print

‘তাহেরের জবানবন্দী’ প্রামাণ্যচিত্র উদ্বোধনে তথ্যমন্ত্রী বলেছেন, যতই দিন যাচ্ছে, পাথরচাপা ইতিহাস প্রকাশিত হচ্ছে। সামরিক শাসক জিয়ার রাজনৈতিক অন্যায় অপরাধ বেরিয়ে আসছে।
সোমবার সন্ধ্যায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের টিএসসি চত্বরে কর্নেল আবু তাহেরের জীবনভিত্তিক প্রামাণ্যচিত্র ‘তাহেরের জবানবন্দি’র উদ্বোধনী প্রদর্শনীতে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ কথা বলেন তথ্যমন্ত্রী ও জাসদ সভাপতি হাসানুল হক ইনু।

মন্ত্রী বলেন, ‘জিয়াউর রহমান শুধু কর্নেল তাহেরকেই হত্যা করেননি, সংবিধানও হত্যা করেছিলেন। বঙ্গবন্ধু ও মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস নির্বাসিত করেছিলেন। রাজাকার আমদানি করেছিলেন। সর্বোচ্চ আদালত জিয়াকে সঠিকভাবেই ঠাণ্ডা মাথার খুনি ও খলনায়ক হিসেবে চিহিৃত করেছে। আর কর্নেল তাহেরকে মহান দেশপ্রেমিক হিসেবে স্বীকৃতি দিয়েছে। কর্নেল তাহের অমর ছিলেন, অমর থাকবেন।’
প্রামাণ্যচিত্র নির্মাণ সংস্থা ডকুফ্রেম-এর কর্ণনধার আবুল কালাম আজাদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্যে কর্নেল তাহেরের স্মৃতিচারণ করেন সংসদ সদস্য লুৎফা তাহের, বিচারপতি জামিল শামসুদ্দীন চৌধুরী, অধ্যাপক আনোয়ার হোসেন ও ‘তাহেরের জবানবন্দি’র নির্মাতা আখতারুল আলম জিন্নাহ।
মুক্তিযুদ্ধভিত্তিক ওয়েব আর্কাইভ একাত্তর বাংলাদেশ ৫২ মিনিটের এই প্রামাণ্যচিত্রটি প্রযোজনা করেছে।
এদিকে বিশ্ব বেতার দিবস উপলক্ষে রাজধানীর আগারগাঁওয়ে আজ জাতীয় বেতার ভবনে বাংলাদেশ বেতার আয়োজিত আলোচনা সভায় তথ্যমন্ত্রী বলেন, বেতার উন্নয়নের চাহিদা পুরণে উদ্যোগী ভূমিকা নেয়, গণতন্ত্রের চাহিদা পুরণে জনগণকে সচেতন করে এবং সাংস্কৃতিক চাহিদা পুরণে চেতনার বিকাশ ঘটায়। সেই সাথে শান্তি ও উন্নয়নের জন্য জঙ্গি দমনের বিষয়ে একচুলও ছাড় দেয় না এই প্রাচীন অথচ আধুনিক গণমাধ্যম। যুগপৎ আর্থিক ও সাংস্কৃতিক সমৃদ্ধি অর্জনে বেতারের ভূমিকাকে অসামান্য বলে বর্ণনা করেছেন তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু।
তিনি বলেন, বেতার পরিবর্তনের বাহন, উন্নয়নের উৎসাহ আর ইতিহাস-ঐতিহ্যের ধারক।
এ সময় মহান ভাষা শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে মুক্তিযোদ্ধা ইনু বলেন, বাংলা ভাষা ও সংস্কৃতির শুদ্ধচর্চায় বাংলাদেশ বেতার যে অবদান রেখে চলেছে তা স্মরণীয় ও অনুসরণযোগ্য।
বাংলাদেশ বেতারের ভারপ্রাপ্ত মহাপরিচালক শাহজাদী আঞ্জুমান আরার সভাপতিত্বে তথ্য মন্ত্রণালয়ের সচিব মরতুজা আহমদ সভায় বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন।
বিশেষ অতিথির বক্তব্যে তথ্যসচিব মরতুজা আহমদ বাংলাদেশ বেতারকে দেশের সবচেয়ে পুরনো ও ঐতিহ্যমণ্ডিত গণমাধ্যম আখ্যা দিয়ে বলেন, জল-স্থল-আকাশে সর্বত্র সব মানুষের কাছে তথ্য ও বার্তা পৌঁছার সবচেয়ে উপযোগী মাধ্যম হিসেবে বেতার তার অনন্যতা প্রতিষ্ঠা করেছে, এবং বাংলাদেশ বেতার তারই একটি উদাহরণ।
‘তুমিই বেতার’ প্রতিপাদ্য ভিত্তি করে উদযাপিত ষষ্ঠ বিশ্ব বেতার দিবসের এ সভায় অন্যান্যের মধ্যে বাংলাদেশ বেতারের উপ-মহাপরিচালক (অনুষ্ঠান), উপ-মহাপরিচালক (বার্তা), প্রধান প্রকৌশলী, বেসরকারি এফএম, কমিউনিটি বেতার ও বেতার শ্রোতাদের প্রতিনিধিবৃন্দ বক্তব্য রাখেন।
এ দিন সকালে জাতীয় বেতার ভবন থেকে শুরু হওয়া বিশ্ব বেতার দিবস উপলক্ষে বর্ণাঢ্য র‌্যালিতে তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু’র নেতৃত্বে তথ্যসচিব মরতুজা আহমদসহ সরকারি ও বেসরকারি বেতারের সদস্যরা অংশ নিয়ে আগারগাঁও ও শ্যামলীর অংশবিশেষ প্রদক্ষিণ করেন। রাজধানী ছাড়াও চট্টগ্রাম, রাজশাহী, খুলনা, রংপুর, সিলেট, বরিশালে অবস্থিত বেতারের আঞ্চলিক কেন্দ্রগুলোতেও দিবসটি উদযাপিত হচ্ছে। দিবসটি উপলক্ষে রাষ্ট্রপতি এবং প্রধানমন্ত্রী প্রদত্ত বাণী সোমবারের পত্রপত্রিকাসহ বিভিন্ন গণমাধ্যমে প্রকাশিত হয়ে হয়।

প্রতি মুহুর্তের সর্বশেষ খবর পেতে এখানে ক্লিক করে আমাদের ফেইসবুক পেইজে লাইক দিন

(লেখাটি পড়া হয়েছে 210 বার)


Print
এই পাতার আরও সংবাদ