যে তদন্তের কোনও সীমারেখা নেই

Print

তদন্ত কবে শেষ হবে, তা বলতে পারছেন না তদন্ত সংস্থা র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়নের (র‌্যাব) কর্মকর্তারা। তদন্তে সংশ্লিষ্ট ও তদারক কর্মকর্তারা বলছেন, এটি একটি স্পর্শকাতর মামলা। আদালতের নির্দেশনা অনুযায়ী যথেষ্ট গুরুত্ব দিয়েই এ মামলার তদন্ত চলছে বলে জানিয়েছেন তারা। যদিও তদন্ত কর্মকর্তারা মনে করছেন, এ তদন্তের কোনও সীমারেখাই নেই।
২০১২ সালের ১১ ফেব্রুয়ারি ভোর রাতে রাজধানীর পশ্চিম রাজাবাজারের বাসায় খুন হন সাংবাদিক দম্পতি সাগর সরওয়ার ও মেহেরুন রুনি। প্রথমে থানা পুলিশ ও পরে ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি) তদন্তভার গ্রহণ করে। ঘটনার প্রায় দু’মাস পর ২০১২ সালের ১৮ এপ্রিল হাইকোর্টে হাজির হয়ে সাগর-রুনি হত্যাকাণ্ডের তদন্তে ব্যর্থতার কথা আদালতকে জানান তখনকার ডিসি ডিবি ও ডিএমপি’র মুখপাত্র এবং বর্তমানে কাউন্টার টেরোরিজম ইউনিটের প্রধান মনিরুল ইসলাম।

ওই দিনই র‌্যাবকে তদন্তের দায়িত্ব দেন হাইকোর্ট। র‌্যাবের ডিজি র‌্যাবকে নির্দেশ দেন, সুদক্ষ, অভিজ্ঞ এবং এএসপি পদমর্যাদার নীচে নয় এমন একজন কর্মকর্তাকে দিয়ে এ মামলার তদন্ত করাতে। হাইকোর্টের নির্দেশনার পর র‌্যাবের আবেদনে ভিসেরা রিপোর্টের জন্য ২৬ এপ্রিল সাগর-রুনির লাশ কবর থেকে তুলে পুনরায় ময়নাতদন্ত করা হয়। এরপর থেকে এই মামলার তদন্ত করছে র‌্যাব।
সর্বশেষ গত ৮ ফেব্রুয়ারি (বুধবার) তদন্তের অগ্রগতি প্রতিবেদন জমা না দেওয়ায় মহানগর হাকিম আদালতের বিচারক আগামী ২১ মার্চ এ মামলার পরবর্তী তারিখ ধার্য করেছেন। তদন্তের অগ্রগতি জানাতে গিয়ে র‌্যাব এ পর্যন্ত আদালত থেকে ৪৭ বার সময় নিয়েছে। সাগর-রুনি হত্যাকাণ্ডের মোটিভ, ডিএনএ পরীক্ষায় কাউকে চিহ্নিত করা গেছে কিনা এবং তদন্তের অগ্রগতি সম্পর্কে জানতে চাইলে এ মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা সহকারী পুলিশ সুপার (এএসপি) মহিউদ্দিন আহমেদ বলেন, ‘ডিএনএ ও আলামতগুলোর ফরেনসিক রিপোর্ট আমরা হাতে পেয়েছি। সব দিক বিবেচনায় রেখেই আমরা তদন্ত কাজ চালিয়ে যাচ্ছি। সাগর-রুনি হত্যাকাণ্ডের কারণ জানতে হলে অনেক প্রশ্নের জবাব জানতে হবে।’ তদন্ত কবে নাগাদ শেষ হবে জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘তদন্ত দ্রুত শেষ করার জন্য আমরা কাজ চালিয়ে যাচ্ছি। শেষ হলেই বিষয়টি গণমাধ্যমকে জানানো হবে।’
সাগর-রুনি হত্যাকাণ্ডের তদন্ত কোন পর্যায়ে আছে এবং কবে নাগাদ শেষ হবে জানতে চাইলে র‌্যাবের মিডিয়া উইংয়ের পরিচালক কমান্ডার মুফতি মাহমুদ খান বলেন, ‘তদন্তের কোনও সীমারেখা নেই। কেউ কোনও দিন বলতে পারে না যে তদন্ত কবে নাগাদ শেষ হবে। তদন্ত কার্যক্রম আন্তরিকতার সঙ্গে এবং আদালতের নির্দেশ অনুযায়ী চলছে।’ তিনি আরও বলেন, ‘এটি একটি স্পর্শকাতর মামলা। তদন্তকারী কর্মকর্তা যথেষ্ট গুরুত্ব দিয়েই মামলাটি তদন্ত করছেন এবং আদালতে অগ্রগতি প্রতিবেদন পেশ করছেন।’
কর্মসূচী: শনিবার আজিমপুর কবরস্থানে সাগর-রুনির কবরে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানাবেন সাংবাদিকরা। সাগর-রুনি দম্পতির একমাত্র সন্তান মাহির সরওয়ার মেঘ ও তাদের স্বজনরাও কবরস্থানে যাবেন জিয়ারত ও ফুল দিয়ে স্মরণ করতে। রুনির ভাই নওশের রোমান জানিয়েছেন, সকাল ৯টায় তারা কবরস্থানে যাবেন।
সকাল ১০টায় ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটি (ডিআরইউ) সাগর-রুনি হত্যাকাণ্ডের বিচার ও খুনিদের গ্রেফতারের দাবিতে প্রতিবাদ সমাবেশ করবে। সেগুনবাগিচায় ডিআরইউ কার্যালয়ের সামনে এ সমাবেশে যোগ দিতে সকল শ্রেণি-পেশার মানুষের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন সংগঠনটির সভাপতি সাখাওয়াত হোসেন বাদশা ও সাধারণ সম্পাদক মুরসালিন নোমানী।

প্রতি মুহুর্তের সর্বশেষ খবর পেতে এখানে ক্লিক করে আমাদের ফেইসবুক পেইজে লাইক দিন

(লেখাটি পড়া হয়েছে 172 বার)


Print
এই পাতার আরও সংবাদ